রাজশাহীর হাসানকে ছিনতাই করে শীতের কাপড়ের দোকান দিলেন শামীম

৯৯ পঠিত ... ১৭:৪০, জানুয়ারি ১৮, ২০২৪

419926152_1094695491949156_5257420181121702714_n (2)

ছিনতাই করে রাতারাতি বড়লোক হবার নজির আমাদের আগেই আছে। তবে তা কোনো মামুলি ছিনতাই নয়। একরাতের ভেতর বেশ কয়েকটি আইফোন, ম্যাকবুক কিংবা সোনা ছিনতাই করতে পারলেই এ আর অসম্ভব কিছু নয়। তবে শুধুমাত্র একজন মানুষকে ছিনতাই করে বড়লোক বনে যাবার সঙবাদ এবারই প্রথম। এই ইতিহাসের সাক্ষী হলেন পুরান ঢাকার বিখ্যাত ছিনতাইকারী শামীম রেজা (৩২)।

ইআরকিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শামীম বলেন, ‘এই জীবনে প্রায় ৩২০০-র ওপরে ছিনতাই করছি। টাকা পয়সা, ল্যাপটপ, সোনা-টোনা থেকে শুরু করে বদনাও বাদ যায় নাই। আল্লাহর রহমতে গ্রীনরোডে একটা বাড়ি আছে, পূর্বাচলে ফ্ল্যাট কিনছি, গ্রামেও বসতবাড়ি করছি। তবে এইগুলা করতে সময় লাগছে, রাতারাতি হয় নাই কিছু। কিন্তু আশ্চর্য ব্যাপার ঘটলো সেইদিন। আত্মীয়ের বাড়ি বেড়াইতে গেছিল্ম রাজশাহী। এক লোককে দেখে ছিনতাইয়ের নেশা মাথায় চেপে বসলো। ছুরি ধরে বললাম কী আছে বাইর কর ব্যাটা। এরপরই ঘটলো ম্যাজিক…’

শামীম জানান, রাজশাহীর হাসান ছেলেটির শরীর থেকে তিনি ৩২ টি শীতের হালকা সোয়েটার, ৫ টি ওভারকোট, ৩ টি ব্লেজার, ১২ টি প্যান্ট, ৭ টি ট্রাউজার, ১২ টি মাফলার, ১০ টি শীতের চাদর, হাত ও পায়ের ৫০ জোড়া মোজাসহ ছিনতাই করেছেন আরও অনেক কিছু। তার ভাষ্যমতে, 'খোদার কসম বললাম সব তার শরীল থেকে নিছি। কোনো হামলা-হুমলা করি নাই। তবে সবশেষে শুধু তার জাইঙ্গা আর সেন্টু গেঞ্জি অবশিষ্ট ছিও, দয়াপরবশ হয়ে তাকা হাসপাতালে পাঠায়া দিছি...'

এত কাপড় চোপড় কী করবেন তার আগ পিছ না ভেবে একটা মেন'স থ্রিফট শপও খুলেছেন শামীম। প্রথম রাজশাহীর ভিকটিমকে শ্রদ্ধা জানিয়ে দোকানের নাম দিয়েছেন 'হাসান থ্রিফট শপ'। শামীম খোদার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, 'এতদিন নিজের বাড়ী গাড়ি ছিলো, আজ দোকানও দিলাম। সবই তার দয়া।

তবে তার এই সাফল্য খুবই অপ্রত্যাশিত। আমরা এখন থেকে রাজশাহী, ঠাকুরগাঁও, বগুড়া এসব জায়গায় ক্ষ্যাপ মারবো...

৯৯ পঠিত ... ১৭:৪০, জানুয়ারি ১৮, ২০২৪

Top