দ্রুত শীত নামিয়ে আনার ১০টি অব্যর্থ পদ্ধতি

২৭৮ পঠিত ... ১৭:০৮, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২

Shit-namano

অন্যান্য বছর আশ্বিন মাসের এমন সময় থেকে শীতের আমেজ শুরু হলেও এবার তার নেই কোনো ছিটেফোঁটা। চলছে আধা শরৎ, আধা বর্ষা ঋতু। অথচ গ্রাম বাংলার মানুষের প্রিয় ঋতু শীতকাল। চলুন দেখি দ্রুত শীত নামিয়ে আনার ১০টি অব্যর্থ পদ্ধতি।

 

১# শীতের প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করে দিন। লেপ, কাঁথা, কম্বল যা যা আছে সবকিছু নামিয়ে ঝেড়ে মুছে রাখুন। প্র‍্যাক্টিস হিসেবে প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে লেপ গায়ে ঘুমান। লেপ গায়ে দেবার সময় ফ্যান বন্ধ করতে ভুলবেন না। মেক ইট রিয়েলস্টিক।

 

২# শীতের জামাকাপড় চিরদিনই ফ্যাশনেবল। এখনই শীতের জামাকাপড় পড়ে বাসা থেকে বের হোন। বিশেষ করে দুপুরা ১২টা-২টা পর্যন্ত রাস্তায় শীতের জামা পরেই ঘুরুন। দেখবেন শীত চলে আসবে। শীতেরও তো একটা চক্ষুলজ্জা আছে।   

 

৩# দলেবলে শাহবাগ মোড়ে কিংবা প্রেসক্লাবে আল্লাহ শীত দে, কুয়াশা দে গানের আয়োজন করতে পারেন। ইতিহাস ঘাটলে দেখা যায়, আগে এভাবেই খরার ভেতর বৃষ্টি আনা হতো। বৃষ্টি আনতে পারলে শীত কেনো নয়?

 

৪# বিশাল আয়োজন করে ‘Welcome শীতকাল’/ ‘হ্যাপি শীতকাল' লেখা কেক কাটতে পারেন। একবার কেক টেক কেটে ফেললে এরপর শীত লজ্জায় হলেও আসতে বাধ্য।

 

৫# শীতের কুয়াশার মতো আর্টিফিশিয়াল কুয়াশার ব্যবস্থা করতে পারেন। এক্ষেত্রে, ভারী ফিউমিং মেশিন ও অসংখ্য মশার কয়েল ব্যবহার করতে পারেন। এতো চেষ্টা দেখে  সহানুভূতিশীল হয়েও চলে আসতে পারে প্রিয় ঋতু শীত।

 

৬# আগেই শীতকে আনার জন্য কবিরাজের কাছে গিয়ে যাদু টোনা বা কালা যাদুর শরণাপন্ন হতে পারেন। গোপন নকশায় শীতের নাম লিখে মাটিতে পুঁতে আসলেও শীত নিশ্চিতভাবেই চলে আসবে।

 

৭# আজ থেকেই গোসল করা বন্ধ করে দিন। ৭-৮ দিন একটানা গোসল বন্ধ করে দিলে ভুল করে হলেও শীত চলে আসবে।

 

৮# এখন থেকে পিঠা বানানো শুরু করুন। চিতই, ভাপা, পাটিসাপটার, পুলির জোরে হলেও বেশিদিন শীত না এসে থাকতেই পারবে না।

 

৯# রাতে কাঠ জড়ো করে আগুন পোহান। এ সময় শীতের জামাকাপড় পড়তে ভুলবেন না। তাপ পোহানোর সময় একটু কাঁপার অভিনয় করুন। একটু পর মনে হবে সত্যিই শীত এসে গেছে।

 

১০# পরিশেষে, বিয়ে করুন ও হানিমুনে যান। শীত মানেই অসংখ্য বিয়ে, বিয়ে মানেই শীত। বিবাহিত-অবিবাহিত সবাই যদি একটি করে বিয়ে শুরু করেন, শীত নিজের দায়িত্বেই চলে আসবে।

২৭৮ পঠিত ... ১৭:০৮, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২

Top