'ত্রাণ দেয়া হচ্ছে না' এমন সকল সন্দেহকে ভুল প্রমাণ করলো এই ঐতিহাসিক ছবি

৪৮৩ পঠিত ... ১৫:৩৮, জুন ২৫, ২০২০

করোনাকালের শুরুর দিকে ত্রাণ নিয়ে নানা চৌর্যকর্ম হয়েছে মর্মে জনসাধারণ বিবৃতি দিলেও, সাম্প্রতিক সময়ে একেবারে ত্রাণই দেয়া হচ্ছে না বলে মাইকঘুষা করছেন অনেকে। তাদের মুখে একটা ঠাটানো চপেটাঘাত দিতেই ফেসবুকে অবমুক্ত করা হয়েছে একটি ত্রাণদানরত ছবি।

ছবিতে দেখা যায় ২০-৩০ জনের একটি দানশীলের দল একজন অসহায়, দুস্থ মানুষকে আরএফএলের মস্তবড় এক গোসলের মগে করে কানায় কানায় পূর্ণ একমগ চাল দান করছেন।

এই ছবি দেখিয়েই ত্রাণ বিতরণ ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষে দাবি করেন, 'ত্রাণ দিচ্ছি না যারা বলেন, তারা দেখে যান। একজন, দুইজন নয়, আমরা শতশত জন মিলে ত্রাণ দিচ্ছি।'

একটা মুখ ভেংচি দিয়ে তিনি আরো বলেন, 'এখন তো বলবেন আপনি নেশা করছেন, তাই একজনকেই ৩০ জন দেখছেন। না ভাই, আপনি নেশা করেননি, ঠিকই দেখছেন।'

ক্ষোভ প্রকাশের পর কিছুটা শান্ত হয়ে এই ত্রাণম্যান আমাদের আরো বলেন, 'প্রমাণ ছাড়া কোন কথা বলার পক্ষে আমরা না। এতদিনে উপযুক্ত একটা প্রমাণ পেয়েছি। তাই কিছু কথা না বলে থাকতে পারলাম না।' এসময় ছবিটির জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে টিম eআরকিকে ধন্যবাদ যোগে একমগ ত্রাণ দেয়ার আশাও ব্যক্ত করেন।

'ত্রাণ দিচ্ছে না' বলা এক আমজনতা এই ছবির চপেটাঘাতের ব্যাথায় মুখে হাত বুলাতে বুলাতে ত্রাণম্যানকে বলেন, 'তা ভাই, প্রমাণের জন্য আপনারা ছবি তুলে রাখেন না ক্যান?'

এমন প্রশ্নে ত্রাণম্যান কিছুটা হতাশ হয়ে বলেন, 'ছবি তো তুলতে চাই ভাই, কিন্তু ক্যামেরা হাতে কেউ নিতে চায় না। সবাই শুধু ত্রাণে হাত লাগাতে চায়। আসলে ছবি তোলার ক্ষেত্রে আমাদের তেমন কোন লোভ নাই, যত লোভ ছবিতে উঠার ক্ষেত্রে।'

ত্রাণে হাত লাগানোর নেকি মিস করতে না চাওয়াকেও ছবি না তোলার অন্যতম কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেন তিনি। তিনি বলেন, 'ত্রাণের মগে হাত লাগানোর নেকি অনেক ভাই। এই নেকি আমরা কেউ একা নিতে চাইনা। সবাই ভাগ করে নিতে চাই। তাই আরকি ছবি তোলার লোক পাওয়া যায় না।'

৪৮৩ পঠিত ... ১৫:৩৮, জুন ২৫, ২০২০

Top