রাফসান সাবাবের ডিভোর্স থেকে আমরা যে শিক্ষা পেলাম

৮৬৪ পঠিত ... ১৭:৩১, নভেম্বর ১৪, ২০২৩

7

প্রতিটি ঘটনাই তা যতই ছোট বা বড় হোক না কেনো আমাদের কিছু না কিছু শিক্ষা দেয়। আর শিক্ষক হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ার কোনো জুড়ি নেই। সম্প্রতি 'What a Show' অনুষ্ঠানের উপস্থাপক রাফসান সাবাবের ডিভোর্স নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে ছোটোখাটো ঝড় উঠেছে। চলুন দেখা যাক এ ঘটনা থেকে আমরা আপাতত কী শিক্ষা পেয়েছি...

 

১. যদি ইনফ্লুয়েন্সার কিংবা সেলিব্রিটি হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি প্রেম, বিয়ে, সন্তান নেওয়া, ডিভোর্স ইত্যাদি যেকোনো ইভেন্টের আগে সাধারণ ফেসবুকারদের কাছ থেকে মতামত নেবেন। তারা যেটা যেভাবে বলবে, ঠিক সেভাবেই করবেন। বিয়ে শাদীর আগে বউ কী রঙের শাড়ি পরবে, জামাই পাঞ্জাবি পড়বে না শেরওয়ানি পরবে, কার কাছে সাজবেক, ফটোগ্রাফার হিসেবে কে আসবে ইত্যাদি যে কোনো জিজ্ঞাসায় স্ট্যাটাস দিয়ে তাদের ভ্যালিডেশন নিবেন। ডিভোর্সের আগেও ঠিক একই পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। আপনি যেহেতু একজন ইনফ্লুয়েন্সার বা সেলিব্রিটি, আপনার ব্যক্তিগত জীবনে নাক গলানোর সম্পূর্ণ অধিকার তাদের আছে।

 

২. সোশ্যাল মিডিয়াতে মানুষের করা যেকোনো কমেন্ট প্রমাণ ছাড়াই বিশ্বাস করবেন। কেউ যদি কমেন্টে বলে আপনার দশ বছর আগে মারা যাওয়া খালুকে এই মাত্র দেখে এসেছেন বাজারের মোড়ে চা খাচ্ছেন আর রাজনৈতিক আলাপ করছেন—প্লিজ বিশ্বাস করুন। আর বিষয়টি যদি অন্য কারও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে হয় তাহলে সেটি অবশ্যই বিশ্বাস করবেন।

 

৩. সম্পর্কে চিট বা প্রতারণা করা অত্যন্ত হীন একটি কাজ৷ রাফসান সাবাব তার স্ত্রীর সঙ্গে প্রতারণা করেছেন কি-না, কিংবা করলেও কার সাথে করেছেন এ ব্যাপারে কনক্রিট কোনো প্রমাণ না থাকলেও আপাতদৃষ্টিতে সোশ্যাল মিডিয়া অ্যানালাইজ করে জানা গেলো যে, মূল সমস্যা রাফসানের গায়ের রঙে। রাফসান যদি ফর্সা হতেন, তাহলে তার স্ত্রীর সাথে চিট (যদি সত্যিই করে থাকেন) কোনোওভাবে মেনে নিতো ফেসবুক নেটিজেনরা। যেহেতু তার গায়ের রঙ কালো, তার কাছ থেকে কোনোভাবেই এটি মেনে নেওয়া যাবে না।

 

৪. শেষমেষ চলে এসেছি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং কোর পয়েন্টে। জার্মান দার্শনিক হেগেল বলেছিলেন, ইতিহাসের শিক্ষা এই যে, ‘ইতিহাস থেকে কেউ শিক্ষা নেয় না।‘ আপনি যদি মনে মনে আপনার রোমান্টিক /বৈবাহিক সম্পর্ক থেকে সরে যেতে চান কিংবা আলাদা হয়ে যেতে চান এবং আপনার গায়ের রঙ যদি কালো হয়ব, ভুলে যাবেন না আপনি অত্যন্ত রিস্ক জোনে অবস্থান করছেন। আপনার প্ল্যান বাস্তবায়ন করার এক বছর আগে থেকে মুখ ফর্সাকারী ক্রিম ব্যবহার শুরু করুন। অন্যথায়, আপনি ডিভোর্স/ সেপারেশন/ ব্রেকাপের জন্য পাবলিক সমর্থন নাও পেতে পারেন!

৮৬৪ পঠিত ... ১৭:৩১, নভেম্বর ১৪, ২০২৩

Top