মুরাদ হাসান ও নাহিদ হেলালকে নিজেদের আড্ডার সদস্য পদ দিতে চান নিখিল বাংলা বখাটে পরিষদ

১২৮৪ পঠিত ... ১৩:৩০, ডিসেম্বর ০৫, ২০২১

murad-nahi-bokhate-thumb

নিজেদের অসাধারণ সুমধুর ভাষা প্রয়োগের মাধ্যমে এবার নতুন এক মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান ও নাহিদ হেলাল নামের এক ব্যক্তি৷ নিজেদের এক বিশেষ সভায় এই দু'জনকে সদস্য পদ দেয়ার কথার কথা জানান নিখিল বাংলা বখাটে পরিষদ। নাহিদ হেলাল নামক জনৈক ব্যক্তির উপস্থাপনায় এক তথাকথিত ফেসবুক রোস্ট ভিডিওতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের কন্যা জাইমা রহমানকে উদ্দেশ্যে করে বলা ডা. মুরাদ হাসানের কিছু বাক্য (সঙ্গত কারণেই বাক্যগুলো উল্লেখ করা যাচ্ছে না) সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়৷ যে ভাইরাল টক শো দেখে মুগ্ধ হয়েই নিখিল বাংলা বখাটে পরিষদের (নিবাবপ) নেতাকর্মীরা এমন সিদ্ধান্ত নেন৷ 

নিবাবপ-এর এক সিনিয়র নেতা একটি ফেক আইডি থেকে ডা. মুরাদ হাসানের ছবিতে ফুলচন্দনের ইমোজি দিয়ে বলেন, 'এমন একটা শক্তিশালী কণ্ঠের অভাবেই অনেক দিন মোড়ের দোকানে বসে মেয়েদের উদ্দেশ্যে বাক্য ছুঁড়ে দিয়ে আরাম পাই না৷ আড্ডায়ও যথেষ্ট মুখরোচক বাক্য শুনি না। মুরাদ হাসানের মুখে জাইমা রহমানকে নিয়ে শোনা বাক্যগুলো নতুন করে আশার আলো জুগিয়েছে৷ ওনার সংযুক্তি আমাদের বখাটে পরিষদকে আরো সমৃদ্ধ করবে৷ ভাবতেই কেমন ভালো লাগছে, এবার প্রতিমন্ত্রীকে সাথে নিয়ে মেয়েদেরকে টুটটুট বলবো!' 

নিজের বক্তব্য শেষ করেই অপরিচিত রক মেয়েদের পোস্টের নিচে 'কানকি মাগে হিগাব কই!' লিখে কমেন্ট করেন। 

এদিকে অন্য এক জুনিয়র নেতা নাহিদ হেলালের হাসির ভূয়সী প্রশংসা করেন৷ তিনি বলেন, 'এটি শুধু একটি হাসি না, আমাদের ভেতর থেকে আসা নারীদের উদ্দেশে প্রতিটি অশ্লীল বাক্যের জন্য এক একটি অস্কার৷ এমন হাসি দেখলেই গালি, আলাপ, মুখরোচক অশ্লীল বাক্য প্রাণ ফিরে পায়। উৎসাহে ভেতর থেকে ডজন ডজন বের হতেই থাকে হতেই থাকে।'

যদিও অন্য এক নেতা আফসোস করেন। তিনি বলেন, 'এইসবই তো আমি মোড়ের চায়ের দোকানে দাঁড়িয়েই বলতে পারি৷ এইসব বলার জন্য এত কষ্ট করে প্রতিমন্ত্রী হতে হয় নাকি? তাও তিনি আমাদের ভাই! বলেছেন, শুনে মজা লেগেছে, আনন্দ লেগেছে৷ এবার একসাথে বলবো!'

১২৮৪ পঠিত ... ১৩:৩০, ডিসেম্বর ০৫, ২০২১

Top