বারবার শুধু আমার উপরেই? কেন, কেন, কেন? —সমাবেশে ব্যবহৃত জনৈক প্লাস্টিকের চেয়ার

১৭১ পঠিত ... ১৫:০৯, জানুয়ারি ১৩, ২০২২

plastic-chair-keno

বাংলাদেশি সমাবেশগুলোতে মানুষের চেয়ে প্লাস্টিকের চেয়ার অনেক বেশি ঝুঁকিতে থাকে। কোনো ধরনের ঝামেলা হলে প্রথম আঘাতটা গিয়ে পড়ে নিরীহ প্লাস্টিকের চেয়ারের উপর। ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে যায় অসহায় চেয়ারগুলো। চেয়ারের প্রতি এমন অমানবিক আচরণের বিরুদ্ধে এবার মুখ খুললো নিখিল বাংলা প্লাস্টিক চেয়ার কমিটি। গতকাল টিএসসিতে কাওয়ালি গানের অনুষ্ঠানে হামলার পর ভাঙা পা নিয়ে একটি প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে তারা।   

সমাবেশটিতে মন ভরা আক্ষেপ নিয়ে কমিটির সভাপতি আরএফএস চেয়ার বলেন, ‘কোথাও গিয়ে শান্তিতে বসতে পারি না। সবসময় একটা আতঙ্কে থাকি, কখন কে এসে মাথার উপর তুলে ছুঁড়ে মারবে। সমাবেশের বক্তব্য বা অনুষ্ঠানটি যে একটু উপভোগ করবো সে সুযোগও নেই।’   

এইসময়ে কিছুটা উত্তেজিত হয়ে পড়েন তিনি। এই সমাজ, সংসারের কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘বারবার শুধু আমাদের উপরে, বারবার শুধু আমাদের উপরে… কেন, কেন, কেন?’

একটা বিশেষ গোষ্ঠিকে উদ্দেশ্য করে অন্য এক চেয়ার বলেন, ‘আপনারা তো হেলমেট-হকস্টিকও ইউজ করেন। কই তখন তো এমন নিরীহ কোন হেলমেটকে অত্যাচার করতে দেখি না, সবাই ব্যক্তিগত হেলমেট, হকস্টিককেই কাজে লাগান। আমাদের ক্ষেত্রে কেন এই বৈষম্য! কেন আমাদের সাথে গণিমতের মালের মত আচরণ করেন? প্লাস্টিক বলে কি আমাদের কোন অধিকার নেই?’

বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন ডেকোরেটর ব্যবসায়ীরাও। প্রথমে কিছুটা উত্তেজিত হলেও এরপর নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করে অনুরোধের সুরে এমনই একজন বলেন, ‘আপনারা মারামারি করেন সমস্যা নাই। কিন্তু প্লিজ, নিজেরা চেয়ার কিনে ওগুলো দিয়ে মারামারি কইরেন। ভাড়া চেয়ার নিয়ে মারামারি কইরেন না। আমার চেয়ার ভাঙলে জরিমানা যে নিবো এমন কাউকেও পাই না। আয়োজনরাও তখন হাসপাতালে থাকে। জরিমানার কথা বলতে গেলে ফলমূল নিয়া যাইতে হয়।’

১৭১ পঠিত ... ১৫:০৯, জানুয়ারি ১৩, ২০২২

Top