কেউ ধারের টাকা ফেরত চাইলে রাফসান দ্য ছোট ভাইয়ের মতো যেসব যুক্তি দেবেন

১০০৭ পঠিত ... ১৮:২৯, মে ১৫, ২০২৪

30 (8)

রাফসান ছোট ভাইয়ের বাবার ঋণখেলাপির টাকা নিয়ে ফেসবুকে চলছে নানান আলোচনা-সমালোচনা। এরই মধ্যে লাইভে এসে বাবার ঋণখেলাপির পক্ষে কথাও বলেছেন রাফসান দ্য ছোট ভাই। রাফসানের এই লাইভ বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, আমাদের দৈনন্দিন জীবনে রাফসানের এই লাইভের গুরুত্ব অপরিসীম। এই লাইভ একটু মনোযোগ দিয়ে দেখলে আপনি জানতে পারবেন, কেউ ধারের টাকা চাইতে আসলে কীভাবে না দিয়ে বেঁচে যাবেন, কী কী যুক্তি দিবেন। চলুন জেনে আসা যাক। লেখাটি বড় বড় ঋণখেলাপিরাও পড়তে পারেন।

১#

টাকা চাইতে আসলেই বলুন, আরে ভাই, আমরা কি পালিয়ে যাচ্ছি নাকি? আমরা তো দেশেই আছি। এভাবে বছর খানেক কাটিয়ে দিতে পারবেন।

২#

ব্যাংককে বা পাওনাদারকে উলটা ফাপরের উপর রাখুন। ধমক দিয়ে বলুন, ‘কত টাকা পান আপনারা আমাকে জানান। আরেহ ভাই, অ্যামাউন্ট না বললে আমি কীভাবে টাকা দিব? কত টাকা দিব?’

৩#

ভিক্টিম কার্ড খেলুন। ব্যাংককে বা পাওনাদারকেই অপরাধি বানিয়ে দিন। রাফসানের মত বলুন, ওরা আমার কাছে পাবে ১ টাকা কিন্তু নিয়ে নিতে চাইছে আমার ১০ টাকার সম্পত্তি। আমি কেন দিব।

৪#

এরপর মাঠে নিয়ে আসুন চেতনা কার্ড। কোনভাবে আপনার বাপের মুক্তিযোদ্ধা, পুলিশ সদস্য, আর্মির সদস্যের পরিচয় সামনে নিয়ে আসুন। জানান, দেশের জন্য আপনার বাপ কী কী করেছে। ঠিকঠাক চেতনা বিক্রি করতে পারলে ঋণখেলাপি জায়েজ করে ফেলতে পারবেন।

৫#

এরপরও যদি কেউ খেলাপি ঋণ পরিশোধের কিংবা ধারের টাকা শোধের চাপ দেয় তাহলে তাদের জন্য মাঠে নামিয়ে দিন আপনার প্রেমিকা, বউ, শুভাকাঙ্খী কিংবা বন্ধুদের। ব্যাংককে ক্রিঞ্চ বলতে পারেন, পাওনাদারকে বলতে পারেন, ewww, tomra eto khet keno?

এভাবেই দিনের পর দিন এক টাকাও পাওনা টাকা শোধ না করে জীবনকে উপভোগ করুন। মাকে অডি গিফট করুন, বাবাকে দুবাই নিয়ে যান। জীবন সুন্দর। লেটস চিল উইথ খেলাপি ঋণ।

১০০৭ পঠিত ... ১৮:২৯, মে ১৫, ২০২৪

Top