চুল কাটলেই মেয়েদের জীবনের যে ৮টি সমস্যার সমাধান হয়ে যায়

৩৩৫১ পঠিত ... ১৯:৩২, মার্চ ২০, ২০২১

অনেক মেয়েরাই বিশ্বাস করেন, যেকোনো ধরনের ‘প্যারায়’ পড়লে চুল কেটে ফেললেই তা ঠিক হয়ে যায়। তবে এই ধারণা একেবারে ভুল নয়। আমাদের কিছু গবেষক তার আজাইরা গবেষণায় খুঁজে পেয়েছেন কিছু সত্যতা। আপনিও জেনে নিন, চুল কেটে ফেললে জীবনের ঠিক কী কী সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে পারেন মেয়েরা।

chul somossa girls

১# প্রেমিকের সাথে ঝগড়া মিটমাট হয়

ঝগড়ার পর আপনার মন দুঃখ ভারাক্রান্ত? আপনার দীঘল কালো চুলের প্রেমে পড়া প্রেমিককে উচিত শিক্ষা দিতে চুলের যেকোনো প্রান্ত ধরে দুই ইঞ্চি কেটে ফেলুন। দেখবেন কাচির এক আওয়াজেই প্রেম ঠিক হয়ে গেছে। প্রেমে বিপর্যয় এলে কোনো সিরিয়াস কথা বলা ছাড়াই কাচির এক আওয়াজে সব ঠিক করার ইনস্ট্যান্ট এই সমাধান সবসময় জনপ্রিয়। 

 

২# ব্রেকাপের দুঃখ ভুলে যাওয়া যায়

সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর তাকে ভুলতে না পারার শোকে কেঁদে কেঁদে চোখের নিচে কালি পড়ে যাচ্ছে? সিস্টার, এক্ষুনি চোখের পানি মুছুন আর হাতে কাস্তে, থুক্কু কাচি ধরুন। আর চুলের মাঝে কাচি ঘুরিয়ে নিজেকে বলুন, 'I am over that guy'। দেখবেন একদম নিমিষের মাঝে চুলের মত প্রাক্তনকে মন থেকেও কেটে ফেলতে পেরেছেন। 

 

৩# চাকরি চলে যাওয়ার হতাশা কমে যায়

চাকরি চলে গেছে, কিংবা বিশেষ (পড়ুন ছাগল) গোত্রের বস ও কলিগদের যন্ত্রণায় নিজেই চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন? এই বেকার জীবন নিয়ে কী করবেন ভাবতে ভাবতে হাতের দুই আঙুলের মাঝে কাচি আবিষ্কার করলেন? তবে আর শুভ কাজে দেরি কেন? কাজটা সেরে ফেলুন! চুল কাটার সাথে সাথেই দেখবেন আপনার ইনবক্স চাকরির অফারের মেইল এসে ভর্তি হয়ে যাচ্ছে।

 

৪# একঘেয়েমি চলে যায়

বেশিরভাগ মেয়েরাই চুল কাটার পর ইন্সটাগ্রামে ক্যাপশনের মাধ্যমে জানিয়েছেন, নিউ লাইফ নিউ বিগিনিং। অর্থাৎ তারা জীবনে নতুনত্ব খুঁজে পেয়েছেন। এর মানে জীবনের বিভিন্ন একঘেয়েমি ব্যাপার দেখবেন চুল কাটলেই উড়ে চলে যাচ্ছে। 

 

৫# আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি দূর হয়

পরিসংখ্যান মতে, চুলে কাচি লাগাতেই ৫৫% মেয়ের আত্মবিশ্বাস সাই সাই করে ফিরে এসেছে। তাই নিজের ওপর বিশ্বাস না থাকলেও, ধার থাকুক আর না থাকুক, ঘরের কিংবা রান্নাঘরের কাঁচিটাকে অন্তত বিশ্বাস করুন। নতুন হেয়ারকাটে খুঁজে পেলেও পেতে পারেন নতুন আত্মবিশ্বাস। 

 

৬# জীবনের ওপর হারানো নিয়ন্ত্রণ ফিরে আসে

অদ্ভুত জীবনের মোড়ে মোড়ে কিম্ভূত সব ঘটনা ঘটতে দেখে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন? এক্ষুনি কাঁচি ধরুন, আর ঘ্যাচাং! জীবনের সবকিছু নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলেও চুলগুলো তো আপনার নিয়ন্ত্রণে আছে! এর থেকে বড় তৃপ্তি আর হয় না! 

 

৭# বোরিং জীবন ইন্টারেস্টিং হয়ে যায়

দিনরাত ইন্টারনেটে নানা হেয়ারকাট ভিডিও দেখে দেখে আমি যা ভাবি আপনিও কী তাই ভাবেন? তবে আর দেরি কেন? কাঁচিটা খুঁজুন, ধরুন, আর...। কাঁচির প্রতিটি ঘ্যাচাং শব্দও যে এমন বিরাট 'ইন্টারেস্টিং' হতে পারে তা কী আগে কখনও ভেবেছিলেন?

 

৮# ডিপ্রেশন উধাও হয়ে যায় 

এক গবেষণা থেকে জানা গেছে, চুলে ব্যাংস কাট দেওয়ায় ৩০.৫% মেয়ের ডিপ্রেশন উড়ে গেছে। জীবনের বিষাদ ভুলে তারা হয়ে উঠেছে প্রাণবন্ত। অনেক গবেষকরা এটাও ধারণা করছেন, ডিপ্রেশন জিনিসটা আসলে চুলের আগায় জমা হয়। ঘ্যাচ করে চুল কাটলেই গেলোগা।

 

তবে হ্যাঁ, চুল কাটতে কাটতে মাথায় আর চুল অবশিষ্ট না থাকলে তখন সমস্যাগুলো নিয়ে ভাবতে পারেন কিন্তু! মুড সুইং আর লাইফ ক্রাইসিসের জন্যে চুলকে শাস্তি দেওয়ার পাশাপাশি সাহায্যের খোঁজও করতে পারেন। সমস্যার সমাধান করতে নিতে পারেন কাছের মানুষের উপদেশ। তবে চুল কাটলে যদি জীবনে সত্যিই নতুনত্ব খুঁজে পান, তাহলে ক্ষতি কী!

৩৩৫১ পঠিত ... ১৯:৩২, মার্চ ২০, ২০২১

Top