যা শালারা, এসি খা: একান্ত সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশি গাছ

৭৮৪ পঠিত ... ১৫:৩৭, এপ্রিল ১৮, ২০২৩

Gacher-sakkhatkar

সাম্প্রতিক গরম নিয়ে গাছ সমাজের মারজুক ফ্যান এক বাংলাদেশি গাছ ভাইয়ের সাথে সাক্ষাৎকার নিয়েছেন আমাদের বৃক্ষপ্রেমী প্রতিবেদক। সেটিরই চুম্বক অংশ রইলো আজ আপনাদের জন্য।

প্রতিবেদক: বড়ভাই, ফ্রি নাকি?

গাছ: কামের কথা ক, নাকি কাটাকাটি শুরু করবি?

প্রতিবেদক: আরে না ছি! ছি! ভাই কী যে বলেন? আপনারা ছাড়া তো আমরা অচল ।

গাছ: ওওওওওওওওও আচ্ছা, তাইলে প্রতিদিন যে আমার ভাই-ব্রাদার সাফ কইরা ফেলতাছোছ ঐগুলা কী?

প্রতিবেদক: ইয়ে মানে ভাই, আমরা উন্নয়নের মহাসড়কে আছি তো, এমন মহাসড়ক তৈরি করতে গেলে একটু আধটু স্যাক্রিফাইস তো করতেই হয়।

গাছ: তোগো এই লাড়ালাড়ি স্বভাবটা আর গেলো না। স্যাক্রিফাইস কইরা দেখলি তো কেমন গরম পড়ছে এবার। দেশটারে যা বানায় ফেলছোছ আর বছরখানেক পর তোগো কারোই আর বাচ্চা হবে না, বাচ্চা হবে না।

প্রতিবেদক: ভাই আপনারা বিবাহিত জীবন নিয়ে কিছু বলেন?

গাছ: ধুর ব্যাটা আর বিবাহিত জীবন! গত সপ্তাহেই আমার বউটারে সিটি কর্পোরেশনের লোক আইসা কাইটা নিয়া গেলো। এইখানে নাকি ডিভাইডার বানাইবো, গাছ রাইখা ডিভাইডার বানানো যায় না। তোরা আর মানুষ হবি না, যা শালারা তোরা এসিই খা। নদীগুলারে খাইছোছ, শহরটারে ময়লার ভাগাড় বানায়ে রাখছোছ, রাস্তায় গাড়িঘোড়া খালি বাড়তাছেই আর শেষমেশ আমাগো নির্বংশ কইরা এরপর জোব্বা পইরা মরুভূমিতে ঘুরিস।

প্রতিবেদক: কিন্তু ভাই শহরে তো জায়গা কম মানুষ বেশি এগুলো তো একটু মেনে নিতেই হবে।

গাছ: ডিসেন্ট্রালাইজেশন বইলা একটা কন্সেপ্ট আছে দুনিয়াতে জানোস তো। ইন্ডাস্ট্রিগুলারে অন্য শহরে চাপা, সরকারি কিছু অফিস অন্যন্য শহরে নিয়া যা, মাথার ভেতরে গু ছাড়া তো কিছু নাই, ত্যালফ্যাল ছাড়া খাওয়ার অভ্যাস কর বুঝলি মাথায় একটু হইলেও বুদ্ধি আইবো।

প্রতিবেদক: সমস্যা নাই ভাই, কালকে ব্যাঙের বিয়ে দিলাম বৃষ্টি আসবেই আসবে।

গাছ: কিছু বলার নাই, তুই আমার সামনে থেকা যা।

৭৮৪ পঠিত ... ১৫:৩৭, এপ্রিল ১৮, ২০২৩

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

স্যাটায়ার


Top