ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের মাঝে বাড়ছে  সাইকোলজিস্ট হওয়ার প্রবণতা

৫৫৫ পঠিত ... ১৭:৩২, জানুয়ারি ২২, ২০২৪

419531660_920171929919025_4996627767469759035_n

সাবজেক্ট সুইচ করার উদাহরণ প্রচলিত আছে অনেক আগে থেকেই। ডাক্তার হয়ে যান আমলা, বিবিএ স্নাতক হন পুলিশ, আর্মির চাকুরি ছেড়ে কেউ হয়ে যান ব্যবসায়ী পর্যন্ত। তবে এ সংখ্যা ২০ জনে ১ জন। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে দেশের ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের ভেতর হঠাৎ করে এসেছে আমূল এক পরিবর্তন। তারা সবাই সাইকোলজিস্ট হবার দিকে ঝুঁকছেন। কেন হঠাৎ সবাই এই নির্দিষ্ট পেশার দিকেই ঝুঁকছেন এ বিষয়ে বিস্তর গবেষণা চললেও নির্দিষ্ট কোনো উপাত্ত হাতে আসেনি।

ক্লাস শিক্ষকেরা জানান, ইদানীং কেউ ল্যাব ক্লাসে আসে না, মনোযোগ দিয়ে ক্লাস করে না। সবাই স্ব সাবজেক্টের নিচে লুকিয়ে লুকিয়ে সাইকোলজির বই পড়ে। এ হিসাব মেলানো ভীষণ দুষ্কর হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে অনেকেই সাইকোলজিস্ট হিসেবে সমাজে ভূমিকা রাখছেন বলেও জানা যাচ্ছে। লাইফসামার হাসপাতালে দেখা হয় এমনই এক ইঞ্জিনিয়ার কাম সাইকোলজিস্টের সাথে।

হিয়াইয়া আনিম নামের এই সাইকোলজিস্ট জানান, ‘আমি ছোটবেলা থেকেই সাইকোলজিস্ট হতে চেয়েছি। বাসার চাপে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়লেও ফাঁকে ফাঁকে সাইকোলজি পড়েছি, অনলাইনে ফ্রি কোর্স করেছি, ইউটিউবে ভিডিও দেখেছি। এখন আমি সফল ইউটিউবারের পাশাপাশি একজন সাইকোলজিস্ট। তবে এ জার্নিটা এতো সহজ ছিলো না। মূলত দু'টি বাচ্চা নেবার পরই আমার জটিলতা কমতে শুরু করে এবং চেম্বার জমে যায়। জীবন যখনই কঠিন লাগা শুরু হবে, দুই একটি বাচ্চা নিয়ে ফেলবেন...’

আনিমের এই বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হয় হাজার হাজার তরুণ। তবে তাদের চেয়েও এক ধাপ এগিয়ে আছে বুয়েট সহ দেশের ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। শোনা যাচ্ছে, খুব শীঘ্রই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে  ইঞ্জিনিয়ারিং এর পাশাপাশি যোগ হচ্ছে নতুন বিষয়  সাইকোলজিও।

৫৫৫ পঠিত ... ১৭:৩২, জানুয়ারি ২২, ২০২৪

Top