যে দশ কারণে ক্লাসমেট/সহপাঠী বিয়ে করবেন

৬৩৮ পঠিত ... ১৮:০৮, অক্টোবর ১৬, ২০২১

জীবনে বিয়ে যেহেতু করতেই হবে সেহেতু বিয়ে করবেনই! কিন্তু কাকে বিয়ে করবেন? আমরা বলবো, চাইলে বিয়ে করতে পারেন সহপাঠীকে। সহপাঠীকে বিয়ে করার ১০১টি সুবিধা থেকে মাত্র ১০টি তুলে ধরা হচ্ছে আপনার জন্য...

Classmate-Biye (1)

১# এদের দিয়ে ফুট ফরমাশ খাটানো সহজ। অল্প কথাতেই হাত-পা টেপানো থেকে শুরু করে যখন তখন কফি বানাতে বলতে পারবেন।

২# এদের সাথে ঝগড়াঝাঁটি একটু বেশিই হবে। সম্পর্কে ঝগড়াঝাটি হওয়াকে অনেক রিলেশনশিপ এক্সপার্টই হেলদি বলে চিহ্নিত করেছেন। এছাড়া খুনসুটির পর আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়াও চমৎকার ব্যাপার...

৩# অনেক কমন ফ্রেন্ড থাকলে বিয়ের সময় অন্তত ৩০-৪০ টি ইনভাইটেশন কার্ড কম পাঠাতে হবে। ফলাফল, বিয়েতে মানুষ খাওয়াতেও খরচ কমে আসবে।

৪# ঝগড়ার সময় বয়সে বড় বলে কেউ পার পেয়ে যেতে পারবে না কিংবা বয়সে ছোট বলে কেউ ছোটরা ভুল করতে পারে লজিকে বেঁচে যেতে পারবে না৷ ঝগড়া হবে সমানে সমানে।

৫# কমন স্কুল কলেজ থাকলে আরো জোশ৷ সে সময়ের নানাবিধ আকাম কিংবা নিকনেক ধরে একজন আরেকজনকে ইচ্ছে মত পচাতে পারবেন৷

৬# পকেটে টাকা না থাকলে লজ্জা সরমের তোয়াক্কা না করে একজন আরেকজনের কাছে টাকা চেয়ে ফেলতে পারবেন৷

৭# একই যুগে জন্মগ্রহণ করায়  ক্লাসমেটের সাথে চিন্তাভাবনার মিল থাকা স্বাভাবিক৷ একজন কোন একটা আকাম করে সেটাকে জেনারেশন গ্যাপ বলে চালিয়ে দিতে পারবে না৷ একদম খপ করে ধরে ফেলতে পারবেন।

৮# ক্লাসমেট হওয়াতে তার অনেক দুর্বল দিক থাকবে আপনার নখদর্পনে৷ ঝগড়ার সময় ঝোপ বুঝে কোপ মারতে সুবিধে হবে৷

৯# ডিভোর্স হয়ে গেলেও দুজন দুজনের পরবর্তী বিয়েতে গিয়ে লজ্জা শরমের তোয়াক্কা না করে ভরপেট কাচ্চি খেতে পারবেন৷

১০# শেষ এবং আনন্দের কথা এই-যে, আপনারা একই সাথে বুড়ো হবেন। কারো অত্যধিক বুড়িয়ে যাওয়া আপনার দেখতে হবে না....

৬৩৮ পঠিত ... ১৮:০৮, অক্টোবর ১৬, ২০২১

Top