মণ্ডপে স্যাড সং না বাজানোর অনুরোধ জানালো সদ্য ব্রেকাপ আক্রান্ত সমাজ

২১৮ পঠিত ... ১১:৪৪, অক্টোবর ০৫, ২০২২

Puja-sad-song

ব্রেক আপ মানেই কষ্ট। দিন নেই, রাত নেই—এ কষ্ট যেকোনো সময় বুকের ভেতর নাড়াচাড়া দিয়ে ওঠে। এখন পুরোদমে চলছে দুর্গাপূজা। মন্ডপ থেকে ভেসে আসছে ঢাক আর গানের শব্দ। এমনকি মন্ডপের স্যাড সং শুনে কারো বুকে হুহু করে বেজে ওঠে অতীতের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কোনো কষ্ট।

এজন্য গতকাল রাত তিনটায় মন্ডপে স্যাড সং না বাজানোর অনুরোধ করে জাতীয় পূজা কমিটির কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন জাতীয় ব্রেকাপ আক্রান্ত সোসাইটি।

এ ব্যাপারে জাতীয় ব্রেকাপ আক্রান্ত সোসাইটির সভাপতি বাপ্পারাজ বলেন, ‘আমরা এই কষ্ট থেকে মুভ করার খুব চেষ্টা করছি। কিন্তু পূজা মন্ডপে গেলে আর নিজেকে ঠিক রাখতে পারি না। আনন্দ নিয়ে পূজা দেখতে গিয়ে যদি গান শুনে প্রাক্তনকে মনে পড়ে যায় তাহলে তো বিপদ!’

পূজা মণ্ডপ ঘুরে ঘুরে ব্রেকাপ আক্রান্ত সোসাইটির অনেক সদস্যের সাথে কথা বলি আমরা। রাজধানীর ঢাকেশ্বরি মন্দিরের ঠাকুরের পেছনের এক কোনায় বসে বসে ফুপিয়ে কাঁদতে দেখা যায় রাফসান নামের এক যুবককে। কাছে গিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গার্লফ্রেন্ড নিয়ে পূজা দেখতে আসছিলাম। এখানে ‘চলে যায়, প্রাণের পাখি চলে যায়’ গানটা শুনে এক্সের কথা মনে পড়ে চোখ দিয়ে পানি চলে আসলো। প্রেমিকা বিষয়টি বুঝতে পেরে নগদে ব্রেকাপ করে চলে গেছে! এখন আমি কী করবো!’

সুস্মিতা নামের এক তরুণীও জানিয়েছেন নিজের সমস্যার কথা। রমনা পূজা মণ্ডপ থেকে তিনি বলেন, ‘পাসুরি গান যখন হিট তখন আমার প্রেম হয়। একসাথে দুজনে এই গান শুনতাম সারাদিন। এরপর আমাদের ব্রেকাপ হয়ে যায়। আজকে যত মণ্ডপেই গেছি দেখি পাসুরি ভাবতেছে। আনুলু, পানুনু শুনলেই নিজেকে কন্ট্রল করতে পারছি না। ভাবছি এবার আর পূজাই দেখবো না।‘

২১৮ পঠিত ... ১১:৪৪, অক্টোবর ০৫, ২০২২

Top