বাংলাদেশি বংশদ্ভূত ফাহমিদা আজিমের পুলিৎজার পাওয়ার পেছনের গল্প

৩৬১ পঠিত ... ১৮:০২, আগস্ট ২৩, ২০২২

Fahmida-azim

বাংলাদেশি বংশদ্ভূত মার্কিন কমিক আর্টিস্ট ফাহমিদা আজমি পেয়েছেন সাংবাদিকতার ও লেখার জগতের সবচেয়ে বড় সম্মাননা পুরস্কার পুলিৎজার। একে সাংবাদিকতার নোবেলও বলা হয়ে থাকে। শিরোনামে যদিও বলা হয়েছে ‘বাংলাদেশি বংশদ্ভূত ফাহমিদা আজিমের পুলিৎজার পাওয়ার পেছনের গল্প’বলা হবে, আদতে কিন্তু তা মোটেও ঠুনকো গল্প নয়। বরং শিহরিত করা এক অসম্ভব ভয়ানক বাস্তব, সত্য কাহিনী।

ইনসাইডার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ‘হাউ আই এসকেপড আ চায়নিজ ইন্টারমেন্ট ক্যাম্প’(যেভাবে আমি একটি চীনা বন্দিশিবির থেকে পালিয়ে এসেছি) শিরোনামের ইলাস্ট্রেটেড রিপোর্ট অলঙ্করণের জন্য ফাহমিদা এ পুরস্কার পান। চীনের মুসলিম জাতি উইঘু্রের এক সাধারণ নারী জুমরাত দাউয়ুত। ঘুরতে ভালোবাসা জুমরাত বর্ণনা করেন কীভাবে তার শহর হয়ে ওঠে এক পুলিশের শহর। কীভাবে তাদের প্রতিটি কাজ, কথা খুঁটিয়ে দেখতে শুরু করে চাইনিজ কর্তৃপক্ষ। তাদের বিরুদ্ধে নেওয়া হয় অ্যান্টি-মুসলিম নানা অ্যাকশন। চাইনিজ কর্তৃপক্ষ তাদের বাধ্য করে প্রত্যেকের ফোনে একটি অ্যাপ ইনস্টল করতে। বাড়িতে ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে কোনো কথা হলেই পুলিশ তাদের ফোন করে এ বিষয়ে জবাবদিহি চাইতো।

তবে এখানেই জুমরাতের কষ্টের শেষ নয়, বরং শুরু। ২০১৮ সালে তাকে কোনো কারণ ছাড়া আটক করা হয় এবং পাঠিয়ে দেওয়া হয় ডিটেনশন সেন্টারে। উইঘুর নারীদের জন্য তৈরি সে ডিটেনশন সেন্টারে তাদের ওপরে চলতো অসহ্য নির্যাতন। এমনকি অত্যাচার চলাকালীন জুমরাত তা সহ্য করতে না পেরে মুখে নিয়েছিলেন তার ‘আল্লাহ’র নাম, যার ফলে তাকে হতে হয়েছিল আরো অত্যাচারের শিকার। সেই ডিটেনশন সেন্টারে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের পর ছাড়া পেয়েও আবার তাকে আটক করা হয়। জুমরাতের দোষ: তার সন্তানের সংখ্যা ২ এর বেশি। তাই তার অনুমতি ছাড়াই অপারেশন করে জুমরাতকে বন্ধ্যা করে দেয়া হয়।

সেই বন্দীশালা থেকে জুমরাত দাউয়ুত এর পালানোর সত্য ঘটনা নিয়ে সচিত্র রিপোর্ট করেছেন ফাহমিদা আজিম। তার সঙ্গে পুলিৎজার পুরস্কারের ভাগিদার হয়েছেন সাংবাদিক অ্যান্থনি ডেল কল, আর্ট ডাইরেক্টর জশ অ্যাডামস ও এডিটর ওয়াল্ট হিকি।

 

যে রিপোর্টের ছবি আকার জন্য এই পুরষ্কার পেলেন ফাহমিদা আজমি, তা দেখে নিতে পারেন এখানে।

 

ফাহমিদা আজিমের ওয়েবসাইট।

 

৩৬১ পঠিত ... ১৮:০২, আগস্ট ২৩, ২০২২

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top