কারগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরগরম

৩৩৮ পঠিত ... ১৭:০৬, জানুয়ারি ২৫, ২০২২

Karganda-sorgorom

কাজাখস্তানের কারগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আন্দোলনকে বিভাজিত করার লোকজ কৌশল নিয়েছে টোকায়েভ সরকার সমর্থকেরা। ফেসবুক পিকেটার কালা আজমভের দাবী, অনশনে অসুস্হ ছাত্রকে হাসপাতালে নিতে বাধা দিয়েছে অনশনরত অন্য ছাত্রেরা। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে একজন শিক্ষার্থী সে গুজবকে নাকচ করে দিয়ে বলেছে, আমাদের আন্দোলনের সহযোদ্ধারাই আমার প্রাণ বাঁচাতে হাসপাতালে এনেছে। কাজাখ গোয়েন্দা সংস্হার সাইডকিক ঝুমঝুমস্কি বাজনদারভ কারগান্ডার ছাত্র আন্দোলনের বিরুদ্ধে ফেসবুক প্রচার অব্যাহত রেখেছে।

টোকায়েভ সরকারের মন্ত্রীরা তাদের ফেসবুক পিকেটারদের দেয়া তথ্যে আস্হা রাখছেন। টোকায়েভ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী দীপামানিচকভ অনশনে অসু্স্হ শিক্ষার্থীদের কারগান্ডা থেকে রাজধানী নূর সুলতানে এসে লান্চের পর সচিবালয়ে দেখা করতে বলেছেন। পুলিশের রক্তাক্ত হামলার পরেও অহিংস আন্দোলনে থাকা এই শিক্ষার্থীদের দাবীর মাঝে কাজাখ শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলস্কি হাতেমভ ইগো খুঁজে পেয়েছেন। কারকান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজাখ সরকার যে ১২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে, তা ভিসি গার্মেন্টস্কি ফরিদভের মাধ্যমে খরচ হলে, উন্নয়নের সরকারের স্হানীয় নেতারা উন্নয়নের স্বাদ পাবেন, এমন প্রত্যাশা দেশপ্রেমিকদের।

ওদিকে গত রাতে  কাজাখস্তানের কারগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা উপাচার্য গার্মেন্টসকি ফরিদভের বাসগৃহের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। কাফন পরে মোমবাতি মিছিলরত শিক্ষার্থীদের দেখে জীন বলে ভয় পেয়ে ফরিদভ টেঁসে যায় কীনা,তা নিয়ে আশংকা প্রকাশ করছেন শিক্ষক সমিতির সভ্য আইজাক তুলসিস্টাইন। এর আগে নিখিল কাজাখস্তান গাভী বৃত্তান্ত সমিতির ৩৪ সদস্য ফরিদভের পক্ষে এক বিবৃতিতে বলেন, কারগান্ডার গাভীর বিরুদ্ধে গভীর চক্রান্ত চলছে। টোকায়েভ সরকারের গৃহপালিত বিরোধী দলের সাংসদ ফেরাজস্কি রশিদভ বলেছে, কারগান্ডা কাণ্ডের কুশীলব এখনো সামনে আসেনি। সব আন্দোলনেই “যন্ত্র ঐ একটাই ষড়যন্ত্র” থাকে। টোকায়েভ সরকারের সাইবার যোদ্ধা গ্যাং এর কমান্ডার ধলা এনায়েতভ বলেছে, বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার মধ্যে কাজাখস্তানের পরাজিত শক্তির আস্ফালন দেখি। ল্যান্জা ইজ ভেরি ডিফিকাল্ট টু হাইড, অভার এন্ড আউট।

কাজাখস্তানের টোকায়েভ সরকার সমর্থক ফেসবুক পিকেটার কালা আজমভ লস্করভস্কি প্রশ্ন রেখেছেন, কারগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয় আন্দোলনে প্রায় পাঁচ লাখ টাকার তহবিলে এতো টেকাটুকা কারা দিলো! সরকার সমর্থক পিকেটাররা এই ফান্ডের সোর্স জানানোর দাবী রেখেছে।

আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীরা বলছে, তারা নিজেরা চাঁদা দিয়ে অহিংস আন্দোলনে টিকে থাকার সামান্য রসদ জোগান দিয়ে চলেছে।

টোকায়েভ সরকার সমালোচকরা বলছে, কাজাখস্তানের চোরের খনির চাটার দল পাঁচ লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে, এখন দেশের মধ্যে খরচ হওয়া সামান্য টাকার হিসাব নিতে এসেছে। এদের লজ্জাশরম এতো কম কেন বলতে পারেন!

কাজাখস্তানের উন্নয়ন ঢোলের হিসাব অনুযায়ী সেখানে মাথাপিছু আয় বছরে প্রায় আডাই লাখ। সে হিসেবে কারগান্ডায় মাত্র দু’জন মানুষের বছরের আয় জমা করেছে ছাত্ররা। এ হিসাব শুনে একজন অপেক্ষাকৃত শিক্ষিত সরকার সমর্থক নাম প্রকাশ না করে মন্তব্য করেছে, মধ্যম আয়ের কাজাখস্তানের বিচারে এ টাকা সত্যিই অতি সামান্য।

কাজাখ শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেলস্কি হাতেমভ নিজের ইগো ফেলে শরীরখানি নড়িয়ে কারগান্ডা উড়ে গেছেন আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে শান্তি আলোচনা করতে। আলোচনা এগুলে টোকায়েভ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী দীপামানিচকভ কারগান্ডা সফর করবেন বলে সরকার দলীয় সূত্র জানাচ্ছে। ওদিকে আরেকটি কাজাখ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা সান্ধ্য আইন উপেক্ষা করে ক্যাম্পাসের রাস্তা ঘুরে বলে, মুমিনেরা তাদের বিয়ে করতে চায় না বলে যে মন্তব্য করে ফেঁসে গেছেন উপাছার্য ফরিদভ, সেই মন্তব্যটি এডিট করে প্রচার করা হয়েছে এমন ক্যাঁ কুঁ করে; অবশেষ তিনি ক্ষমা চেয়েছেন। ভিসিলীগ ৩৪-এর সদস্য ‘বিয়ে না হওয়ার আতংকে ভোগা’ বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক  উপাছার্যকে ফোন করে, ফরিদভ ক্ষমা চেয়ে বলেছেন, ‘বিয়ে হবে না মানে? বিয়ের নহর বয়ে যাবে আপনার বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের। তাদেরকে বিয়ে করতে রাজপুত্তুর ঘোড়া ছুটিয়ে আসবে বিসিএসশালের পিএটিসি থেকে, যা আপনার বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশেই অবস্থিত।‘

কারাগান্ডার শিক্ষার্থীরা অনশনে অসুস্থ হয়ে পড়লেও কাজাখ নীতি নির্ধারকদের ছেলে-মেয়েরা পশ্চিমের বেগম পাড়ায় আলিশান প্রাসাদে বসে; পিজ্জা অর্ডার করে খাচ্ছে;  সেই আনন্দে কাজাখ পার্টি ইন পাওয়ারের বেনিফিশিয়ারিরা ভাবছে, কারগান্ডায় অনশন করে  লোকের ছেলে-মেয়ে মরলে আমাদের কী! আমাদের প্রিন্স ও প্রিন্সেসরা আছে মদে-ভাতে।  

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত  কারগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আন্দোলন নতুন মোড় নিয়েছে। ছাত্রদের অনশনের ১৩০ ঘন্টা অতিক্রান্ত। মুমুর্ষূ শিক্ষার্থীদের দেখভাল করছিলো যে মেডিকেল টিম, তারা টোকায়েভ সরকারের অঙ্গুলি হেলনে চলে গেছে। যে মোবাইল ফোন একাউন্টে শিক্ষার্থীরা সামান্য অর্থসাহায্য পাচ্ছিলো কারাগান্ডা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে; তা ব্লক করে দিয়েছে সরকারের ব্লক বিষয়ক মন্ত্রী মুজতভ গব্বারস্কি। আর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার মুখে কিছুটা হাত গুটিয়ে বসে থাকা কাজাখ গোয়েন্দা সংস্থা আবার একটু নড়ে উঠেছে। রাজধানী নূর সুলতান থেকে  তারা তুলে নিয়ে গেছে কারগান্ডার দুই সাবেক ছাত্র নূর মঈনভ আর হাবিবস্কিকে। নূর মঈনভের স্ত্রীর দাবী সাবেক শিক্ষার্থী  হিসেবে বর্তমান শিক্ষার্থীদের কিছু অর্থ সাহায্য পাঠানোতেই তার স্বামীকে গুম করা হয়েছে। টোকায়েভের ফেসবুক পিকেটার কালা আজমভ নূর মঈনভকে কাজাখস্তানের স্বাধীনতার শত্রু হিসেবে চিত্রায়িত করার চেষ্টা করলে তা ব্যর্থ হয়। কালা আজমভ ও ধলা এনায়েতভদের মতো এক পুরুষে প্রগতিশীলের ময়ূর পুচ্ছ লাগানো সাইবদরদের চেয়ে নূর মঈনভ অনেক বেশি প্রগতিশীল এ দাবী সকলের। ওদিকে অবরুদ্ধ ভিসি গার্মেন্টসকি ফরিদভের উন্নয়নের নেশা উঠে গেলে তার এক সাইডকিক নেশাদ্রব্য আনার পথে ধরা পড়ে গেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের হাতে।

৩৩৮ পঠিত ... ১৭:০৬, জানুয়ারি ২৫, ২০২২

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top