বেকার হলে যে জোকগুলো আপনি বুঝবেনই না

৪৯৫২ পঠিত ... ১৬:৩৬, জুন ২২, ২০২৩

বেকার-হলে

 

১#

এক অফিসের কর্মচারীরা সবাই অফিসে একদম ঠিক সময়ে পৌঁছে যান।

বসকে তার এক বন্ধু জিজ্ঞেস করলেন, ‘তোমার কর্মচারীদের কী এমন জাদু করেছ যে তারা এত সময়ানুবর্তী হয়ে গেল?’

বস হাসতে হাসতে বললেন, ‘জাদু না হে, আমার অফিসে একটা চেয়ার কম। সবাই সময়মতো পৌঁছাতে চেষ্টা করে, যেন দাঁড়িয়ে থাকতে না হয়!’

 

২#

অফিসের বস কর্মচারীদের বললেন, ‘আজ আমার মনটা বেশ ভালো। বলো, তোমাদের কী দাবিদাওয়া। আজ সব শুনব।’

এক কর্মচারী বললেন, ‘স্যার, আমরা ছুটি খুবই কম পাই। ছুটি একটু বাড়িয়ে দেওয়া যায় না?’

বস: কী রকম ছুটি চাও, বলো?

কর্মচারী: ছয় মাসের ছুটি, বছরে দু’বার!

 

৩#

বস: আপনি কি মৃত্যুর পরের জনমে বিশ্বাস করেন?

কর্মচারী: জি স্যার।

বস: হুমম্, করারই কথা। গতকাল আপনি মায়ের মৃত্যুবার্ষিকীর কথা বলে অফিস থেকে ছুটি নেওয়ার পর আপনার মা অফিসে এসেছিলেন, আপনার সঙ্গে দেখা করতে!

 

৪#

প্রথম বন্ধু: আমার দাদা দৌড়ে চ্যাম্পিয়ন ছিলেন। তীর ছুঁড়ে দিলে সেটার আগে লক্ষ্যে পৌঁছে যেতেন।

দ্বিতীয় বন্ধু: আমার দাদা আরও বড় দৌড়বিদ। গুলির পাশাপাশি ছুটতে পারতেন তিনি।

তৃতীয় বন্ধু: আর আমার দাদা সরকারি চাকরি করতেন। অফিস ছুটি হতো পাঁচটায়, তিনি তিনটার সময়ই বাসায় চলে আসতেন রোজ।

 

৫#

অফিসে সিদ্দিক সাহেবের প্রথম দিন।

বস: আমাদের অফিসে একটি ব্যাপারে আমরা খুবই গুরুত্ব দিই, তা হলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা। তুমি নিশ্চয়ই আমার ঘরে ঢোকার আগে পাপোশে জুতা মুছে ঢুকেছ?

সিদ্দিক: অবশ্যই স্যার।

বস: আরেকটি ব্যাপারে আমরা আরও বেশি কঠোর। তা হলো সততা। দরজার বাইরে কোনো পাপোশ নেই, ইডিয়ট!

৪৯৫২ পঠিত ... ১৬:৩৬, জুন ২২, ২০২৩

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top