ভোরে ফ্যান চালিয়ে দেয়ায় গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করবেন মিরপুরের মনির

৬৭২ পঠিত ... ১৯:০৭, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০

গতকাল মিরপুরে একটি হত্যাচেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। মিরপুরের মনির নামের এক যুবক নিজের গৃহকর্মীর বিরুদ্ধে এক মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন।

সম্ভাব্য মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, বৃহস্পতিবার ভোরে এই কনকনে ঠান্ডার মধ্যে মনিরের রুমে এসে গৃহকর্মী সালমা ফুল স্পিডে ফ্যান চালিয়ে দেয়। এতে অতিরিক্ত ঠান্ডায় কাঁপন শুরু হয় মনিরের। কম্বল সরিয়ে ঘুম থেকে উঠে ফ্যান বন্ধ করার শক্তিও ছিলোনা মনিরের। পরে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে এসে বিদ্যুৎ অফিসে ফোন করে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে অজ্ঞান অবস্থায় মনিরকে উদ্ধার করে।

সালমার এমন আক্রমণের পেছনে কোন উদ্দেশ্য ছিলো কি না তা তদন্ত করে দেখছে গোয়েন্দা সংস্থার লোকেরা।

আজ সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, আক্রমণের শিকার মনির এখনো ট্রমা থেকে বের হতে পারেনি। গায়ে সাড়ে সাতটা কম্বল জড়িয়ে মনির বলেন, 'শীতের ভয়ে ১৮ দিন পানির স্পর্শ নেই না। আর এই মেয়ে এভাবে ফ্যান চালিয়ে দিলো। সঠিক সময়ে ফায়ার সার্ভিস না আসলে আমি মরেই যেতাম।'

তবে এই বিষয়ে সালমার সাথে কথা বললে সালমা জানান, 'আগে ঘর ঝাড়ু দেয়ার সময় ফ্যান বন্ধ করতাম। তঝন স্যারে খালি বকাঝকা করতো। তাই আমি আজ স্যারকে খুশি করার জন্য ফ্যান চালিয়ে দিয়েছিলাম। ভাবছিলাম, স্যার খুশি হবে।'

এমন বিভৎস ঘটনা নিয়ে নানাবিধ মত দিয়েছেন মনোবিজ্ঞানীরা। মনোবিজ্ঞানী একটি ফেক একাউন্ট থেকে ঘটনাটি শেয়ার করে বলেন, 'গরমের সময় ফ্যান বন্ধ করার জন্য বকাঝকাই এভাবে বিভৎস ঘটনার জন্য দায়ী। পুরো এক সিজন জমা হওয়া ক্ষোভ এভাবে উগড়ে পড়ে।'

এমন দূর্ঘটনা থেকে বাঁচতে গরমের সময় ফ্যান বন্ধ করলেও গৃহকর্মীকে বকাঝকা না করার পরামর্শ দেন তিনি। ভুলে বকে ফেললেও শীত আসার আগেই পা ধরে ক্ষমা চেয়ে নেয়ার কথাও বলেন এই মনোচিকিৎসক।

৬৭২ পঠিত ... ১৯:০৭, ডিসেম্বর ১৭, ২০২০

Top