ঝকঝকে রোদ ওঠায়, ব্যঞ্জনবর্ণের দিকে ঝোঁক বাড়ছে ঢাকাবাসীর

৩৫৩ পঠিত ... ১১:৩৯, অক্টোবর ২৬, ২০২২

Benjonborno

গত পরশু সোমবার ছিলো দম্পতিদের জন্য এক স্বর্ণসুখের দিন। রিমরিমে শীতল আবহাওয়া,কখনো গুড়ি গুড়ি, কখনো ভারী বর্ষণ—সব মিলিয়ে এমন চমৎকার আবহাওয়া অনেকদিন জোটেনি ঢাকাবাসীর কপালে। কেউ কেউ তো আবার বংশবৃদ্ধির প্রয়োজনে ঘূর্ণিঝড় উপলক্ষে ছুটিও নিয়েছিলেন। সমুদ্র উপকূলবাসীর জন্য দুর্যোগময় আবহাওয়া হলেও কথায় বলে কারও পৌষ মাস, কারো সর্বনাশ। ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং এর জন্য হলেও দম্পতিরা একে অপরকে কাছে পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত।

তবে দুঃখজনক হলেও সত্যি এক গোপন জরিপে দেখা গেছে, দম্পতিদের সেই স্বরবর্ণের প্রতি আকর্ষণ ছিলো শুধুই সীমিত সময়ের জন্য। গতকাল কিছুটা আমেজ থাকলেও আজ দুপুর থেকে রোদ ওঠার সাথে সাথে হারিয়ে গেছে তাদের সেই মিষ্টি মধুর সময়ও।

এ ব্যাপারে ইশরাত নামের এক ভদ্রমহিলার সাথে কথা বলি আমরা। বিড় বিড় করে ব্যাঞ্জনবর্ণ পড়তে পড়তে তিনি বলেন, হাসিখুশির দিন শেষ। এখন নাকের পানি আর চোক্ষের পানি। অ, আর দিন শেষ এখন ক-এর পানি আর খ-এর পানি।‘

দেশের বইয়ের দোকানগুলোতেও দেখা গেছে ভীড়। ব্যাঞ্জনবর্নের বই কিনতে আসছেন অনেকে। এমনই একজন বলে, ‘রোদ উঠে গেছে তোমাদের নগরীতে! হারিয়ে গেছে আমার স্বরবর্ন।‘

৩৫৩ পঠিত ... ১১:৩৯, অক্টোবর ২৬, ২০২২

Top