পরিচিত কিছু গানের ইতিহাস, যা জানলে মাথা ঘুরে যাবে

৫৮৯ পঠিত ... ১৮:২৭, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪

429104716_3729908063894641_8859373453488370822_n

রমজান আলী

গানের e(আরকি)তিহাস:

এক:

কুমারের প্রেমিকা থাকতেন ইন্ডিয়াতে। তাই প্রেমিকার সাথে রোজ রোজ দেখা করা সম্ভব ছিল না তার জন্যে।

সেবছর দেখতে দেখতে ভালোবাসা দিবস এসে গেল।

এদিকে তার পাসপোর্টের মেয়াদও শেষ হয়ে গেছে। পাসপোর্ট ছাড়া তো ইন্ডিয়াতে ঢোকা যাবে না। পাসপোর্ট নবায়ন করতে দেয়া হয়েছিল কিন্তু সেটা এখনও তৈরি হয়ে আসেনি।

ভালোবাসা দিবসে প্রেমিকাকে একটি নজর দেখার জন্য তার ভেতরটা আনচান করতে লাগল। এক অস্থির স্রোত উথলে উঠল গহীনে। শেষ পর্যন্ত আর থাকতে না পেরে শরীরে কঠিন পক্স হবার পরও তিনি ইন্ডিয়ার বর্ডারের কাছে চলে গেলেন।

এরপর ইন্ডিয়ামূখী হয়ে উচ্চস্বরে গান ধরলেন,

‘যেখানে সীমান্ত তোমার, সেখানে বসন্ত আমার,

ভালোবাসা হৃদয়ে নিয়ে,

আমি বারেবার আসি ফিরে,

ডাকি তোমায় কাছে।‘

 

দুই:

জগলু হাঁস বিক্রি করতে বাজারে যাচ্ছে। রাস্তায় সলিমুদ্দির দোকানের পাশে তার বন্ধুরা ক্যারম খেলছিল। তাকে আসতে দেখে একজন চেঁচিয়ে বলে উঠল, ও জগলু, আয় আয়, এক বোর্ড খেলে যা, জিতলে বিশ টাকা।

জগলুর হাতে দুইটা হাঁস। সে বলল, আমি বাজারে যাচ্ছি। আসার পথে খেলব।

বন্ধুরা জানে সে তেমন খেলা পারে না। খেললে নিশ্চিত ২০ টাকা হারবে। তারা হাঁসগুলো টেনে নিয়ে সেগুলোকে মাটিতে ফেলে রেখে তাকে জোর করে বোর্ডের সামনে দাঁড় করিয়ে দিলো এবং যথারীতি প্রথম বোর্ডে সে হেরে গেল।

বিশটা টাকা লস।

বন্ধুদের একজন কষ্ট পাবার অভিনয় করে বলল, প্রতিশোধ নে জগলু। আরেকটা খেলবি?

জগলু হাঁসগুলো মাটি থেকে তুলে নিতে নিতে গেয়ে উঠল, ‘Duck দিয়াছেন দয়াল আমারে, রইব না আর বেশিদিন তোদের মাঝারে...’

 

তিন:

সফিক সাহেব খুবই ইমোশনাল মানুষ। কারও সামান্য দুঃখ কষ্টেই তার অন্তর হু হু করে কেঁদে ওঠে।

একদিন অফিস থেকে ফেরার পথে এক ছেলেকে কান্নারত অবস্থায় দেখতে পেয়ে কাছে গিয়ে তার মাথায় হাত রেখে তিনি জানতে চাইলেন, ‘বাবা, কান্না করছ কেন? কী হয়েছে তোমার?’

ছেলেটা ফুঁপিয়ে কেঁদে উঠল। পরে তার ভাষ্য শুনে বোঝা গেল, ছেলেটার নাম জীবন। তার মা তাকে বরই কিনতে বাজারে পাঠিয়েছিল। কিন্তু আসার পথে সেগুলো কোথায় যেন হারিয়ে গেছে। এরপর সে অনেক খুঁজেও বরইগুলো আর কোথাও পাচ্ছে না। বরই ছাড়া বাসায় গেলে তার মা তাকে পিটিয়ে তক্তা বানাবে।

সফিক সাহেব বিষণ্ণ চিত্তে বাসায় গেলেন। তার স্ত্রী মাধবী তার মুখ দেখেই আন্দাজ করে ফেললেন কী যেন সমস্যা হয়েছে। তিনি স্বামীকে প্রশ্ন করলেন, ওগো কী হয়েছে তোমার!

সফিক সাহেব স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরে ফোঁপাতে ফোঁপাতে বললেন—

‘মাধবী, কী ছিল গো ভুল?

হারিয়ে গেল জীবনেরই কুল।‘

 

 

৫৮৯ পঠিত ... ১৮:২৭, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top