ওজন কমানোর সবচেয়ে আরামদায়ক টেকনিক

৩৭৯ পঠিত ... ০৮:০৯, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১
240612553_1206498966426698_7085979766243279192_n (1)
এক বড়ভাইয়ের অফিসে গেছি।
গিয়ে দেখি তার রুমে একটা বিশাল ট্রেডমিল রাখা।
ভাইয়ের স্বাস্থ্য সচেতনতা দেখে খুব ভালো লাগলো।
 
বললাম, ভাই এইটা একটা ভালো কাজ করেছেন। অফিসে কাজ করতে করতে হেঁটে নিতে পারলেন। আমি কিন্তু আইডিয়া ধার নিলাম। আজই অফিসে আমার রুমেও একটা ট্রেডমিল বসাবো।
 
আমার কথা শুনে বড়ভাইয়ের মুখে একটা অদ্ভুত এক্সপ্রেশন দেখা গেলো।
 
সাধারণত ফেসবুকে আমার কোনো লেখা চুরি করে কেউ ক্রেডিট ছাড়া পোস্ট করে দিলে আমার মুখে এরকম এক্সপ্রেশন হয়।
খুব সম্ভবত তার আইডিয়া চুরি করে আমার রুমে ট্রেডমিল বসানোটা মনে হয় বড়ভাইয়ের পছন্দ হচ্ছে না।
 
তাই বললাম, ভাই টেনশন নিয়েন না। আমি এই আইডিয়ার পুরো ক্রেডিট আপনাকে দিবো। আমার রুমে যে ট্রেডমিলটা থাকবে সেটার উপরে প্রিন্ট করে 'আইডিয়া কার্টেসি' হিসেবে আপনার ভালো নাম এবং ডাকনাম দুটোই লিখে রাখবো। কারো আইডিয়া নিয়ে নিজের নামে কিংবা "কালেক্টেড" লিখে চালিয়ে দেওয়ার লোক আমি না।
 
ভাই বললেন, আরে না। তুমি যা ভাবছো ব্যাপারটা তা না।
 
আমি বললাম, ব্যাপারটা তাহলে কী ?
 
বড়ভাই বললেন, সে এক বিরাট রহস্য। বললে তুমি বিশ্বাস করবে না। আমাকে পাগল ভাববে।
 
আমি বেশ আগ্রহ পেলাম। বললাম, ভাই খুলে বলুন তো।
 
ভাই বললেন, হ্যা এটা ঠিক, ট্রেডমিলটা এনেছিলাম কাজের ফাঁকে ফাঁকে এক্সারসাইজটা করে নিতে। কিন্তু বিশ্বাস করো আনার পরে একদিনও আমি এতে হাঁটিনি।
 
আমি বললাম, আপনি যে আলসে লোক, এটাই তো স্বাভাবিক। এতে রহস্যর কিছু নাই। আমার তো ধারণা, আমার ক্ষেত্রেও এমনটাই হবে, একদিনও হাটা হবে না। ট্রেডমিল শো পিস্ হয়ে যাবে।
 
ভাই বললেন, আমি করি কী জানো ? প্রতিদিন একঘন্টা ট্রেডমিলটার দিকে তাকিয়ে থেকে মনে মনে হাটি।
 
মনে মনে হাঁটেন মানে ?
 
মনে মনে হাটি মানে কল্পনা করি আমি যে আমি ট্রেডমিলে হাঁটছি।
 
আমি বললাম, ওহ। এটাও হতে পারে। তবে একঘন্টা ধরে মনে মনে হাঁটাটা একটু সমস্যা না ? মন তো অন্যদিকে ডাইভার্ট হয়ে যেতে পারে, নাকি ?
 
ভাই বললেন, হ্যা পারে। তবে ভালো রেজাল্ট পাচ্ছি তো , তাই ডাইভার্ট হয় না। আর তাছাড়া ভাবার সময় দরজা বন্ধ রাখি, মোবাইলও অফ থাকে।
 
আমি একটু আশ্চর্য হয়ে বললাম, ভালো রেজাল্ট পাচ্ছেন মানে ?
 
বড় ভাই বললেন, এটাই তো রহস্য। তুমি বিশ্বাস করবে কিনা জানি না। এই মনে মনে হাঁটা শুরু করার পর থেকেই আমার ওজন নিয়মিত কমতে শুরু করেছে। এক মাসে ৭ কেজি কমেছে। ইটস ওয়ার্কিং, ম্যান !
 
আমি মনে মনে, 'যাশালা, ভাইয়ের মাথাটা গেছে মনে হয়' বলে প্রবল অবিশ্বাস নিয়ে ভাইয়ের দিকে আরেকবার ভালো করে তাকালাম।
এবং আবিষ্কার করলাম, আসলেই তাকে আগের চেয়ে বেশ শুকনা লাগছে।
 
কে জানে হতেও পারে।
জগৎ বড়োই রহস্যময়।
.
 
দুদিন পরের ঘটনা।
 
অফিসে আমার রুম থেকে বড় ভাইকে ফোন দিচ্ছি - একটা বিষয় জানার জন্য। ফোন সুইচড অফ পাচ্ছি।
বুঝলাম ভাইজান এখন ফোন বন্ধ করে মনে মনে হাঁটছেন। কাজেই অপেক্ষা করার ছাড়া উপায় নেই।
 
এক ঘন্টা পর ভাই ফোন ব্যাক করলেন - কী ব্যাপার কল দিয়েছিলে ?
 
আমি বললাম, জি ভাই একটা বিষয় সেদিন জিজ্ঞেস করতে ভুলে গেছিলাম।
 
ভাই বললেন, কী ?
 
আমি বললাম, ভাইয়া, আপনি যখন মনে মনে হাটেন তখন কি ট্রেডমিল চালু থাকে, নাকি সুইচ অফ করা থাকে ?
 
ভাই বললেন, এটা কেন জানতে চাচ্ছো ?
 
না... ইয়ে ... মানে .. আমিও একটা ট্রেডমিল বসিয়েছি আমার রুমে .. আপনার মতো মনে মনে হাটবো বলে। ওজন কমানোর জন্য এর চেয়ে আরামদায়ক উপায় আর কোথাও খুঁজে পেলাম না তো তাই।
 
ভাই বললেন, সাব্বাস। তুমিও শুরু করেছো তাহলে। গুড। ভালো করে করো। তুমি আমার সঙ্গে থাকলে আমরা দুজনে মিলে 'মনে মনে এক্সারসাইজ' করার উপর একটা রিসার্চ করে মেডিক্যাল সায়েন্স এ রীতিমতো একটা বিপ্লব ঘটিয়ে ফেলতে পারবো কিন্তু।
 
আমিও ব্যাপক আগ্রহের সঙ্গে বললাম, জি ভাই। ইনশাল্লাহ।
 
লেখা-যোবায়েদ আহসান
৩৭৯ পঠিত ... ০৮:০৯, সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১

আরও

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

আইডিয়া

গল্প

রম্য

সঙবাদ

সাক্ষাৎকারকি


Top