অন্তিম সময়ে পানি খেতে হাসপাতালের লিফটে থাকবে পানির ফিল্টার

৫৩ পঠিত ... ১৬:৪৩, মে ১৩, ২০২৪

32 (5)

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিফটে আটকা পড়ে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। জানা গেছে গতকাল ১২ মে এই রোগী অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির জন্য আসে। তাকে কিছু পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে হাসপাতালের হৃদরোগ বিভাগের নেয়ার কথা বলা হয়। লিফটে করে নেয়ার পথে লিফট বন্ধ হয়ে যায়, প্রায় ৪৫ মিনিট আটকে পর রোগী মারা যায়। এই সময়ে লিফটম্যানদের কল করলেও তারা কোনো ধরনের সাহায্য করেনি। শেষমেষ ৯৯৯-এ কল দিলে ফায়ার সার্ভিস এসে তাদের উদ্ধার করে।

এই ঘটনার পর উগান্ডার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় পুরো স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। জানা গেছে, পরিকল্পনার অংশ হিসেবে শুরুতেই হাসপাতালের প্রতিটি লিফটে বিশুদ্ধ পানির ফিল্টার বসানো হবে।

পানির ফিল্টারই কেন? জানতে চাইলে উগান্ডার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এটি একটি মানবিক সিদ্ধান্ত। লিফটে আটকা পরে রোগী মারা যেতেই পারে, কিন্তু মৃত্যুর আগে মুখে একটু পানি দিতে না পারলে আসলে দেশ হিসেবে আমাদের সফলতা দেখানোর জায়গাটা কোথায়! সেজন্য আমরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এবার হাসপাতালের লিফটে কোনো রোগী মুখে পানি দেয়া ছাড়া অন্তত মারা যাবে না।

একটি উন্নয়নশীল ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে এই পানির ফিল্টার বিদেশ থেকেই কিনবেন বলেই জানান এই মন্ত্রী। তিনি জানান, চাইলে উগান্ডা থেকে পানির ফিল্টার কেনা যায়। কিন্তু আমরা কিনবো না। একটা উন্নত দেশ হিসেবে মানুষকে মৃত্যু সময় দেশের পানি খাওয়াবো—এটা তো আসলে মেনে নেয়া যায় না। সেজন্য বিদেশি পানি। বিদেশি ফিল্টার।

জানা গেছে, বিদেশ থেকে পানির ফিল্টার কেনার জন্য মন্ত্রণালয়ের ১০ সদস্যের একটি দল সৌদি আরব যাবেন। এই দলে থাকবেন মন্ত্রী মেয়ে, মেয়ের জামাই, খালাতো ভাই ও এক দুসম্পর্কের ভাতিজা। দলটি সেখানে কয়েকদিন অবস্থান করে পানির ফিল্টার কেনার পর থাকবেন আরও ৫ মাস। এই ৩ মাসে তারা লিফটে আটকে মৃত্যুপথযাত্রী রোগীকে কীভাবে পানি খাওয়াতে হয় তা শিখবেন। 

৫৩ পঠিত ... ১৬:৪৩, মে ১৩, ২০২৪

Top