হেলমেটের কারণে যে জীবনটা রক্ষা পেলো

১৪৬ পঠিত ... ১৭:২২, জুন ৩০, ২০২৪

13 (14)

তখন মাত্র এমবিবিএস শেষ করেছি। বাসা থেকে বিয়ের কথা চলছে৷ পাত্রী দেখতে গেলাম অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ সেটিং-য়ে। সুন্দরী পাত্রীকে আমাদের পছন্দ হলো ঠিকই, কিন্তু আমাকে, মূলত আমার পেশাটা তাদের পছন্দ হলো না। এছাড়া মাত্র তখন এমবিবিএস পাশ করেছি, এরপর কী করব না করব—এ নিয়েও কোনো নিশ্চয়তা নেই। আমাদের বিয়েটা হলো না।

এরপর এফসিপিএস পার্ট ১ পাশ করে জেনারেল সার্জারিতে ট্রেনিং-এ ঢুকলাম। বিয়ে নিয়ে তখনও তেমন কিছু ভাবছিলাম না।

প্রায় পাঁচ বছর কেটে গেছে। একদিন হঠাৎ ওই মেয়েটার সাথে দেখা এক ট্রাফিক সিগন্যালে, তার হাজব্যান্ডের সাথে। ব্র‍্যান্ড নিউ অডি গাড়িতে ছোটো ছোটো দুটি ছেলেমেয়েও আছে। আমি তখন পেট্রোল শেষ হয়ে যাওয়া পুরনো মোটরসাইকেলটা স্টার্ট দেবার চেষ্টা করছিলাম। মেয়েটা গাড়ির ভেতর থেকে কিছুক্ষণের জন্য আমার দিকে তাকালো।  

তবে আমি শিওর আমি তাকে চিনলেও সে আমাকে চিনতে পারেনি, কারণ আমার মাথায় পরা ছিলো রক্ষাকবজ, হেলমেট। জীবনে প্রথমবারের মতো হেলমেটের গুরুত্ব আমার চোখে স্পষ্ট হয়ে ধরা দিলো। আপনারাও হেলমেট পড়ুন, নিজেকে নিরাপদ রাখুন।

(ইংরেজি হতে অনুবাদকৃত)

 

১৪৬ পঠিত ... ১৭:২২, জুন ৩০, ২০২৪

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top