বিয়ের ১ বছরের মাথায় নাতি-নাতনী উপহার না দেওয়ায় জরিমানা করা হলো নাইবান্ধার এক দম্পতিকে

৩৬৯ পঠিত ... ১৬:৩৫, মে ১২, ২০২২

Baccha-na-howay-jorimana

কিছু কিছু দায়িত্ব যুগ নির্বিশেষে অপরিবর্তনশীল। পৃথিবীর সকল নারীর এই দায়িত্ব পালন করা কঠিনভাবে ফরজ। এদের মধ্যে একটি হলো বিয়ের ১০ মাসের মাথায় সন্তান প্রসব করা। মাতৃপরিচয়ের চেয়ে একজন নারীর জীবনে আর কোনো পরিচয় বড় হতে পারে না। তবে সময়ের সাথে সাথে দেশের বাড়ছে প্রথা অমান্যকারীর সংখ্যা। তাই উচিৎ শিক্ষা দিতেই বিয়ের ১ বছরের মাথায়ও নাতি নাতনী উপহার দিতে না পারায় কঠিন জরিমানা করা হয়েছে নাইবান্ধার এক দম্পতিকে।

এ বিষয়ে মেয়ের মায়ের সাথে কথা বলি আমরা। তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘বিয়ের পরের দিন থেকে আমি ওদেরকে বাচ্চা নেয়ার কথা বলছি। আমি বুড়া মানুষ, আর কতই বা বলতে পারি! ওদের দাদি মানে আমার শ্বাশুড়িকে দিয়ে ক্যামনে কী সব বুঝিয়ে দিয়েছি। তাও ওরা আমাকে নাতি-নাতনির মুখ দেখাতে পারছে না। কুলাঙ্গারগুলা।’

এ ব্যাপারে নাইবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জানান, ‘আজকাল নারীরা তাদের কর্তব্যে ফাঁকি দিচ্ছেন। শিক্ষার নামে বেলাল্লাপনাতেই ঝুঁকতে বেশি আগ্রহী। এজন্যই তারা বেশিদিন ফূর্তি করার আশায় আজকাল দ্রুত মা হতে চান না। এই দম্পতির বাবা-মা যখন অভিযোগ নিয়ে এলেন, গ্রামবাসীর সাথে আলাপ করে বেত্রাঘাতের সিদ্ধান্ত নেই। পরে মেয়ের মা'র অনুরোধে তা জরিমানা পর্যন্ত বহাল রাখা হয়৷ আমার ধারণা এই উদাহরণ থেকে নারীরা শিক্ষা নিয়ে বিয়ের পর পরই কাজটা সম্পন্ন করবে। আমাদের কারোই নিজ দায়িত্বে অবহেলা করা উচিত  নয়....’

কিছুটা রেগে গিয়ে ছেলের মা বলেন, ‘ওদের ঘরে কান পাতলেই হাসির শব্দ শুনি। এই মাইয়ারে আমি শুধু হাসাহাসি করার জন্য বিয়া করাইছি? বিয়ার প্রথম বছর বাচ্চা না নিলে বাচ্চা তো আর হবে না। ২টা না ৪টা একটা নাতি চাইছি। ওইটাও দিতে পারতেছে না। পোলারে কইলাম আরেকটা বিয়া কর। কুলাঙ্গারটা তাও শুনে না। বউয়ের নাগর হইছে।’

এক পর্যায়ে তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘এই মাইয়া মনে হয় আমার পোলারে তাবিজ করছে। নইলে আরেকটা বিয়া করে না ক্যান!’

৩৬৯ পঠিত ... ১৬:৩৫, মে ১২, ২০২২

Top