বুড়িগঙ্গার বদলে বস্তাভরে টেমস নদীতে ফেললে খুব উপকার হতো: একান্ত সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশি সুশীল

২৫৫ পঠিত ... ১৭:২৮, মে ২৪, ২০২৩

Tems-nodi

বুদ্ধি দেওয়া প্রসঙ্গে সম্প্রতি আলোচনায় এসেছেন ঢাকা দক্ষিণের মেয়র। বুদ্ধি দিতে আসা সুশীলদের তিনি বস্তায় ভরে বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেওয়ার হুমকি দেওয়ার পর নড়েচড়ে বসতে শুরু করেছে নিখিল বাংলা সুশীল সমাজ। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এক সুশীল ভাইয়ের কাছে তার অনুভূতি জানতে আমাদের প্রতিবেদক তার বাসায় গেলে দেখা যায় তিনি বস্তায় ঢুকে বসে আছেন। সে অবস্থাতেই আমাদের প্রতিবেদকের সাথে তার কথোপকথন তুলে ধরা হলো নিচে।

প্রতিবেদক: ভাই এখনই বস্তায় ঢুকে বসে আছেন কেন?

সুশীল: আরে আগেভাবেই প্রস্তুত হয়ে থাকি। বলা তো যায় না মুখ ফসকে কখন কী বুদ্ধি দিয়ে ফেলি আর মেয়র সাহেব বস্তা ছাড়াই আমাকে নদীতে ফেলে দিক।

প্রতিবেদক: এত ভয়ের কিছু নাই, আমাদের মেয়র সাহেব ভালো মানুষ। এই যে দেখেন কয়েকদিন আগে সাতমসজিদ রোডের জঙ্গল সাফ করে কেমন সুন্দর ফুলের বাগান বানিয়েছেন।

সুশীল: মানুষ ভালো সে বিষয়ে কোনো দ্বিমত নাই। কিন্তু, সতর্ক হয়ে থাকতে হয় ভাই এসব আপনি বুঝবেন না।

প্রতিবেদক: আচ্ছা বুড়িগঙ্গায় ফেলে দেওয়া প্রসঙ্গে যদি কিছু বলতেন?

সুশীল: দেখেন বুদ্ধি দেওয়াই আমাদের কাজ। বুদ্ধি আমরা দিবো কিন্তু বুড়িগঙ্গার বদলে যদি টেমস নদীতে ফেলার ব্যবস্থা করতেন তাহলে খুব ভালো হতো। বস্তার ব্যবস্থা তো আমরাই করে দিচ্ছি পাশাপাশি সাঁতার শেখাও হয়ে গিয়েছে। এখন যদি এই উপকারটুকু উনি করেন চান্সে বিলেত ঘোরার শখটাও পূরণ হয়ে যাবে।

প্রতিবেদক: আপনাদের আর কী কী চাওয়া আছে মেয়র সাহেবের কাছে?

সুশীল: ইয়ে মানে আমাদের সাথে যদি আমাদের বউ-বাচ্চাকেও নদীতে ফেলার একটা ব্যবস্থা করা হয় তাহলে পুরো পরিবারের একসাথে একটা নদী ভ্রমণ হয়ে যাবে।

২৫৫ পঠিত ... ১৭:২৮, মে ২৪, ২০২৩

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top