BBA থেকে গুলিস্তান

২৬৩ পঠিত ... ১৬:৫৭, মার্চ ২৫, ২০২৪

20 (3)

গুলিস্তানে সকালের দিকে সাধারণত ফুটপাতের সকল দোকানপাট বন্ধ থাকে। খুলতে খুলতে ১২-১টা। কিন্তু প্রতিদিন অফিসে আসার সময় এক পাগলা মলম বিক্রেতাকে দেখি সাড়ে ৮টা থেকে মাইক হাতে নিয়ে মলম বিক্রি করে। কৌতুহল থেকে আজকে জিজ্ঞেস করলাম—ভাই, গুলিস্তানের ফুটের বেচাবিক্রির পিক টাইম মূলত বিকেল থেকে, কিন্তু আপনি সকাল সাড়ে ৮টা থেকে কেন শুরু করেন?

উনি আমাকে জানালেন, এটা ওনার মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজির একটা অংশ।

কৌতুহল হওয়ায় জানতে চাইলাম, বিষয়টা কী?

উনি বললেন—গুলিস্তান, নবাবপুর, সদরঘাট এলাকায় মূলত অনেক পাইকারি আইটেমের দোকান ও মার্কেট আছে। আর এইসব দোকানে কাজ করা বেশিরভাগ কর্মী ঢাকায় ব্যাচেলর। থাকে অনেক কম টাকার বাসায়। এক রুমে ৫-৬ জন। স্যাঁতস্যাঁতে পরিবেশ। ফলে বিশাল এই জনগোষ্ঠীর জীবনের একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ হচ্ছে চুলকানি, দাউদ, একজিমা।

জিজ্ঞেস করলাম—এইটার সাথে আপনার সকালে বিক্রি করার সম্পর্ক কী? বিকালেও তো বিক্রি করতে পারেন?

উনি বললেন—দোকানের এইসব কর্মী সারাদিন কাজ করে। ব্যস্ত থাকায় চুলকানোর সময় পায় না। এরা চুলকায় মূলত ডিউটির পরে। বাসায় গিয়ে প্যান্ট খোলার পর চুলকানি শুরু হয়—নানান গতিতে, নানান ঢংয়ে, নানান স্টাইলে সারারাত চলে চুলকানি। এরপর সকালে যখন গোসল করতে যায়, তখন শুরু হয় জ্বলা। জ্বলতে জ্বলতে ওরা এই এলাকায় আসে ডিউটির জন্য। তখন আমি ওদের সামনে তুলে ধরি এই পাগলা মলমের গুণ। এই এলাকার দোকানপাট সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে খোলে। ফলে এটাই আমার পারফেক্ট টাইমিং। আমি এইটার নাম দিয়েছি সাকসেস আওয়ার। সাকসেস রেট মোটামুটি ৭০% এর কাছাকাছি।

আমার সন্দেহ হলো। কোনো অর্ডিনারি মানুষের মাথায় এই ধরনের মার্কেটিং স্ট্যাটেজি আসার কথা না। সন্দেহ নিয়ে জিজ্ঞেস করলাম—ভাই, আপনি কি BBA'র স্টুডেন্ট?

জানালেন—উনি BBA'র এর স্টুডেন্ট। তানভীর সুলতান এমবিএ-এর প্রতিষ্ঠানে ৬ মাস আনপেইড ইন্টার্নশিপ করেছেন। এরপর আরও ৬ মাস আনপেইড ইন্টার্নশিপের অফার পান। কিন্তু সেটা না করে উনি ভাবলেন, নিজে কিছু করবেন। সেই ভাবনা থেকেই শুরু। গুলিস্তান, নবাবপুর, সদরঘাট, বাংলাবাজার, ইসলামপুর, সাভার ইপিজেড, গাজীপুরের গার্মেন্টস এরিয়াসহ ঢাকার নানান পয়েন্টে ওনার ভ্রাম্যমান বিক্রয়কর্মী আছে। গুলিস্তান এলাকাটা উনি দেখেন। পাশাপাশি একটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ইভিনিং MBA করছেন।

কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে BBA করেছেন সেটা বলতে চাননি তিনি। কিন্তু চেহারা আর বুদ্ধি দেখে আমার মনে হইছে NSU.

চেনেন নাকি কেউ?

২৬৩ পঠিত ... ১৬:৫৭, মার্চ ২৫, ২০২৪

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি

স্যাটায়ার


Top