যে ১০টি গুরুত্বপূর্ণ কারণে নিয়মিত গোসল করবেন না

১০৬৩ পঠিত ... ১৭:৫৪, ডিসেম্বর ২২, ২০১৯

চলছে শীতের সো**! গোসল করা এখন কারো কাছে স্বপ্ন, কারো কাছে দুঃস্বপ্ন! ফেসবুকের হোমপেজে ঢুকলেই দেখবেন, এই শীতে গোসলের প্রতি যুবসমাজের কি তীব্র অনীহা! আপনিও যদি এই 'গোসল করব না' দলের একজন হন, তাহলে এই লেখাটি আপনারই জন্য! দেখুন, গোসল না করে দেশ ও জাতির কেমন উপকার করা সম্ভব! বাংলাদেশ অনিয়মিত গোসল পার্টি (BIBP) এর পক্ষে গোসল না করার ১০টি শক্ত যুক্তি উপস্থাপন করেছেন রাজীব দেবনাথ


১# গোসল করতে অনেক টাইম লাগে। আপনের অত টাইম কই? আপনি কি অন্যদের মতো আজাইরা?

২# গোসল করতে গেলে সাবান-শ্যাম্পুও লাগে। আর সাবান শ্যাম্পুর অধিকাংশই হইল বিদেশি কোম্পানি। নিজের দেশের টাকা-পয়সা এইভাবে বিদেশি কোম্পানির পকেটে চলে যাচ্ছে, একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আপনি এগুলো কিভাবে সহ্য করবেন? তাই নীরব প্রতিবাদ হিসেবে আপনার উচিত কয়েকদিন পর পর গোসল করা, যাতে অন্তত আপনাকে এইসব বিদেশি সাবান-শ্যাম্পু বেশি ব্যবহার করতে না হয়।

৩# গোসল করতে অনেক পানি লাগে। তাও আবার পরিষ্কার পানি। অথচ জানেনই তো, সারা বিশ্বে পরিষ্কার পানির কত অভাব! তাই নিয়মিত গোসল না করে পানি অপচয় রোধ করার চেষ্টা করুন। এই ক্ষুদ্র জীবনে পৃথিবীর জন্য কিছু রেখে যাওয়া, মানুষের একটু উপকার করার চেষ্টা আর কি...

৪# গোসল করতে যে পানি লাগে তা ওয়াটার পাম্প দিয়ে উঠাতে হয়। সেই পাম্প চালাতে বিদুৎ লাগে। তার মানে অনিয়মিত গোসল করার মাধ্যমে আপনি বিদ্যুৎ খরচও কমাচ্ছেন।

৫# গোসল করার জন্য পানি তুলতে ওয়াটার পাম্প চালালে বিকট শব্দ হয়। তার মানে আপনার অনিয়মিত গোসল পরোক্ষভাবে শব্দ দূষণ কমাতেও সাহায্য করছে।

৬# শীতে গোসল শেষ হওয়ার পর রোদ পোহাতে হয়। কিন্তু এখন তো রোদ উঠে না, সূর্য ঘুমায়। তাই গ্যাসের চুলাই ভরসা। তার মানে নিয়মিত গোসল না করলে আপনি গ্যাসের মতো জাতীয় সম্পদ রক্ষায়ও ভূমিকা রাখতারবেন।

৭# গোসল শেষে তেল, লোশন, স্নো ইত্যাদি ব্যবহার করতে হয়। অতএব বুঝাই যাচ্ছে, কয়েকদিন পর পর গোসল করার মাধ্যমে আপনি কী পরিমাণ অর্থ অপচয় রোধ করতে পারেন!

৮# গোসল করতে গেলেই কাপড় চোপড় ধুতে হয়। সেখানে সাবান সোডা লাগে। এছাড়া যে কাপড় পরে গোসল করবেন (এই শীতে কি কাপড় খুলে গোসল করা যায় বলুন?) সেগুলো ভেজানোর ফলে সেগুলোর আয়ুষ্কালও কমে। তাহলে গোসল না করে আপনি সাবান-সোডা এবং কাপড়-চোপড় উভয়ই রক্ষা করছেন, এক ঢিলে দুই পাখি মারা আর কি।

৯# গোসল না করার ফলে এই শীতের দিনেও আপনাকে বডিস্প্রে ব্যবহার করতে হবে। তার মানে বলা যায় যে সুগন্ধি শিল্পের অগ্রগতিতেও আপনার অনিয়মিত গোসল নীরবে নীরব ভূমিকা রেখে যাচ্ছে...

১০# এছাড়া আপনি গোসল করলে বাথরুমের লাইট জ্বালিয়ে করতেন, সেখানে বিদুৎ অপচয় হতো। তারপর বুড়োদের মতো ঠকঠকিয়ে কাঁপতেন আর ষাঁড়ের মতো চিল্লাচিল্লি করে গান গাইতেন, সেজন্য শব্দ দূষণ হতো। তার মানে আবারও আপনি বিদুৎ অপচয় রোধ করছেন এবং একইসাথে শব্দ দূষণ কমাতেও ভূমিকা রাখছেন।

এবার বলেন, করবেন আর গোসল?

১০৬৩ পঠিত ... ১৭:৫৪, ডিসেম্বর ২২, ২০১৯

Top