ঢাকার বাড়িওয়ালারা এখন ভাড়াটিয়াদের যে ১০টি আকর্ষণীয় 'শর্ত' দিতে পারে

১৫১১ পঠিত ... ১৯:১৮, জুন ২৫, ২০২০

করোনাভাইরাসের কারণে নানাবিধ পেশার মানুষের আয়ের উপর কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ফলে ব্যয়ের খাত কমাতে কিংবা বাধ্য হয়েই প্রচুর মানুষ ঢাকা ছেড়ে গ্রামমুখী হচ্ছেন। অন্যদিকে ভাড়াটিয়া সংকটে ভুগছেন বাড়িওয়ালারা। দেয়ালগুলো ছেয়ে যাচ্ছে টু-লেট সাইনবোর্ডে। অবিশ্বাস্য জনসংখ্যার এই শহরের বাড়িওয়ালাদের ব্যাপারে ভাড়াটিয়াদের সবসময়ই নানান অভিযোগ দেখা যায়। বারবার ভাড়া বাড়ানো আর আরোপিত নানান শর্ত ও অযৌক্তিক বিধিনিষেধের কারণে বাড়িওয়ালাদের প্রতি ভাড়াটিয়ারা (স্পেশালি ব্যাচেলর) বরাবরই বিরাগভাজন। তবে স্বাভাবিকভাবেই বিপদে পড়ে কিছু বলতেও পারে না। তবে এখন বদলে গেছে সময়, বাড়িওয়ালারা এখন উল্টো বিপদে। এমন পরিস্থিতিতে ডেস্পারেটলি বাসা ভাড়া দেয়ার জন্য তাদের সকল শর্তসমূহে হয়তো আসবে পরিবর্তন। ঢাকার বাসা ছেড়ে গ্রামের বাড়ি শুয়ে শুয়ে সেসব ভেবেছেন ব্যাচেলর হওয়ায় বরাবরই বাড়িওয়ালার সাথে কাইজ্যা করা আইডিয়াবাজদের দল।

১# ছাদ ভাড়াটিয়াদের ব্যক্তিগত সম্পত্তি। তারা যখন ইচ্ছা যাবে। যখন ইচ্ছা আসবে। ব্যাচেলরদের জন্য স্পেশাল অফার, তারা চাইলে ছাদেও এক রুম বানিয়ে থেকে যেতে পারবে।

২# মোটরের সুইচ থাকবে ভাড়াটিয়াদের বাসায়। তারা যখন ইচ্ছা চালাবে। প্রয়োজনে বাড়িওয়ালার বাসার বালতির সাথে ভাড়াটিয়াদের ট্যাপের পাইপ লাগানো থাকবে। ভাড়াটিয়ারা নিজেদের বালতির পানি দিয়ে গোসল করতে করতে বিরক্ত হয়ে গেলে বাড়িওয়ালার বালতির পানি দিয়া গোসল করতে পারবে।

৩# টু-লেট বিজ্ঞাপনের সাথে লেখা থাকবে 'এখানে ফ্যামিলি ভাড়া দেয়া হয় না'। ফোন করলে বাড়িওয়ালা বলবে, 'আপনাদের ব্যাচেলর আছে? ৭-৮ জনের কম ব্যাচেলর থাকলে আমরা ভাড়া দিতে পারবো না।'

৪# বাসার ব্যাচেলরদের ডেকে এনে বাড়িওয়ালারা বলবে, 'পরিচিত হও বাবা, এইটা আমার বড় মেয়ে ও, ওটা মেঝো। ছোটটা ভার্সিটিতে, আসলেই পরিচয় করিয়ে দিবো।'

৫# বাসার গেট খুলবেই রাত ১১টার পর। এর আগে শুধু পকেটগেট খোলা থাকবে।

৬# কোন অ্যাডভান্সই লাগবে না। কোনরকম ভাড়াটিয়া পেলেই বাড়িওয়ালা বলবে, জাস্ট উঠে পড়ুন, ৬ মাস পর একসাথে ভাড়া দিয়েন।

৭# বাসার নিচে বড় করে লেখা দেখা যাবে- এই বাসা ভাড়া নিলে দেয়াল আপনার। পেরেক মারুন, পেইন্টিং করুন, কিংবা অনাবাদী রাখুন- সে আপনার মর্জি।

৮# বাসার কোন ফার্নিচার নষ্ট হলে এক ঘন্টার মধ্যে সারিয়ে দেয়া হবে। অন্যথায় বাড়িওয়ালা ভাড়াটিয়ার জন্য নিজের বাসা ছেড়ে দিবে।

৯# ফি-বছর ভাড়া বাড়ানোর সুযোগ আর থাকবে না। এবার হয়তো বাড়িওয়ালারা ভাড়াটিয়াদের উপরই বাসা ভাড়া চেঞ্জ করার এখতিয়ার ছেড়ে দিবে। ভাড়াটিয়া চাইলে বছরে একবার ভাড়া কমাতে পারবে...

১০# শুধু অতিথির গাড়ি না, এরপর থেকে ডেলিভারি ম্যান, মাছওয়ালা, গাছওয়ালা, অতিথির ট্রাক সবকিছু পার্কিং করার সুযোগ থাকবে।

১৫১১ পঠিত ... ১৯:১৮, জুন ২৫, ২০২০

Top