সবার জন্য ডাক্তারদের সচেতনতামূলক গান 'নেভার গুগল ইয়োর সিনড্রোম'

১০ পঠিত ... ২১:১৫, আগস্ট ২২, ২০১৯

হালের ফ্যাশন হচ্ছে, কারো কাছে কিছু জানতে চাইলেই তারা আপনাকে বলবে 'গুগল করে নে'। শুরুতে হয়ত আপনি গুগল করে পলাশির যুদ্ধের সাল তারিখ কিংবা মঙ্গোলিয়ার আয়তন জেনে নিতে পারলেন নির্ভুলভাবে, তবে এরপর অন্যরকম এক সমস্যা উপস্থিত হতে পারে। গুগলের প্রতি দিনকে দিন বাড়তে থাকা নির্ভরতার ফলে আমরা অনেকেই এখন সাধারণ শারীরিক অসুস্থতার উপসর্গ দেখা দিলেই গুগল করে ফেলি এবং বিপত্তিটা ঘটতে পারে সেখান থেকেই। আর সেই বিপত্তি নিয়েই সবাইকে সতর্ক করে দিতে সুইডিস চিকিৎসক হেনরিক উইডিগ্রেন গেয়েছেন এক চমৎকার গান ‘নেভার গুগল ইয়োর সিম্পটম্পস’!

ধরুন, একদিন আচমকা আপনি প্রবল জ্বরে আক্রান্ত হলেন। সেদিনও অভ্যাসবশত আপনি পিসি বা স্মার্টফোনের ব্রাউজার ওপেন করে গুগলকে জিজ্ঞাসা করলেন, ‘I have severe fever and red rash on my body what should I do?’ গুগল তখন আপনাকে একগাদা ওয়েবসাইটের ঠিকানা দেবে। যেসব সাইটের এক একটায় আপনি ঢুকবেন আর ক্ষণে ক্ষণে নতুন রোগের দুর্ভাবনা আপনার মাথায় উঁকি দিতে থাকবে। কখনো মনে হবে আপনার ইবোলা হয়েছে তো কখনো নিউমোনিয়া। এমন করে দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়ে হয়ত ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনেও খাবেন। কিংবা উদ্ভ্রান্ত হয়ে ছুটে যাবেন ডাক্তারের কাছে এবং গিয়ে শুনবেন আপনি সাধারণ ভাইরাল ফিভারে আক্রান্ত।

দুনিয়াব্যাপী অসুখের উপসর্গ গুগল করে ভুল চিকিৎসায় পড়া, নিজে থেকে ওষুধ কিনে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হবার ব্যাপারটি কম হয় না। এছাড়া দুশ্চিন্তাগ্রস্থ হয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ার ঘটনাও আকছার ঘটে। আর তাই, এমনটা যাতে না ঘটে সেজন্য হেনরিক উইডিগ্রেনের নেতৃত্বে একদল ডাক্তার ‘নেভার গুগল ইয়োর সিম্পটম্পস’ গানটি বানিয়েছেন। গানটিতে বলা হয়েছে, কেন রোগের উপসর্গ গুগল করা উচিত না এবং করলে সেটির ফলাফল কেমন হতে পারে। 

শুনে ফেলুন গানটি, আর এরপর থেকে কোন শারীরিক সংকটে গুগলের আগে একজন ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন। 

 

 

১০ পঠিত ... ২১:১৫, আগস্ট ২২, ২০১৯

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top