ফিচার ফোন ব্যবহারের ১০টি দুর্দান্ত সুবিধা যা আপনি স্মার্টফোনে পাবেন না

৪৭৯ পঠিত ... ১৯:৩৮, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯

বাংলাদেশে কাক, কবি ও ফটোগ্রাফারই সংখ্যায় সবচেয়ে বেশি বলে ধরা হয়। কিন্তু কাক বাদে কবি, ফটোগ্রাফার কিংবা যেকারো হাতে আপনি যা দেখতে পাবেনই, তা হলো স্মার্টফোন! শুধু বাংলাদেশে কেন, সারা বিশ্বেও তো তাই, বলা যায় এই যুগটাই যেন স্মার্টফোনের। অথচ ভাবুন, আগের দিনগুলোর কথা! একেকজনের হাতে থাকতো একেক ডিজাইন একেক মডেলের ফিচার ফোন! স্মার্টফোনে সেই বিচিত্রতার সুযোগ কই! শুধু ডিজাইন রঙ কিংবা ফাংশনের বৈচিত্র্যই নয়, ফিচার ফোন ব্যবহারের রয়েছে আরও নানান সুবিধা, যা আপনি স্মার্টফোনে কখনোই পাবেন না! দ্রুত জেনে নিন সেসব এক্সক্লুসিভ সুবিধার কথা, যা ফিচার ফোন ব্যবহারকারীরা 'আনস্মার্ট' বা 'মুঘম আমলের সেট ব্যবহারকারী' হিসেবে পচানি খেলেও নিয়মিত ভোগ করে আসছেন। নকিয়া ৩৩১০ এর মেসেজ অপশন ব্যবহার করে তা লিখেছেন লটারিতে টাকা জিতে স্মার্টফোন কেনার আশায় দিন কাটানো আইডিয়াবাজদের দল।

 

১# বাসে, ট্রাকে, ট্রেনে কিংবা ড্রেনের পাশে হুট করে ছিনতাইকারীর মুখোমুখি হয়ে গেলেও ফিচার ফোন নিয়ে নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন।  ছিনতাইকারী বিশেষ গরিব না হলে ফিচার ফোন নিয়ে হাত কালো করতে চাইবে না। ছিনতাইকারীর দয়া হলে আপনাকে একটা মোটামুটি লেভেলের স্মার্টফোন গিফটও করে দিতে পারে। 

২# ফিচার ফোনের বাটনগুলো একটু শক্তি দিয়ে টেপা লাগে। ফলে আপনি সিক্স প্যাক কিংবা আর্ম মাসলের পাশাপাশি আঙ্গুলের মাসল ও আঙ্গুলের সিক্স প্যাকের অধিকারীও হতে পারবেন। বাইসেপ ট্রাইসেপ থাকলেও, আঙ্গুলের সিক্স প্যাক কয়জনের থাকে? স্মার্টফোন আপনাকে এই সুবিধাটি থেকে বঞ্চিত করবে।

৩# বাসে বসে পকেট থেকে স্মার্টফোন হাতে নিলেই পাশের সিটের লোক সিসি ক্যামেরার মতো ফোনের স্ক্রিন মনিটর করতে থাকে। কিন্তু ফিচার ফোনের ক্ষুদ্র সাদামাটা স্ক্রিনে কেউ তাকিয়ে থাকতে আগ্রহী হবে না। তাকালেও স্ক্রিনের সাইজ ছোট হওয়ায় কিছু না বুঝে নিজে নিজেই বিরক্ত হয়ে চোখ ফিরিয়ে নেবে।

৪# ফিচার ফোন অ্যাংগার ফ্রেন্ডলি। কোন কিছুর উপর রাগ হলেই ফিচার ফোন আছাড় মেরে রাগ কমাতে পারবেন না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এটা ভাঙবে না বা মচকাবে না। ভাঙলে বা মচকালেও কম টাকায় আরেকটি নিতে পারবেন। রাগ কমানোর জন্য স্মার্টফোনকে আছাড় মারতে পারবেন না। আছাড় মারলে উল্টো কলিজায় ব্যথা পাবেন।

৫# বাসে জানালার পাশে বসে কোন ধরনের চিন্তা ছাড়াই ফিচার ফোন কানে লাগিয়ে কথা বলতে পারবেন। চোর আপনার সস্তা ফিচার ফোন নিতে লাফিয়ে এনার্জি খরচ করবে না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ফিচার ফোন চোরের দৃষ্টিই আকর্ষন করবে না। কিন্তু স্মার্টফোন যেকোন সময় আপনার কানসহ বাস থেকে উড়াল দিতে পারে।

৬# ফিচার ফোন দিয়ে ইচ্ছেমতো অন্যের সাথে মেসেজ আদান প্রদান করতে পারবেন। মানে চাইলে প্রেমিক/প্রেমিকা রেখেও আবার প্রেম করতে পারবেন। আপনার প্রেমিক/প্রেমিকা এই ফোনকে কোনভাবেই সন্দেহ করবে না। সন্দেহ করলেও প্রেসটিজ যাওয়ার ভয়ে ফোন হাতে নিয়ে দেখবে না।

৭# বর্তমানে প্রায় সব স্মার্টফোনই নন রিমোভাল হয়ে থাকে। খোলাখুলির সুযোগ নাই। ফিচার ফোনের ব্যাকপার্ট, আপপার্ট, সাইডপার্ট সব খোলা যায়। আপনি সহজেই এইসব পার্ট খুলে সেখানে টাকা (আরও নানান গোপন জিনিস) সঞ্চয় করে রাখতে পারবেন। বিপদে কাজে লাগবে।

৮# ফিচার ফোনের দাম কম হওয়ায় ফিচার ফোন দিয়ে হাঁটতে, বসতে, খাইতে, ঘুমাইতে ক্যাচ ক্যাচ প্র্যাকটিস করতে করতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ক্যাচ স্পেশালিস্ট সংকটে নিজেকে একজন ক্যাচ স্পেশালিস্ট হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার সুযোগও পেয়ে যেতে পারেন।

৯# ভিন্টেজ বাইক, ভিন্টেজ ঘড়ি, ভিন্টেজ সানগ্লাস, কানের গোড়ায় কাঠগোলাপ, এক হাতে অপরাজিতা চা-এর সাথে অন্যহাতে একটা ভিন্টেজ ফিচার ফোনে আপনাকে শতভাগ এস্থেটিক দেখাবে।

১০# ফিচার ফোনের সবচেয়ে বড় সুবিধা, ফিচার ফোন আপনাকে ডিজিটাল অ্যাডিকশন থেকে মুক্ত রাখবে! তাছাড়া আশেপাশে তাকান, দেখুন, সবার হাতে স্মার্টফোন! এমন পরিস্থিতিতে অনেকের মধ্যে ব্যতিক্রম একজন কে না হতে চায়!

৪৭৯ পঠিত ... ১৯:৩৮, সেপ্টেম্বর ০৮, ২০১৯

Top