ইমরান সাহেবের আজ বউ বাড়িতে নেই

৫৯১ পঠিত ... ১৭:১৬, জুন ২৩, ২০২২

Imran-saheber-bou-bari-nei

ইমরান সাহেব আজকে বেশ খুশি। বিয়ের পাঁচ বছর পর তার বউ তমা চারদিনের জন্য নিজেদের গ্রামের বাড়ি বেড়াতে যাবে বলে জানিয়েছে। সকাল সকাল খবরটা জানবার পর থেকে ইমরান সাহেব বিশাল খুশি। এই চারদিন তিনি ইচ্ছামত অনেক কিছু করতে পারবেন, আর বউ চেঁচাবেও না। সকালে নাস্তা করবার পর তিনি রুমে গিয়ে বউয়ের শাড়ি দেখছিলেন যে কি কি শাড়ি প্যাক করে দিবেন। এমন দিন তো সবসময় আসে না। চারদিন চিল্লাচিল্লি থাকবে না, জিনিস ভাঙাভাঙি হবে না, ইচ্ছামত টিভি আর খাওয়া চলবে। কে পায় আর ইমরান সাহেবক…। আর তার সাথে একটু ফেসবুকেও বসা যাবে।

ইমরান সাহেবের স্ত্রী তমা সকাল থেকে লক্ষ্য করছে স্বামীর খুশি। এত খুশি দেখে তমার মেজাজটা খারাপ হয়ে গেলো। সে বললো, ‘তোমার তো দেখি ফুর্তি লাগছে!’

: আরে কী বলো। একটুও না। তুমি খালি আমাকে ভুল বোঝো।  

তমা আর কোনো কথা না বলে চলে গেলো বেড়াতে। এদিকে ইমরান সাহেব গেলেন খাবার বানাতে। আহা… কী শান্তি বাসায়। কোনো কোলাহল নেই। খাবার খেয়ে সোজা বিছানায় গিয়ে ফেইসবুকে গিয়ে দেখেন ম্যাসেজ, ‘হাই। ভালো আছেন?’

: আলহামদুলিল্লাহ।

: আপনাকে আমি চিনি। আমরা একই কলেজে পড়েছি।

: ওহ। কোন ব্যাচ?

এরপর অনেক আলাপ হলো তাদের। আলাপের এক পর্যায়ে মেয়েটা বললো,

: আমার একটা উপকার করবেন?

: জি বলুন।

: আমাকে ১০০ টাকা ফ্লেক্সি দিতে পারবেন? আমি কালকেই দিয়ে দিবো। আসলে খুব বিপদ হয়ে গিয়েছে। হাত একদম খালি। খুব লজ্জা লাগছে বলতে।    

ইমরান সাহেবের খুব মায়া হলো। বললেন, বিকেলে দেবেন। এটা বলে রুম গুছাতে গেলেন।

হঠাৎ করে কলিংবেলের শব্দ। উঠে দরজা খুলতেই ইমরান সাহেবকে এক ঘুষি দিয়ে মেঝেতে ফেলে দিয়ে  দাঁত কটমট করে তমা বললো, ‘অন্য মহিলার প্রতি তোর খুব দরদ তোর তাই না? আমি টাকা চাইলে তো তখন হিসাব আসে দুনিয়ার… আর এখন এত পীরিত? খুউব চলে তাই না? ভাগ্যিস ফেক আইডি দিয়ে তোকে পরীক্ষা করতেছিলাম নাহলে তো টেরও পেতাম না। ‘ এই বলে তমা গলা টিপে ধরে ইমরান সাহেবের আর তখনই ইমরান সাহেবের ঘুম ভেঙে যায়।

তাড়াতাড়ি করে এক গ্লাস পানি খেয়ে তমার দিকে তাকালেন তিনি। তারপর মনে মনে বললেন, ‘না ও ঘুমাচ্ছে।‘ ঘড়িতে তাকিয়ে দেখেন রাত বাজে তিনটা। তারমানে তমা বেড়াতে যায় নাই। ওটা স্বপ্ন। শিট ম্যান!’ হঠাৎ উনি কেঁপে উঠলেন। এবার তিনি দ্রুত ফেইসবুকে ঢুকলেন।

আসলে কদিন আগে উনাকে এক মহিলা সত্যি সত্যি ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠিয়েছে। ক্যান্সেল করে দেবার পরেও বার বার রিকুয়েস্ট পাঠানোতে উনি মহিলার আইডিতে ঢুকে যখন দেখছিলেন তখন তমা বলেছিলো, ‘কে এই মহিলা? তুমি কি প্রেম করো?’ ইমরান সাহেব হেসে উড়িয়ে দিয়েছিলেন এবং রিকুয়েস্ট একসেপ্ট করেছিলেন। দুইএকদিন হাই হ্যালোও হয়েছিলো। আজ দুপুরেই মহিলাটি টাকা চেয়েছিলো, কিন্তু বিকেলে দেবার কথা বলে ইমরান সাহেবের আর মনে ছিলো না।

ইমরান সাহেব তাড়াতাড়ি করে মহিলাটিকে ব্লক করে দিলেন। বলা তো যায়না কখন কি হয়… আর যেই স্বপ্ন দেখা হলো এরপর ব্লক করা ফরজ।

পরদিন সকালে উঠে নাস্তার টেবিলে যাবার পরেই এক ধাক্কা মতোন খেলেন ইমরান সাহেব। টেবিলে খাবারের পাহাড়! এত খাবার দেখে উনি তব্দা খেয়ে গেলেন। তমাকে কিছু জিজ্ঞেস করার আগেই বললো, ‘হ্যাঁগো তুমি আমাকে মাফ করে দিও। আমি আমার ফেইক আইডি দিয়ে দেখছিলাম যে তুমি আর সবার স্বামীর মত বদ কিনা। স্প্যারোজ গ্রুপের থেকে আমি এ বুদ্ধি শিখেছি। কিন্তু আমি এখন অনেক খুশি। তুমি অনেক ভালোগো।‘

সকাল সকাল এইসব শুনবার পর ইমরান সাহেব আর একটা কথা না বাড়িয়ে দ্রুত চলে গেলেন দুই রাকাত নফল নামাজ পড়তে। তিনি ঠিক করেছেন একটা নফল রোজাও রাখবেন আর কিছু দান সদকাও করবেন। আল্লাহ উনাকে অনেক বড় এক বিপদ থেকে উদ্ধার করেছেন।

৫৯১ পঠিত ... ১৭:১৬, জুন ২৩, ২০২২

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top