একটি মুড়ি-বান্ধব বাজেট

২৭১ পঠিত ... ১৪:২৭, জুন ১১, ২০২২

Muri-bandhob-budget

টিভিতে বাজেট বিশ্লেষণ শুরু হয়। বাজেটে মুড়ির দাম কমছে; এই খবরটি জনমনে বিরাট প্রশান্তি নিয়ে আসে। একজন অর্থনীতিবিদ তার বিশ্লেষণে বলেন, ‘ফেসবুকে অনেকেই বলেন, “পপকর্ন নিয়া বসলাম।“ ঐটে বিজাতীয় সংস্কৃতি। এখন থেকে আশা করছি সবাই বলবেন, “মুড়ি নিয়া বসলাম।“ অর্থাৎ জাতীয় জীবনে ঘটতে থাকা টান টান উত্তেজনার চলচ্চিত্র এখন থেকে সবাই মুড়ি খেতে খেতে দেখতে পারবেন।‘

সংস্কৃতি বাজেট কম দেখে সংস্কৃতি মামা আক্ষেপ করে বলেন, ‘কাজুবাদামের দাম কমতে দেখে ভেবেছিলাম; এবার বেশ সংস্কৃতি সেবা করা যাবে। কিন্তু বিদেশি খুশীজলের দাম বাড়িয়ে দেয়া হচ্ছে। কী দিয়ে কাজুবাদাম খাবো বলুন তো?’

শিক্ষা বাজেট অপ্রতুল বলে সমালোচনা করেন এক সদা অসন্তুষ্ট শিক্ষাবিদ। সদা সন্তুষ্ট শিক্ষাবিদ বলেন, ‘আমাদের কাজ ছাত্রদের বিসিএস পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত করা। নীলক্ষেত থেকে কম খরচে বিসিএস গাইড বুক কিনে ছাত্রছাত্রীরা চলে যায় লাইব্রেরিতে; আমার তো মনে হয় শিক্ষা বাজেট বিসিএস বান্ধব।‘

বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবে মুড়ি খেতে খেতে সদা অসন্তুষ্ট শিক্ষাবিদ বলেন, ‘এই করতে করতে গোটা পৃথিবীর বিশ্ববিদ্যালয় তালিকায় আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় কত নীচে পড়ে আছে; তা কী লক্ষ্য করেছেন?’

সদা সন্তুষ্ট শিক্ষাবিদ বলেন, ‘বিশ্বের কে কোথায় কোন তালিকা তৈরি করে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে তালিকার কত নীচে রেখেছে; তাতে আমাদের কিছু এসে যায় না। অন্য কোন দেশের বিশ্ববিদ্যালয় এতো কর্মকর্তা তৈরী করতে পেরেছে বলুন দেখি?’

হেলিকপ্টারের যন্ত্রাংশের দাম কমায় এর মেরামত খরচ কমে যাবে বলে খুশী ব্যবসায়ী ও ওয়াজকারী রাজনীতিক-ধর্মনীতিক। নিরাপদ সড়কের জ্যাম উপেক্ষা করে হেলিকপ্টারে ঘোরার সুযোগ সৃষ্টির কথা ভাবা হয়েছে; কত দূরদৃষ্টি সম্পন্ন এ বাজেট বলে চিনি দিয়ে ভাজা মুড়ি খান এক হেলিকপ্টার হুজুর।

আজকাল নানা দেশ থেকে বিদেশী পাখিরা উড়ে এসে দেশী পাখির সঙ্গে ঘর বাঁধছে। এ প্রবণতা ঠেকাতে বাজেটে বিদেশী পাখির দাম বাড়ানো হয়েছে। এক দেশী পাখি বলে, ‘এই কাজটা ভালো হয়েছে, জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে; সেইখানে বিদেশী পাখিরা এসে আমাদের খাবারে ভাগ বসালে; না খেয়ে মরে যাবো যে। বিদেশী যেসব পাখি এরি মাঝে এসে পড়েছে, তাদের শুধু মুড়ি খাওয়ানো হোক।‘

যারা কানে কম শোনেন তাদের শোনার সুবিধার জন্য শ্রবণ যন্ত্র বা হিয়ারিং এইডের দাম কমেছে। সরকারের নিজেরই এই শ্রবণ যন্ত্র বেশি প্রয়োজন হবে বলে মন্তব্য করেন এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক। হুইল চেয়ারের দাম কমায়; চলতে অসমর্থ্য বিরোধী দলের বিশেষ সুবিধা হলো। অত্যন্ত ভারসাম্যমূলক এ বাজেট বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এ বাজেটের সবচেয়ে ভালো দিক হলো বয়স্কদের জন্য পেনশন চালু করা। মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে; সুতরাং এটা অত্যন্ত কার্যকর পদক্ষেপ বলে মন্তব্য করেন প্রবীণ হিতৈষী সংঘের সভ্য। আরেকজন প্রবীণ বলেন, ‘শুধু খেয়াল রাখতে হবে, হিয়ারিং এইড আর হুইল চেয়ার নিয়ে কমবয়েসীরা বৃদ্ধ সেজে এ ভাতার ওপর ভাগ বসায় কীনা! বিধবা ভাতা নিতে সধবাও যেখানে বিধবা সাজে; সেইখানে ভরসা পাই কম।‘

পাচার হয়ে যাওয়া টাকা দেশে ফেরত আনতে ইনডেমনিটি বা দায়মুক্তি দেবার প্রস্তাব রাখা হয়েছে এ বাজেটে। সরকারের সদা সমালোচকেরা বলেন, ‘রাষ্ট্র কি টাকা তৈরির যন্ত্র? দেশ লুট করে বিদেশে নিয়ে গিয়ে; কিছু ট্যাক্স দিয়ে নিজের সম্পদ হিসেবে দেশে ফেরত আনবে চোরেরা; এ কেমন কথা?’

জাতীয় চোর সমিতি লিগ্যাল নোটিশ পাঠায়, ‘কানাকে কানা, খোঁড়াকে খোঁড়া, চোরকে চোর বলবেন না। এক্ষুণি ক্ষমা চান। নইলে চোরানুভূতিতে আঘাতের দায়ে মামলা করে দেবো!’

একজন চোর হিতৈষী বলেন, ‘গরীব ছিলাম, গরীবের কষ্ট বুঝি। গরীবের হক মেরে যে টাকা পাচার হয়েছে; তা ফেরত আনতে চাই; শুভকাজে বাধা দেবেন না ভাই।‘

এ বাজেট জনমুখী বাজেট বলে বিজয় মিছিল বের করে ‘আমরা যে কোন অকেশনে বিজয় মিছিল করি’ পরিষদের লোকেরা। রাস্তায় এম্বুলেন্স আটকে পড়ায় এক রোগী কাতরাতে কাতরাতে বলে, ‘এমন একটা দিন নাই যেইদিন কোন না কোন বিজয় মিছিল না থাকে; এতো বিজয় কই থিকা আসে?’

বিজয় মিছিলের এক নেতা পথিকদের মুড়ি বিতরণ করতে করতে অ্যাম্বুলেন্সে এসে রোগীকে বলে, ‘এই নিন মুড়ি; এই নিন পানি; ভিজিয়ে খান, তাহলে গলায় আটকাবে না।‘

২৭১ পঠিত ... ১৪:২৭, জুন ১১, ২০২২

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top