দেশ ও জাতিকে মেরুদণ্ড দিবসের শুভেচ্ছা জানালেন 'সম্মিলিত ভিসি জোট'

৩১৩ পঠিত ... ২০:৩৬, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

'নৈতিকতা ভুলুন, মেরুদণ্ড সোজা রাখুন' স্লোগানে আজ সারাদেশের ভিসিগণ যার যার অবস্থান থেকে মেরুদণ্ড সোজা রেখে সিনা টান টান করে পালন করেছেন বিশ্ব মেরুদণ্ড দিবস। প্রভোস্ট, প্রক্টর, ডিনসহ বাকি সবাইকে জানিয়েছেন মেরুদন্ড দিবসের শুভেচ্ছাও। মেরুদণ্ড দিবসের এক বিশেষ সভায় মেরুদন্ডের যত্নে করণীয় ও মেরুদণ্ড রক্ষায় বর্জনীয় বিষয় নিয়ে বিশেষ আলোচনা করেন তারা। শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি দিয়েছেন অনেক দিক-নির্দেশনাও।

মেরুদন্ড সোজা রাখতে করণীয় শীর্ষক নিজের বক্তৃতায় প্রভোস্ট-প্রক্টরদের উদ্দেশ্যে একজন ভিসি বলেন, 'মেরুদণ্ড সোজা রাখার প্রক্রিয়া অনেকটা বৃষ্টি ও ছাতার সাইন্সের মতো। কথিত আছে, বৃষ্টি যেদিক থেকে আসে ছাতা সেদিকেই ধরতে হয়। তবে মেরুদণ্ড সোজা রাখায় ছাতাকে ব্যবহার করতে হবে দৃষ্টি আটকানোর কাজে। ক্ষমতাবান বৃষ্টিকে আসতে দিতে হবে, তান্ডব চালাতে দিতে হবে, তান্ডব চালিয়ে পরিষ্কার করতে দিতে হবে সব প্রতিক্রিয়াশীলদের। এরপর নিজের সব দোষ চাপিয়ে দিতে হবে ছাতার উপর। বলতে হবে, কালো ছাতায় বাধায় অন্ধকারে দেখিনি কিছুই।'

অন্য একজন নিজের বক্তৃতায় বলেন, 'মেরুদণ্ড সোজা রাখতে চিনতে হবে ক্ষমতা। পাবলিক রিদম নয় বুঝতে হবে ক্ষমতার রিদম। হুদাই কোন এক মান্ধাতা আমলের কোন এক জোহা স্যারের প্রাচীন, ঘুঁণে ধরা, উদাহরণ ও মতবাদে আটকে থাকলে চলবে না। যদি ক্ষমতার রিদম না বুঝে ক্ষমতার বিরুদ্ধে ধরতে যান ছাতা, তাহলে ছাতা টানিয়েই থাকা লাগবে। বউ-বাচ্চাদের নিয়ে এমন যাঁতাকলে সেধে সেধে কেন পড়বেন? হ্যাঁ, এটাই মেরুদণ্ড।'

'মেরুদণ্ড সোজা রাখতে বর্জনীয়' শীর্ষক আলোচনায় অন্য এক ভিসি বলেন, 'মেরুদণ্ড সোজা রাখার জন্যই কখনো কখনো মেরুদণ্ডকে বাঁকা করতে হবে। মেরুদণ্ডকে বাঁকা করে, শরীরকে উপবৃত্তাকার আকৃতিতে বাকিয়ে বিনাবাক্যে মাথাটাকে ডানে কাত করে মেনে নিতে হবে সব। পাঠাতে হবে অবৈধ চিরকুট।'

মেরুদণ্ডের ক্ষমতা প্রদর্শনের কথাও বলেন কেউ কেউ- 'একটা চেয়ার পেয়েছেন, হোক না কারো ছায়ায়, ক্ষমতা তো পেয়েছেন। তবে কেন হবেন না ইচ্ছাধারী নাগিন? করুন এবার যা মন চায় তা! কাঁটুন, বহিষ্কার করুন কিংবা গর্ব করুন ছা-ছমুছা-সিঙারা নিয়ে। স্নেহ আদরে ভরিয়ে দিন বাপতুল্য সন্তানদের পকেট। মেরুদণ্ডের যত্নে পুষ্টিকর খাবার খেতে ভরুন নিজের পকেটও।'

উল্লেখ্য, ভিসিদের মেরুদণ্ড সোজা না, যারা এমনটা ভাবেন তাদের সোজাসাপ্টা জবাব দিতে চেয়ার থাকা সত্ত্বেও তারা সবাই দাঁড়িয়ে থেকেই পুরো অনুষ্ঠান শেষ করেন। এই সময় দর্শক সারিতে থাকা প্রভোস্ট, প্রক্টর, ডিনসকলও দাঁড়িয়ে ভিসিদের দিক-নির্দেশনা ও জ্ঞানগর্ভ আলোচনা শুনেন। তবে রকিং চেয়ারে বসে দোল খেতে খেতে বক্তৃতা শুনতে দেখা যায় ভিসি জোটের মেরুদণ্ড সোজা রাখাতে ঋণ দেয়া মেরুদণ্ড-মহাজনদের।

৩১৩ পঠিত ... ২০:৩৬, অক্টোবর ১৬, ২০১৯

Top