সত্যিই সেলুকাস...

১৮৩ পঠিত ... ১৫:০০, এপ্রিল ০১, ২০২৪

30 (4)

পত্রিকায় মাত্রই পড়লাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে চৌর্যবৃত্তি ও যৌন নিপীড়নের জন্য তদন্ত কমিতি গঠিত হয়েছে। এক শিক্ষক আরেকজনের গবেষণা চুরি করে পিএইচডি করে ফেলেছেন! আরেক শিক্ষক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করেই চলছেন।

তো, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত শিক্ষকদের চুরি আর ধর্ষণ নিয়ে!

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত শিক্ষকদের যৌন নিপীড়ন আর ছাত্রীর আত্মহত্যা নিয়ে।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত ভিসির আগমন উপলক্ষে নাচন-কুদন নিয়ে!

বুয়েট ব্যস্ত রাজনীতি থাকবে কি থাকবে না এই নিয়ে!!

জাহাঙ্গীরনগর ব্যস্ত ছাত্র নেতাদের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে! 

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত টেন্ডারবাজি নিয়ে!

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ব্যস্ত ফুলের তোড়ার সাথে ছবি তুলতে।

পাবনা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত ঘুষ খেয়ে চাকরি দেয়া নিয়ে!

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ব্যস্ত ঘুষ খেয়ে কেন চাকরি দিল না সেটা নিয়ে!

অথচ আমদের শেখানো হয় বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে শিক্ষা ও গবেষণার জায়গা! সেই জায়গা যে অনেক আগেই চুরি, ধর্ষণ, ঘুষ, যৌন হয়রানি আর নাচন-কুদন নিয়ে নিয়েছে! কেউ বুঝতেও পারছে না।

ও আচ্ছা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে চুরি করে পিএইচডি করার অভিযোগ উঠেছে। উনাদের একজনকে সেদিনই দেখলাম টেলিভিশনে গিয়ে বয়ান দিচ্ছিলেন- 'দেশে পড়াশুনার মান অনেক কমে যাচ্ছে!'

আর যিনি যৌন নিপীড়ন করছিলেন। তিনি অবশ্য টকশোতে গিয়ে সেদিনই বলেছেন, 'দেশে নারীরা মোটেই নিরাপদ নয়।'

বাংলাদেশ একেই বলে!

১৮৩ পঠিত ... ১৫:০০, এপ্রিল ০১, ২০২৪

আরও eআরকি

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

কৌতুক

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top