ঈদে বাড়িতে যাওয়ার সময় যে ৮টি জিনিস সঙ্গে নিতে ভুলবেন না

২৩১ পঠিত ... ১৯:৪৩, আগস্ট ০৬, ২০১৯

চলে এসেছে বছরের দ্বিতীয় ঈদ। শুরু হয়ে গেছে বাড়ি ফেরার ঢল। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া যারা বাড়ি থেকে দূরে থাকেন, বাড়িতে ফেরার সময় কিছু জিনিস সঙ্গে করে না নিয়ে গেলে নানান বিপদে পড়তে পারেন। সেসব বিপদ থেকে আপনাকে রক্ষার জন্য আমরা তৈরি করেছি একটি গাইডলাইন। বাড়িতে যাওয়ার আগে চোখ বুলিয়ে নিন।

 

১# স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ডাক্তারি সার্টিফিকেট

আপনি আগে পাটকাঠি ছিলেন। এখন হয়তো খোদার খাসি। তবু বাড়িতে গিয়েই মা-বাবা এবং নিকটাত্মীয়দের 'বাবা তুই তো অনেক শুকিয়ে গেছিস' এই কমন ডায়লগ যে শুনবেনই, এ ব্যাপারে নিশ্চিত থাকুন। সেজন্য বাড়ি ফেরার আগেই তৈরি করে নিন একটি ডাক্তারি সার্টিফিকেট। যাতে আপনার আগেরবার বাড়িতে আসার সময়কার ওজন, এখনকার ওজন, স্বাস্থ্যগত অবস্থা সবকিছু লেখা থাকবে। কেউ 'তুই তো শুকিয়ে গেছিস' বলার সাথে সাথে সেই সার্টিফিকেট দেখিয়ে দিতে পারবেন।

 

২# 'প্রেম করেন না' এমন প্রত্যয়নপত্র

আপনি শহরে পড়ালেখা করতে এসেছেন। তবে গ্রাম/মফস্বলের বন্ধুদের ধারণা, শহরে শুধু প্রেম আর প্রেম। এদিকে প্রেম করা আর মুরগি পালার মধ্যে কোনটা বেটার, শহরে থেকে তা আপনি ভালোই টের পেয়েছেন। কিন্তু এ কথা কোনোভাবেই গ্রামের বন্ধুদের বিশ্বাস করাতে পারবেন না। তাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে একটা প্রত্যয়নপত্র নিয়ে যেতে পারেন। এমন হতে পারে- 'এই মর্মে প্রত্যয়ন করা যাচ্ছে যে, পড়ালেখা করতে করতে মি. কেরামত আলীর মাথার তার ছিঁড়ে গেছে। তিনি প্রেমের বাজারে বড়ই কাঙাল।'

 

৩# বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল পরিচয়পত্র

এ ব্যাপারে কোন হেলাফেলা নয়। বাড়িতে যাবেন। গুরুজনদের সাথে দেখা হবে। পান-চুন দিয়ে ঠোঁট লাল করে ফেলা শ্রদ্ধেয় মুরুব্বিরা জিজ্ঞেস করবে, (যারা একই প্রশ্ন আগেও হাজারবার করে ফেলেছেন) 'বাবা, তুমি যেন কোন কলেজে পড়? এবার ম্যাট্রিক দিলা না?' বছরের পর বছর তারা এই প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করতেই থাকবে। এতবার উত্তর দেয়ার চাইতে সাঁই করে ভার্সিটির পরিচয়পত্র দেখিয়ে দিবেন।

 

৪# বিসিএস সম্পর্কে সম্যক ধারণা

এ এক আজব দুনিয়া, যেখানেই যাবেন বিসিএস পাবেন। বাসে, ট্রেনে, প্লেনে-সব জায়গায় বিসিএস নিয়ে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে। আপনি যেহেতু শহরে থাকেন, বিসিএস তো একেবারে আপনার হাতে মুঠোয়! গ্রামের মুরুব্বি থেকে মাত্র জেএসসি পাস করা এলাকার ছোটভাই, সবার আপনার কাছে বিসিএসের সাজেশন চাইবে। সুতরাং ইজ্জত হারাতে না চাইলে বিসিএস জগত সম্পর্কে আগেই ধারণা নিন। বিসিএসের জগতে যত গাইড আছে সবগুলোর নাম মুখস্থ করুন। তারপর বাড়িতে যান।

 

৫# মেগাসিরিয়াল সার্টিফিকেট

আপনি যদি নিয়মিত বাংলা সিরিয়াল না দেখে থাকেন, তাহলে একটু খোঁজখবর নিয়ে যাবেন প্লিজ। আপনার এলাকায় কোন সিরিয়াল চলছে, কোন শো বেশি মানুষ দেখে, ক্লোজ কোনো এলাকার ফ্রেন্ডের কাছ থেকে তা জেনে নিয়ে সে সম্পর্কে কিছু জ্ঞান লাভ করুন। বাড়িতে গিয়ে দেখবেন, সবাই সিরিয়াল নিয়ে গোলটেবিল বৈঠক করছে অথচ আপনি কোন সুর দিতে পারছেন না (অনেকটা গেম অফ থ্রোনস নিয়ে আলাপ চললে গেম অফ থ্রোনস না দেখা বন্ধুটা যেভাবে বসে থাকে!)।

 

৬# স্ট্যাটাসনামা

এই কাজ না করলে তো আপনার সফরটাই বৃথা। ট্রলপেজগুলোতে হামলে পড়ুন। সুন্দর সুন্দর স্ট্যাটাস সংগ্রহ করুন। যেমন:
যাচ্ছি আমি নাড়ির টানে!
দশদিনের জন্য বিদায় ঢাকা!
কী গরিবরা, তোমরা বাড়িতে যাবা না?
আপনারা ঢাকা পাহারা দেন। আমি বাড়ি চললাম!

আর বাড়িতে পৌঁছানোর পর কী কী করলেন সবকিছু গুছিয়ে স্ট্যাটাস দেওয়ার জন্য আজই কিছু নমুনা স্ট্যাটাস সংগ্রহ করুন।

 

৭# বিসিএস গাইড

আপনি বিছানায় শুয়ে শুয়ে বিসিএসের গাইড পড়ছেন। এর চেয়ে ভালো দৃশ্য আর হতে পারে না। মা-বাবার চোখ ভরে উঠবে আনন্দাশ্রুতে। পাড়া-মহল্লায় আপনি হিরো দ্য সুপারস্টার। আপনি ভাই ভাইরাল, এলাকার নেক্সট বিগ থিং! মুফতে এই সুযোগ হেলায় হারাবেন কেন? এখনই ব্যাগে ভরুন বিসিএস গাইড।

 

৮# এবং একটি পাওয়ার ব্যাংক

শেষ পরামর্শ বাস্তব জীবনভিত্তিক। আগের দিনে দুর্যোগে শুকনো খাবার-দাবার সংরক্ষণ করার পরামর্শ দেওয়া হতো। এখন দিন বদলাইছে। কদিন বাসে বসে থাকা লাগে, বলা তো যায় না! তাই যদি থাকে কিছু বেশি টাকা হাতে, পাওয়ার ব্যাংক কিনে নিও তাতে!

২৩১ পঠিত ... ১৯:৪৩, আগস্ট ০৬, ২০১৯

Top