শেষ ভরসা হিসেবে জাফর স্যারের শরবত থেরাপির অপেক্ষায় বুয়েট শিক্ষার্থীরা

২৭৩ পঠিত ... ১৬:৪৯, এপ্রিল ০৩, ২০২৪

3 (7)

ছাত্রলীগের কতিপয় নেতাকর্মীর অত্যাচারে ২০১৯ সালে বুয়েটের একটি হলে খুন হন বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। এই ঘটনার পর বুয়েটে সাংগঠনিকয় ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ হয়। সম্প্রতি রাতের আঁধারে ছাত্রলীগ বুয়েট ক্যাম্পাসে প্রবেশ ও বুয়েটের ছাত্ররাজনীতি ফিরিয়ে আনার দাবি তোলেন। বুয়েট শিক্ষার্থীরা এই বিপক্ষে অবস্থান নেয়। এই ঘটনার জের ধরে হাইকোর্ট একটি রায়ে জানায়, বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি করা যাবে। এরই মধ্যে গতকাল বুয়েটে ছাত্ররাজনীতি ফিরিয়ে না আনার সিদ্ধান্ত বহাল রাখতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর চিঠি লেখে বুয়েট শিক্ষার্থীরা।

কয়েকদিন ধরে এমন নানান ঘটনাপ্রবাহের পর বুয়েট শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে সারাদেশের মানুষের মনে একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে, কী হবে বুয়েটের? ছাত্ররাজনীতি কি আবার ফিরে আসবে?

এই যখন অবস্থা তখন সম্পূর্ণ ভূয়া একটি তথ্যসূত্র থেকে জানা গেছে, শেষ ভরসা হিসেবে জাফর স্যারের শরবত থেরাপির অপেক্ষায় আছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা মনে করছে, একমাত্র জাফর স্যারের শরবতই পারে ছাত্রলীগকে নিজেদের অবস্থান থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে।

 বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে গেলে বুয়েটের এক শিক্ষার্থী নিজের একটি ফেক আইডি থেকে বলেন, ‘সাস্টের কথা আপনাদের মনে থাকলে জানার কথা, জাফর স্যারের এক শরবত থেরাপি ফরিদ স্যারকে বাঁচিয়ে দিয়েছিলো। আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীরা জাফর স্যারের জাদুর শরবত খেয়ে আন্দোলন থেকে সরে আসে। এরপর এখনও বহাত তবিয়তে আছে ফরিদ স্যার। স্যার একটু চেষ্টা করলেই বুয়েটের ব্যাপারটা সমাধান করতে পারে। ওনার হাতে বানানো শরবত যদি একবার কোনোভাবে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের খাইয়ে দেয়া যায় তাইলেই কেল্লাফতে।’

শিক্ষার্থীরা একটি ভুয়া বার্তায় জাফর স্যারের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘শরবত দরকার হইলে আমরা বানাইতেছি, আপনি আসেন স্যার।’

২৭৩ পঠিত ... ১৬:৪৯, এপ্রিল ০৩, ২০২৪

Top