ইংল্যান্ড-ব্রাজিলের মধ্যে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ আয়োজনের দাবি

৩৯৬ পঠিত ... ১৩:২০, জুলাই ১২, ২০২১

England-brazil

কপাল দোষে ফুটবলের দুই পরাশক্তি ব্রাজিল ও ইংল্যান্ড (দ্বিতীয়টা পরাশক্তি কিনা সেই তর্ক তুইলেন না) দুই দলই দুটি বৈশ্বিক টুর্নামেন্টের ফাইনাল হেরে গেছে। হেরে গেলেও তাদের ফুটবল সক্ষমতা নিয়ে যেন কোন প্রশ্ন না ওঠে সেজন্য দুই প্রান্তের এই দুই রানারআপ দল নিয়ে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী একটি ম্যাচ আয়োজন করার দাবি জানিয়েছেন ব্রাজিল ও ইংল্যান্ড সমর্থকরা।

যদিও 'এই খেলা কে দেখবে' বলে অন্য একদল ফুটবল সমর্থক আগে থেকেই মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তবে এই ম্যাচটি আদতে বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালের সমপরিমাণ মর্যাদা বহন করে বলেও মত দিয়েছেন অনেকে।

ইংল্যান্ড ও ব্রাজিল দুদলই প্রতি বিশ্বকাপেই ট্রফির অন্যতম দাবিদার হিসেবে পরিচিত। ব্রিটিশদের 'ইটস কামিং হোম' স্লোগান থেকে বোঝা যায়, ফুটবলের কাপ গুলো এককালে ইংল্যান্ডেরই ছিলো। হয় কাপগুলো চুরি হয়ে গিয়েছে কিংবা কোন কুচক্রি থাবার রাগ করে কাপ ইংল্যান্ড থেকে পালিয়ে গিয়েছে। সুতরাং কাপ ইংল্যান্ডের দরকার। অপরদিকে জার্সিতে বেজোড় তারকা নিয়ে পড়ে পড়ে থাকা ব্রাজিলেরও হেক্সার জন্য দরকার একটা বিশ্বকাপ।

এমন নানাবিধ যুক্তিতে ম্যাচটির আয়োজন ফুটবল বিশ্বের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ম্যাচটির পক্ষে নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে ইংল্যান্ডও। এই উদ্যোগকে মহৎ ও আধুনিক বিশ্বের অন্যতম বিচক্ষণ সিদ্ধান্ত আখ্যা দিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেন, 'জিতুম না জিতুম ওইটা পরে। খেলাটা হইলে অন্তত আরো কয়েকটা দিন 'ইটস কামিং হোম' কইয়া জিকির করতে পারুম।'

তবে এই খেলা নিয়ে ব্রাজিলের খুব একটা আগ্রহ দেখা যায়নি। দলটির ম্যানেজার জানান, 'ফাইনাল শেষে ছেলেরা টিকটক করতে পলাশীর মোড়ে চইলা গেছে। ওখান থেকে জিয়া উদ্যানে যাবে। এখন সময় নেই আমাদের।'

এদিকে খেলাটির পক্ষে নিজেদের শক্ত অবস্থান জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আপামর ফুটবল সমর্থকরা। তারা বলেন, 'খেলা হোক। আমরা ব্রাজিলের
পক্ষে আছি। সিলেট এবার শেষ।'

৩৯৬ পঠিত ... ১৩:২০, জুলাই ১২, ২০২১

Top