কাস্তের অপব্যবহার করায় টাঙ্গাইলের এমপির উপর ক্ষুব্ধ কার্ল মার্কস

৩৪৯ পঠিত ... ০৬:৫৬, এপ্রিল ২৯, ২০২০

সম্প্রতি গরিব কৃষকদের ধান কেটে দিয়ে সাহায্য করতে আক্ষরিক অর্থেই মাঠে নেমেছেন বেশ কিছু রাজনৈতিক কর্মী। তবে টাঙ্গাইল-২ আসনের এমপি তানভীর হাসান ছোট মনি 'ভলান্টারি ধান কাটা'র জগতে এনেছেন এক বিপ্লব। ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওতে এক কৃষকের কাঁচা ধানই কাটতে দেখা গেছে তাকে (২৭ এপ্রিলের ঘটনা)। অতঃপর গত ২৮ এপ্রিল ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে অনেককেই ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়।

তবে এই অনেকের ভিড়ে ভিডিওটি দেখে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন 'কাস্তে' ফেমড সমাজতন্ত্রের বস কার্ল মার্কস । এই প্রতিবেদক লন্ডনের সোহোতে গিয়ে দেখেন, ২৮ ডিন স্ট্রিটের বাসার সামনের মাটির উপ্রে কাস্তে দিয়ে লাগাতার কোপাচ্ছেন বর্ষীয়ান এই জার্মান দার্শনিক।

রাগে ফেটে পড়ে মার্কস বলেন, 'কাস্তে জিনিসটা কি আমি এমন অহেতুক কাজের জন্য হাতে ধরিয়ে দিয়েছি? কাস্তে একটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস, এইটার একটা সিম্বোলিক হিস্টোরিক ভ্যালু আছে, অন্তত এই কারণে হলেও তো কাস্তে দিয়া কৃষকের কাঁচা ধান কাটার মত বুজরুকি না করা উচিত!'

হাতে থাকা কাস্তে আরও দুবার মাটিতে কুপিয়ে তিনি একটি অফেন্সিভ মন্তব্যও করেন, 'একে বাশের আড়ায় টাঙ্গিয়ে পেটানো উচিত।'

তবে রাগ একটু কমলে সদা বিশ্লেষণী এই চিন্তাবিদ এমপির এমন আচরণের ব্যাখ্যা দিয়েছেন তার স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে। 'এন্টফ্রেমদুং' এর কারণেই ওই এমপি এমনটি করেছেন বলে মার্কসের ধারণা। 'এন্টফ্রেমদুং' শব্দের মানে প্রতিবেদক না বুঝতে পারায়, মার্কসের দোভাষী এবং এজেন্টকে শব্দটির মানে বুঝিয়ে দিতে বললে দোভাষী তাকে একটু দূরে চিপায় টেনে নিয়ে বলেন, '১০০ টাকা বিকাশ করবেন তারপর মানে বুঝায়ে দিবো।'

মার্কসের মতো পুজিবাদবিরোধী লোকের এজেন্ট হয়ে কিভাবে এমন কাজে টাকা চান মনে করিয়ে দিলে ওই এজেন্ট ক্ষেপে গিয়ে এই প্রতিবেদককে বলেন, 'ভুলে গেলে চলবে না এখনও আমরা পুজিবাদী পৃথিবীতেই বাস করি। মার্কস কথিত কমিউনিস্ট স্বর্গে না৷ তাছাড়া ফ্রেডরিক এঙ্গেলসের মতো ধনী ব্যবসায়ী বন্ধু আছে কার্লের। আমাদের কে আছে? কোয়ারেন্টিনের কারণে এমনিতেই ইনকাম বন্ধ!'

তারপর শান্ত হয়ে তিনি বলেন, বিকাশ একাউন্ট কিন্তু পারসোনাল।

এজেন্টের শুনে এই প্রতিবেদক তব্দা খেয়ে ১০০ টাকা সেন্ড করলে এজেন্ট বলেন, 'মার্কসের ইন্টারভিউ করতে আসছেন, কিছু পড়াশোনা তো করে আসবেন। এন্টফ্রেমদুং কথার অর্থ হচ্ছে এলিয়েনেশন, বিচ্ছিন্নতা। মার্কস এখানে বোঝাতে চেয়েছেন, টাঙ্গাইলের ওই এমপি সাধারণ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন বলেই এমনটি করেছেন। এলিয়েনেশন মানুষের মানবিকতাকে নষ্ট করে দেয়৷
মার্কস আর কিছু বলতে চান কিনা জিজ্ঞেস করলে মার্ক্স তার বহুল আলোচিত বাক্য সংশোধন করে বলেন, 'ভাইরাল হওয়ার নেশা একুশ শতকে সাধারণ মানুষের জন্যে আফিম স্বরূপ।'

৩৪৯ পঠিত ... ০৬:৫৬, এপ্রিল ২৯, ২০২০

Top