গরমে একজনের বমি, একজন খেললো দুইটি সোয়েটার পরে

৬৭৩ পঠিত ... ১৭:৩২, জুন ০৭, ২০২৩

গরমে

১৯৮৬ এর ভারতের চেন্নাইয়ে, তীব্র দাবদাহ চলছে, আর ভ্যাপসা গরম। এর মাঝে ইন্ডিয়া আর অস্ট্রেলিয়ার মাঝে এক টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। আর এই ম্যাচে ঘটে যায় ক্রিকেট ইতিহাসের অবিস্মরণীয় কিছু ঘটনা। যেমন অস্ট্রেলিয়ার এক খেলোয়ার এই ম্যাচে বোলিং করেন দুইটা সোয়েটার পরে৷ জি সুপ্রিয় পাঠক! আপনি ঠিকই পড়েছেন দুইটা সোয়েটার।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী এই ম্যাচের সময় বাতাসে হিউমিডিটির পরিমাণ ছিল প্রায় ৯০ শতাংশ। প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান ডিন জোনস একটি দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি করেন। কিন্তু অত্যধিক পানি শূন্যতায় ভুগে আর বার বার বমি করার দরুন আউট হবার পর পরেই তাকে নিকটস্থ হসপিটালে যেতে হয়। ডিন জোন্স ব্যাটিং করার সময় বার বার বলেছিলেন যে,’তিনি আর ব্যাটিং করতে অপারগ।‘ কিন্তু ড্রেসিংরুম থেকে তাকে রিটায়ার্ড হার্ট আউট হবার অনুমতি দেয়া হয়নি। ইভেন অজি ক্যাপ্টেন অ্যালান বোর্ডার তাকে হালকা খোচাও মেরেছিলেন। ডিন জোন্স পরে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘সেদিন ১২০ রান করার পরে কী ঘটেছিলো আর কিছুই আমার মনে নেই।‘

প্রবল উত্তেজণাপূর্ণ এই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ইনিংসে করে ৫৭৪ রান। ডিন জোন্সের ২১০ রানের পাশাপাশি ক্যাপ্টেন অ্যালান বোর্ডার করেন ১০৬ রান। জবাবে কপিল দেবের ১৩৮ বলে ১১৯ রানের ঝড়ো সেঞ্চুরির সুবাদে ইন্ডিয়া তাদের প্রথম ইনিংসে সংগ্রহ করে ৩৯৭।

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে অজিরা ডিক্লেয়ার দেয়ার আগে সংগ্রহ করে ৫ উইকেটে ১৭০ রান। আগের ইনিংসের ডাবল সেঞ্চুরিয়ান ডিন জোন্স এবার করেন মাত্র ২৪। ৩৪৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে গাভাস্কারের ৯০ এবং রবি শাস্ত্রীর ৪০ বলে ৪৮ রানের সুবাদে একটা সময় ইন্ডিয়া জয়ের স্বপ্ন দেখছিলো। কিন্তু রবি শাস্ত্রীর শেষ ওভারে শেষ ব্যাটসম্যান মনীন্দর সিং কে স্ট্রাইক দিয়ে বসেন। অস্ট্রেলিয়ার চতুর অফ স্পিনার গ্রেগ ম্যাথিউজ এর ঘূর্ণিজালে মনীন্দর সিং পরাজিত হন। ম্যাচের এক বল বাকি থাকতে ইন্ডিয়া অল আউট হয়। তখন জয়ের জন্য দরকার ছিল মাত্র ১ রান। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এটাই ২য় টাই ম্যাচ।

ফিরে আসি সোয়েটার এর ঘটনায়, অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার গ্রেগ ম্যাথিউজ এ ম্যাচের শেষ দিন এর পুরো সময়টা দুইটা সোয়েটার পরে বোলিং করেন। অজি প্রাক্তন ক্যাপ্টেন স্টিভ ওয়াহ তার আত্মজীবনী ‘আউট অফ মাই কম্ফোর্ট জোন’ বইতে এ ব্যাপারে লিখেছেন, ‘ওকে (গ্রেগ কে) দুইটা সোয়েটার পরে বোলিং করতে দেখে  আমরা অবাক হয়ে গিয়েছিলাম। এটা কীভাবে সম্ভব?’

কিন্তু গ্রেগের কাছে এটার একটা সহজ ব্যাখ্যা ছিলো, মরুভূমিতে যাযাবর সম্প্রদায় এর মানুষজন উলের তৈরি জামা পরে থাকে যেন শরীরের ভেতরের ঠান্ডা ভাবটা শরীরের সাথেই থাকে। অনেকটা এসি রুমের দরজা সারাদিন বন্ধ করে রাখলে যেমন রুম অনেকক্ষণ ঠান্ডা থাকে সেরকম। এই থিওরি প্রয়োগ করেই ম্যাচের শেষ দিন দুইটা সোয়েটার পরে বোলিং করে ছিলেন এই স্পিনার। বুদ্ধিমত্তার পুরস্কার হিসেবে পেয়েছিলেন ১০টি উইকেট।

৬৭৩ পঠিত ... ১৭:৩২, জুন ০৭, ২০২৩

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top