একটি সফল বিদেশ ভ্রমণ কীভাবে করবেন?

৫৮৩ পঠিত ... ১৭:২০, জুলাই ১৮, ২০২২

Sofol-bdesh-vromon

বিদেশ ভ্রমণ নিঃসন্দেহে আমাদের একঘেয়ে নাগরিক জীবনে একটুকরো আনন্দের ব্যাপার। তবে দুঃখজনক হলেও এটি খুবই সত্যি যে, অধিকাংশ লোকই বিদেশ ভ্রমণের সময় যথাযথ নিয়ম মেনে ছবি আপলোড দিতে না পারায় তাদের ভ্রমণটা সহীহ হয় না। এ ব্যাপারে আমরা একটি যথাযথ গাইডলাইন দেবার চেষ্টা করছি।

প্রথমেই আপনাকে যেটা করতে হবে তা হলো, বাসা থেকে বের হয়ে গ্যারেজে দাঁড়িয়ে লাগেজের সাথে একটা সুন্দর ছবি তুলে টুক করে ফেসবুকে দিয়ে দিতে হবে। এটা টিজার। কোন ক্যাপশন দেবার দরকার নাই। থাকুক না জীবনে খানিকটা রহস্য।

এরপর যেটা করতে হবে, এয়ারপোর্টে পৌঁছে বোর্ডিং কার্ডটি সংগ্রহ করে পাসপোর্টের চিপার মধ্যে রেখে হাত দিয়ে ধরে ফোকাস ঠিক করে একটা ছবি তুলতে হবে। মনে রাখবেন, এই ছবিটি কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার যদি অ্যাকসেস থাকে তবে ভিআইপি লাউঞ্জে বসে ছবিটা তুললে সবচেয়ে ভালো। এতে আপনার সামাজিক মর্যাদা অনেকখানি বেড়ে যাবে।

তারপর আপনাকে ক্যান্টিন থেকে একটা কফি নিয়ে সোজা দোতলায় চলে যেতে হবে। ওখানে ব্যাকগ্রাউন্ডে প্লেন আর হাতে কফি নিয়ে কিছু ক্যান্ডিড ছবি তুলে নগদে আপলোড দিয়ে দিতে হবে। ক্যাপশনে লিখতে পারেন, ‘Malaysia calling.’

ছবি তোলা শেষ হতে হতেই আপনার ফ্লাইটের ডাক এসে পড়বে। ইমিগ্রেশন পার হয়ে আপনাকে প্লেনের কাছে যেতে হবে। আপনার ভাগ্য খারাপ হলে ডিরেক্ট প্লেনে উঠে পড়া লাগবে। সেক্ষেত্রে কিছু করার নাই। আর ভাগ্য ভালো হলে, আপনাকে বাসে করে প্লেনের কাছে নিয়ে যাওয়া হবে। তখন আপনাকে বাসে উঠেই সুবিধাজনক একটা সিট বেছে নিয়ে বসে অনেকগুলো সেলফি নিয়ে নিয়ে রাখা লাগবে। তবে এখুনি আপলোড করবেন না। বাস থেকে নেমে ভিড় বেড়ে যাবার আগেই আপনাকে প্লেনের কাছে চলে যেতে হবে।  এরপর, প্লেনের সামনে, দুই ইঞ্জিনের পাখার সামনে, ডানায় হাত রেখে, লেজের নিচে দাঁড়িয়ে যত অ্যাংগেলে পারা যায় অনেকগুলো ছবি তুলে নিতে হবে। যতক্ষণ না প্লেনের দায়িত্বরত কেউ এসে আপনাকে না থামাবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত ছবি তুলে যেতে হবে। প্লেনে উঠে আরাম করে বসে ছবি বাছাই এবং টুকটাক এডিট করে দ্রুত আপলোড করে দিতে হবে।  

এরপরই আপনাকে তুলে ফেলতে হবে সবচেয়ে ম্যান্ডাটরি ছবিটা। যে ছবিটা না তুললে আপনার বিদেশ ভ্রমণের কোন মূল্যই থাকবে না। আপনার সিট যদি জানালার পাশে হয়, তবে তো সোনায় সোহাগা! পটাপট ছবি তুলতে থাকবেন। সিট আইলের পাশে হলেও অসুবিধা নাই। পাশের লোককে একটু রিকুয়েস্ট করে বললে তিনি মিনিট দশেকের জন্য সিট ছাড়তে আপত্তি করবেন না। বিনিময়ে হয়তো উনারও কিছু ক্যান্ডিড ছবি তুলে দেয়া লাগতে পারে। আপলোড করার সময়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে এই ছবিটির সাথে কাব্যিক কোন ক্যাপশন লাগবে। জালালুদ্দিন রুমী অথবা কাহলিল জিবরান এর কোন আধ্যাত্মিক উক্তি হলে ভালো হয়।

এসময় প্লেনের জানালা দিয়ে মেঘ ভেসে যাবার কোন ভিডিও পাওয়া গেলে তো ব্যাপারটা পুরাই জমে ক্ষীর।

তারপর একটু বিশ্রাম নিন। এরমধ্যে খাবার সার্ভ করে দেবার কথা। খাবার দামী হলে কয়েকটা ছবি তুলে Delicious লিখে আপলোড দিতে পারে। আর যদি শুধু কেক আর পানি দেয়, তবে ছবি তোলার প্রয়োজন নাই।  

আপনার যদি লং ফ্লাইট হয়ে থাকে, তবে কোন একটা দেশে ট্র‍্যানজিট দেবার কথা। ধরুন যদি সিংগাপুর বিরতি দেয়, তবে এয়ারপোর্টের ভিতরেই বেশকিছু ভালো ছবি তোলার স্পট পেয়ে যাবেন। ছবির সাথে at Singapore লিখে চেক ইন দিতে ভুলবেন না।

তারপর আপাতত একটু পজ দেবেন। কারণ আপনার ফ্রেন্ডলিস্টের অনেকেরই তখন জ্বলছে। সেই জুলুনির প্রভাব কিছুটা আপনার প্রোফাইলে পড়া শুরু হয়েছে। খেয়াল করলে দেখবেন ইতোমধ্যে লাইক কমেন্ট কমতে শুরু করেছে। তাই এখন আর কিছু না দেয়াই ভালো।

আপনার গন্তব্য আর বেশী দূরে নেই। এখন আপনি যেটা করতে পারেন, তা হলো প্লেন যখন ল্যান্ডিং এর প্রস্তুতি নিচ্ছে আপনার মোবাইল  অন করে ভিডিও করতে থাকুন। প্লেন থেকে নামার পর ফরমালিটিজ সেরে বের হবার সময় কনভেয়র বেল্টে আপনার লাগেজ রেখে একটা ছবি তুলে নেন। তারপর হোটেলে ঢুকে লবি এবং আশেপাশে কিছু ছবি তুলে  রুমে যান। ফ্রেশ হয়ে বিছানায় শুয়ে ভিক্টরি দেখিয়ে ছবে তুলুন একটা। তারপর ভিডিও সহ সবগুলো ছবি Alhamdulillah Safely arrived লিখে আপলোড করে দিন।

ভাবছেন এখানেই ভ্রমণের দায়িত্ব শেষ? ব্রাদার, খেলা শুরু হলো মাত্র। বাকিটা আপনিই খেলে যাবেন, তবে সফল বিদেশ ট্যুরের স্টার্টিংটা কেমন হবে, সেটার একটা গাইডলাইন আপনাকে ধরিয়ে দিলাম মাত্র।

থ্যাংক মি লেটার।

৫৮৩ পঠিত ... ১৭:২০, জুলাই ১৮, ২০২২

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top