ক্যামেরা অন করে ত্রাণ দিলে কে বা কারা যেন ক্যামেরা ভেঙে দিচ্ছে

৫৭৭ পঠিত ... ১৫:০২, জুন ২২, ২০২২

সিলেট, সুনামগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে বন্যার্তদের ত্রাণ দিচ্ছে মানবিকবোধ সম্পন্ন মানুষেরা। কিন্তু ত্রাণকার্যে দেখা দিয়েছে রহস্যময় এক জটিলতা। বিভিন্ন জায়গা থেকে খবর পাওয়া যাচ্ছে, ক্যামেরা অন করে ত্রাণ দিলে কে বা কারা যেন ক্যামেরা ভেঙে দিচ্ছে।

Camera-venge-dicche

সরেজমিনে গিয়ে জানতে চাইলে ত্রাণসম্রাট খলিল eআরকিকে বলেন, ‘আমরা ৩০জন ১৫ প্যাকেট ত্রাণ আর ৩০টা ক্যামেরা নিয়ে আসছিলাম। দুইজনকে দেয়ার পরেই কে যেন আমাদের ক্যামেরাগুলো ভেঙে গুঁড়োগুঁড়ো করে দেয়। এখন ক্যামেরা ছাড়া আমরা কীভাবে ত্রাণ দেবো? এটা কি আদৌ সম্ভব?’

ত্রাণ ফিরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনাও আছে তাদের। খলিলের বন্ধু জলিল বলেন, ‘ক্যামেরাতে আমাদের ত্রাণ দেয়ার কিউট কিউট ছবি ছিলো। কিছু ছবি তো দেখলেই মানুষ কান্না করে দিতো। কী মায়া তাদের চোখে আহা! অসহায় মানুষগুলোর চোখগুলো ছলছল করছিলো। আমার ৪২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরায় চোখের মণি পর্যন্ত দেখা যাচ্ছিলো। এই ছবি ফেসবুক আপ করলে ভাইরাল হয়ে যেতো।’

খবরে জানা যায় শুধু মোবাইল ক্যামেরা না, ডিএসএলআর, গ্রোপ্রো, অ্যালেক্সা, সনি এফএস সেভেন, রেডসহ আরও অনেক দামি দামি ক্যামেরা ভেঙে ফেলা হয়েছে। এমনকি গায়ে হাত তোলা হয়েছে সিনেমাটোগ্রাফারকে।

এভাবে ক্যামেরা ভাঙার ঘটনায় তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেছে শো অফ ত্রাণ কমিটির সভাপতি। তিনি বলেন, ‘ক্যামেরা আমাদের ত্রাণ দেয়ার এনার্জি, অথচ সেই ক্যামেরাটা তারা ভেঙে দিচ্ছে। ওরা কি কেউ অসহায় মানুষদের ভালো চায় না? এখনো আমাদের কাছে বিশজনের ত্রাণ রয়েছে। ত্রাণ দিতে দেশের নানা অঞ্চল থেকে বন্ধু আর আত্মীয়-স্বজনরা এসেছে। এতোগুলা মানুষের এখন কী হবে?’

ক্যামেরা ভেঙে পড়ায় আর কখনো ত্রাণ দেবেন না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জনৈক ত্রাণবাজ। তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘আমার দুইটা ক্যামেরা ভেঙেছে। তাই আমাদের ত্রাণ দেয়া আপাতত বন্ধ। ঢাকা থেকে সিনেমাটোগ্রাফার আর ক্যামেরা রওনা দিয়েছে। এলেই আমরা আবার ত্রাণকার্য শুরু করতে পারবো।‘

৫৭৭ পঠিত ... ১৫:০২, জুন ২২, ২০২২

Top