ডেইজি আপার সাহায্য চান ৩১ বছর বয়সী অবিবাহিত যুবক-যুবতীরা

২৭০৫ পঠিত ... ২৩:০৩, জানুয়ারি ২১, ২০২০

আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৩১ নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর পদপ্রার্থী হয়েছেন ডেইজী সারোয়ার। অন্য সব প্রার্থীর মতো তিনিও সরব নির্বাচনী প্রচারণায়। তবে ডেইজী সারোয়ারের নির্বাচনী প্রচারণায় বিশেষ নজর কেড়েছে একটি র‍্যাপ গান। ‘ডেইজী আপার সালাম নিন, লাটিম মার্কায় ভোট দিন’ নামের র‍্যাপ গানটি পেয়েছে বিশেষ জনপ্রিয়তা। অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইনও ছেয়ে গেছে।

অনেককেই দেখা গেছে গুনগুন করে গানটি গাইতে। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেককেই জানাতে দেখা গেছে যে, গানটি মাথায় ঢুকে গিয়ে আর বেরই হতে চাচ্ছে না। পরীক্ষার হল থেকে শুরু করে আবেগঘন মুহূর্ত, বিভিন্ন জটিল সময়েও মাথায় ঘুরপাক খেয়ে চলেছে ‘ডেইজী আপার দুই নয়ন, একত্রিশের উন্নয়ন!’ অনেকের মতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনী আমলে মানিক ভাইয়ের নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যবহৃত ‘দিস ইলেকশন ইজ ভেরি ইম্পরট্যান্ট ইলেকশন! সো গাইজ, বি কেয়ারফুল!’ গানটির জনপ্রিয়তাকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে ডেইজী আপার এই গান। 

৩১ নং ওয়ার্ড মূলত মোহাম্মদপুরের আসাদ এভিনিউ, তাজমহল রোড, নূরজাহান রোড, কাজী নজরুল ইসলাম রোড, সলিমুল্লাহ রোড ও সংলগ্ন এলাকা নিয়ে গঠিত। কিন্তু রয়্যাল ম্যাস ও গালিবুর রহমানের লেখা এবং কিউপিডের গাওয়া এই র‍্যাপ গানটি আপামর জনসাধারণকে এতটাই বিমোহিত করেছে যে, অনেকেই ‘ডেইজী আপা’কে ভোট দেওয়ার জন্য ৩১ নং ওয়ার্ডে পর্যন্ত আসতে চেয়েছেন। সুদূর মিরপুরবাসী এক তরুণ বলেন, ‘সম্ভব হলে ডেইজী আপাকে ভোট দেওয়ার জন্য আমি ঐতিহ্যবাহী মিরপুর ছেড়ে দিতেও রাজি আছি।’ অল্পের জন্য ৩১ নং ওয়ার্ডের সীমানার বাইরে বসবাসকারী অন্য এক তরুণী আফসোস প্রকাশ করে বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন কি পারে না, সীমানাটা একটু বাড়িয়ে দিতে? আর কখনোই কিছু চাওয়ার ছিল না আমার!’

তবে অন্যদিকে ৩১ বছর বয়সী অবিবাহিত তরুণ তরুণীর মাঝে গানটি সৃষ্টি করেছে ব্যতিক্রমী এক চাঞ্চল্য। এই বয়সী তরুণদের অনেকেই ভাবছেন, ডেইজী সারোয়ার আদতে তাদের উন্নয়নকেই গুরুত্ব দিবেন। এমনই এক তরুণ বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, নির্বাচনে জয়যুক্ত হলে আমার মতো আরও যে ভাইবোনেরা এখনো অবিবাহিত, তাদের একটা হিল্লে হবে। বিবাববন্ধনে আবদ্ধ হবার মাধ্যমে আমাদের জীবনে উন্নয়ন নেমে আসবে।’

অনেকটাই এমন প্রতিধ্বনি শোনা গেছে আরেক তরুণীর কণ্ঠেও। তিনি eআরকিকে বলেন, ‘মানুষ কখনো একা উন্নয়ন করতে পারে না। নজরুল সেই কবে বলে গেছেন ‘অর্ধেক তার করিয়াছে নারী অর্ধেক তার নর!’ অর্থাৎ, সঙ্গী ছাড়া আমরা কেবল অর্ধেক উন্নয়নই করতে পারব। কেবলমাত্র বিয়ের মাধ্যমেই পূর্ণ উন্নয়নের জোয়ার ভোগ করা সম্ভব!’

তবে কিছু পারভার্ট লোকজন ‘৩১ এর উন্নয়ন’ কথাটিকে একটু অন্যভাবে নিয়ে ডেইজী আপার কাছে বেশ কিছু ব্যতিক্রমধর্মী দাবিও জানিয়েছেন। পারভার্ট পাঠকরা নিজ দায়িত্বে বুঝে নিবেন, বাকিদের বোঝার দরকার নাই।

২৭০৫ পঠিত ... ২৩:০৩, জানুয়ারি ২১, ২০২০

Top