ইদে সালামি দেবার কথা বলে ২০০ মেয়ের নাম্বার সংগ্রহ করলেন বাড্ডার তুষার

৪৫৮ পঠিত ... ১৬:৪১, মে ০৭, ২০২২

Salami-debar-kotha-bole (1)

ক'দিন আগেই চলে গেলো পবিত্র ইদ-উল-ফিতর। এ আনন্দের অন্যতম অংশ সালামি আদান-প্রদান। ইদের দিন সাধারণত বড়রা তাদের স্নেহভাজন ছোটদেরকে বকশিস দিয়ে থাকেন, যা সালামি নামেই পরিচিত। তবে এবার সালামি নিয়ে জানা গেছে এক অদ্ভুত কাণ্ড। বাড্ডার রাফিউজ্জামান তুষার (২৭) নামের এক তরুণ সালামি দেবার কথা বলে প্রায় ২০০ তরুণীর মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করেছেন। এবং পরবর্তীতে কাউকেই সালামি না পাঠানোয় তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ তুলেছেন নারায়ণগঞ্জের জিনিয়া (১৭) নামের এক তরুণী।

জানা যায় ভুক্তভোগী নারীদের বেশিরভাগের বয়সই ১৭-২৫ এর ভেতর। এ ব্যাপারে জিনিয়া জানান, ‘তুষার ভাই বলছিলেন ফোন নাম্বার দিলে সালামী দিবেন। কত টাকা দিবেন এই ব্যাপারে আগেই কিছু জানায় নাই। ইদের পর চারদিন কেটে গেছে। কয়েকদিনের ভেতর সাতদিন ব্যাপী ইদ অনুষ্ঠান প্রচারও বন্ধ হয়ে যাবে। তাও তুষার ভাইয়ের সালামী দেওয়ার খবর নাই। মাঝে মাঝে মিসডকল দিলে আমি কল ব্যাক করি। তখন মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে অপেক্ষা করতে বলে। এক সালামীর জন্য আর কত অপেক্ষা করবো?’

এদিকে eআরকি'র ইনভেস্টিগেশন টিম তুষারের ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করে এক বিস্ময়কর তথ্য আবিস্কার করে৷ জানা যায়, রাফিউজ্জামানের আসল নাম মফিজ। ছোটবেলা থেকেই তিনি সালামি ব্যবসায় জড়িত। ছোটবেলা হতে ভাই-বোন ও বন্ধুদের সালামি জোরপূর্বক আদায়ের মাধ্যমে তিনি বাড়ি, গাড়ি এবং বেশ কয়েকটি শিল্প কারখানার মালিক হয়েছেন। তার প্রেম ও বিবাহজীবনের তালিকাও ক্ষুদ্র নয়। তুষারের প্রথম স্ত্রী ফারিয়া (২৩) তাকে সালামির লোভেই বিয়ে করেন বলে জানিয়েছে প্রতিবেশীরা। তবে দীর্ঘ আট বছর কেটে গেলেও সে সালামি দেননি তুষার। এ ব্যাপারে তুষার বলেন, ‘সালামি টালামি হুদাই। আমি সবার জন্য প্রাণভরে দোয়া করি। দোয়াই আসল সালামি।’

এদিকে অন্য এক গোপন সূত্র থেকে খবর পাওয়া গেছে, সংগ্রহ করা নম্বরগুলো এলাকার বড় ভাইদের দিয়ে তাদের কাছ থেকেই উলটা সালামি নিয়েছে তুষার।

৪৫৮ পঠিত ... ১৬:৪১, মে ০৭, ২০২২

Top