আড়ং-এর ট্রায়াল রুম থেকে বাড়ি পর্যন্ত সুড়ঙ্গ খুঁড়লো ময়মনসিংহের তাসনিম

৩৭২ পঠিত ... ১৮:২১, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২৩

আড়ং-এর

বর্তমানে ‘সুড়ঙ্গ’ খোঁড়ার কনসেপ্টটি সাধারণ মানুষের কাছে একদম ইউনিক কিছু নয়। অ্যাডভেঞ্চার-থ্রিলার সিনেমার গল্পের মতো শোনালেও বাস্তবে এ ধরনের কর্মকাণ্ড হরহামেশাই ঘটে থাকে। কিছুদিন আগেও মুক্তি পেয়েছে আফরান নিশো অভিনীত, রায়হান রাফির সিনেমা 'সুড়ঙ্গ'। তবে এবার অবিশ্বাস্য কাহিনী সামনে এলো এই সুড়ঙ্গ নিয়ে। না, কোনো ব্যাংক বা জুয়েলরি শপের নিচে নয়, আড়ং-এর ট্রায়াল রুমের নিচ থেকে বাসা পর্যন্ত সুড়ঙ্গ খুড়লেন ময়মনসিংহের পিয়া তাসনিম (২৫) নামের এক তরুণী!  

জানা যায়, গতকাল শনিবার রাত ৮টায় তাসনিম ট্রায়াল রুমে ঢুকে আর বের হননি। অনেকক্ষণ সময় কেটে যাবার পর আড়ং ময়মনসিংহ আউটলেটের এক সেলসম্যান প্রথম বিষয়টি লক্ষ্য করে বাকিদের জানান। এ সময় বাইরে থাকা অফিশিয়ালসরা ভেতরে কোনো দুর্ঘটনা আশঙ্কা করে ওই ট্রায়াল রুমের দরজা ভাঙেন। এরপর দেখা যায়, সেই অবিশ্বাস্য দৃশ্য। ম্যানহোলের ঢাকনার মতো গর্ত করে একটি সুড়ঙ্গ কাটা হয়েছে সেখানে। পুলিশ অফিসারের নির্দেশে কামরুজ্জামান নামের এক সেলসম্যান সেই সুড়ঙ্গতে সাথে সাথেই নেমে পড়েন। জানা যায়, এই সুড়ঙ্গের শেষ মাথা তাসনিমের বেড রুমে।

এ ঘটনার পর তাসনিমকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে সিসিটিভি ফুটেজ থেকে দেখা যায়, সপ্তাহে চারদিন আড়ং-এ আসতেন তিনি, প্রতিদিন অন্তত ৭-৮টি জামা নিয়ে ট্রায়াল রুমে ঢুকলেও বের হতেন ৩টি নিয়ে। তিনি এত সূক্ষ্মভাবে এ কার্যক্রম চালিয়েছেন যে কখনোই কারও সন্দেহ হয়নি তার প্রতি৷ এমনকি সুড়ঙ্গ খোঁড়ার জন্য তিনি ব্যবহার করেছেন অত্যাধুনিক ড্রিলিং মেশিন EK-86 যা কাজ করে সাইলেন্ট গানের মতোই। দেয়ালের ভেতর থেকে সরবারাহ করেছেন বিদ্যুৎ।

ব্যাকগ্রাউন্ড ঘেটে জানা যায়, বাবা রিকশাচালক ও মা গৃহিণী হলেও পেশায় তাসনিম একজন টিকটকার। নিয়মিত নতুন নতুন জামা পড়ার আকাঙ্খা থেকেই তিনি এমন ঘটনা ঘটাতে পারেন বলে ধারণা করছেন  ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ। এখন পর্যন্ত নিখোঁজ হওয়া আড়ং-এর শাড়ির সংখ্যা ৬৯টি, কুর্তি ৫৩টি, তাগা ৩৯টি, সালোয়ার কামিজ ২৬টি, ওড়না ১১টি, ব্লাউজ পিস ২টি। এছাড়াও বিভিন্ন সময় জুতা এবং পার্সও হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি৷ তবে বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, তার বেডরুম থেকে উদ্ধার করা হয় Gentle park, Rich man, Sailor, Spark Gear, দেশালের বিপুল জামা কাপড়। ধারণা করা হচ্ছে, আড়ং-এর আগে তিনি নিয়মিত এসব আউটলেটে যেতেন।

এ ঘটনার পর থেকে শো রুম গুলোর ট্রায়াল রুম বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। শুধু তাই নয়, তাসনিমকে ধরিয়ে দেবার জন্য ৫ লাখ টাকা ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ জেলা পুলিশ। আপনাদের কারও কাছে কোনো তথ্য থাকলে এগিয়ে আসার আহ্বান  রইলো। শুধু পাঠক হিসেবে নয়, রাজপথের সহযোগী হিসেবেও সাথে থাকুন..   

৩৭২ পঠিত ... ১৮:২১, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২৩

Top