ব্যবসায়ীদের নিয়ে দশটি 'হাইস্যকর' কৌতুক

১৬৯৯ পঠিত ... ১৭:১৭, সেপ্টেম্বর ১২, ২০২২

Bebsayee-koutuk

 

১#

দুই ব্যবসায়ী কথা বলছে।

: কী ভাই, ব্যবসা কেমন?

: ব্যবসা তো মাথা থেকে পায়ে নামছে।

: মানে?

: আগে করতাম টুপির ব্যবসা, এখন করি মোজার।

 

২#

: কী মাসুদ, ব্যবসার অর্ডার কী রকম পাচ্ছ?

: দারুণ। এই তো গত সপ্তাহে একটা এক লাখ টাকার অর্ডার এনেছিলাম।

: গুল মেরো না তো।

: বিশ্বাস হচ্ছে না, ঠিক আছে, তোমাকে সেই অর্ডারটা বাতিল করার নির্দেশের কপি দেখাচ্ছি

 

৩#

দুই ব্যবসায়ী গল্প করছে।

: আচ্ছা ভাই, সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে কি কোনো কাজ হয়?

: মাঝে মাঝে হয়। গত মাসে বিজ্ঞাপন দিলাম আমার দোকানে একজন নাইটগার্ড চাই। সেই রাত্রেই দোকানে চুরি হলো।

 

৪#

দুই ইহুদী ব্যবসায়ী নিজেদের মধ্যে আলাপ করছে।

ওয়েনার: বছর দুই আগে আমার রেস্টুরেন্টে আগুন লেগে সব ছাই হয়ে যায়। অগ্নি বীমা করা ছিল বলে কোনোরকমে পুষিয়ে গেছে। তা না হলে আমি পথের ভিখারি হয়ে যেতাম।

লোয়েব: সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাসে সমুদ্র তীরের সমস্ত ভূসম্পত্তি আমারও নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। বীমাই আমাকে বাঁচিয়েছে। তা না হলে আমার অবস্থাও খুব খারাপ হত।

ওয়েনার: আচ্ছা ভাই, তুমি সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাসের ব্যবস্থা কীভাবে করেছিলে?

 

৫#

বিরাট ধনী এক ব্যবসায়ীর কাছে এক যুবক ধনী হওয়ার উপায় জানতে গেল।

: কী করে আপনি এতো ধনী হলেন?

: আমি এক ধনী ব্যবসায়ীর অংশিদার হয়ে কারবার শুরু করি; তার ছিল টাকা, আমার ছিল অভিজ্ঞতা।

: তারপর?

: এখন তার হয়েছে অভিজ্ঞতা আর আমার হয়েছে টাকা।

 

৬#

: আমি যখন প্রথম ঢাকায় আসি তখন আমার হাতে মাত্র দশটা টাকা ছিল।

: আশ্চর্য! মাত্র দশ টাকা মূলধন নিয়ে মাত্র পাঁচ বছরে আপনি কোটিপতি হয়ে গেলেন? তা ওই দশ টাকা প্রথমে কীভাবে কাজে লাগিয়েছিলেন?

: পঞ্চাশ লাখ টাকার জন্য বাড়িতে টেলিগ্রাম করতে।

 

৭#

রেস্তোঁরার মালিক: ওয়েটার, আজ খদ্দেরদের সঙ্গে একটু ভালো ব্যবহার করবে।

ওয়েটার: কেন, স্যার?

মালিক: আজকের ভাতের তলা ধরে গেছে, পোড়া গন্ধ।

 

৮#

 : কী হে, ব্যবসা কেমন চলছে?

: অ্যাকাউন্টেন্টের জন্য বিজ্ঞাপন দিচ্ছি।

: কেন গত সপ্তাহেই না নতুন অ্যাকাউন্টেন্ট নিলে?

: হ্যা ওকে ‘ধরিয়ে দিন’ বিজ্ঞাপনই তো দিচ্ছি।

 

৯#

নতুন এক গয়নার দোকানের মালিক সিদ্ধান্ত নিলেন তাদের দোকানের বিজ্ঞাপন শহরের প্রতিটি বিবাহিত মহিলার হাতে পৌঁছে দিতে হবে। তিনি বিজ্ঞাপনগুলো খামে ভরে তাদের স্বামীদের নামে পাঠিয়ে দিলেন, আর খামের ওপরে লিখে দিলেন ‘ব্যক্তিগত ও অতি গোপনীয়।‘

 

১০#

একটা বড় ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের ম্যানেজার খেয়াল করলেন একজন সেলসম্যান একজন ক্রেতার সঙ্গে তর্ক করছেন। ম্যানেজার দ্রুত এগিয়ে গেলেন…

: দেখো তোমাকে সাবধান করে দিচ্ছি এই ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে ক্রেতার কথাই সঠিক। ক্রেতার সঙ্গে কোনো তর্ক করা চলবে না।

: ঠিক আছে আপনি যেমন বলেন স্যার।

: তা কী নিয়ে তর্ক করছিলে?

: ভদ্রলোক বলছিলেনে এই স্টোরের ম্যানেজার একটা মস্ত গাধা।

১৬৯৯ পঠিত ... ১৭:১৭, সেপ্টেম্বর ১২, ২০২২

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top