অনলাইন মিটিংয়ে দেরি করলে যে ১০টি অজুহাত দেবেন

৬৮২ পঠিত ... ১৯:৫৪, জুন ০৬, ২০২০

মিটিংয়ে দেরি করে আসা আসলে মিটিংয়েই একটা অলিখিত ঐতিহ্য। দেরি করার যাবতীয় দায়ভার গ্রহণ করার জন্য এতদিন ট্র‍্যাফিক জ্যাম সদা জাগ্রত ছিলো। কিন্তু সময় বদলেছে, ওয়ার্ক ফ্রম হোমের এই যুগে অফিসের মিটিং চলে এসেছে অনলাইনে। কিন্তু অত্যন্ত নিষ্ঠা ও ধারাবাহিতার সাথে কেউ কেউ (মানে আমাদের মতো!) অনলাইন মিটিংয়েও দেরি করে আসার সংস্কৃতি ধরে রেখেছেন। এবার তো মাথার উপর ট্রাফিক জ্যাম নামক সেই ভরসার বটগাছ নাই। কী করবেন? কার উপর চাপাবেন দায়? 'নেট ছিল না' এই এক কথা আর কতবারই বলা যায়! তাই নিয়মিত অনলাইন মিটিংয়ে দেরি করে আসা eআরকির আইডিয়াবাজদের অজুহাতের একটা সংকলন দেয়া হলো আপনার জন্য।

১# ভাই টি-শার্ট খুঁজে পাচ্ছিলাম না। এতক্ষণ ধরে টিশার্ট খুঁজে এরপর মনে পড়লো টিশার্ট আসলে গায়েই ছিল...

২# ল্যাপটপে চার্জ ছিলো না বস। কারেন্টও নাই। সোডিয়াম আর কপার দন্ড দিয়ে বিদ্যুৎ কোষ তৈরি করে ল্যাপ্টপ চার্জে দিয়ে এরপর ঢুকলাম!

৩# কল আসামাত্র মোবাইলটা হুট করে বন্ধ হয়ে গেছিল। এই যে এতক্ষণ ধরে চালু করলাম। মিটিং কি শেষ নাকি?

৪# আমাদের বাসায় আজকে প্রচুর গেস্ট। বসার জায়গা পাচ্ছিলাম না...

৫# ওয়েবক্যাম কাজ করতেছিলো না বস। পরে ভাইয়ার ফোনটা নিয়ে আসলাম!

৬# রুমের দরজার তালা নষ্ট। কখন কে চলে আসে। এমনিতেই বাসায় একটা বাচ্চা আছে... তাই ড্রেসিং টেবিল দিয়ে দরজাটা সাপোর্ট দিতে একটু দেরি হইলো!

৭# ঠিক টাইমেই আসছি বস। ছোটভাই রাউটার অন-অফের কাজে ছিলো তাই একটু দেরিতে দেখাইছে আমাকে....

৮# কারেন্ট নাই বস। জানালাও খুলতে পারছিলাম না। রুম অন্ধকার হয়ে ছিলো।

৯# আমাদের বাসার সামনে কিসের যেন মাইকিং হচ্ছিলো। প্রচুর আওয়াজ। মিটিংয়ে ডিস্টার্ব হইতো। সেজন্য...

১০# বস, ইয়ে মানে আমাকেই খুঁজে পাচ্ছিলাম না... ইউটিউবে হারায়ে গেছিলাম...

৬৮২ পঠিত ... ১৯:৫৪, জুন ০৬, ২০২০

Top