দাম বেড়ে যাওয়ায় পরীক্ষায় ডিম দিচ্ছেন না শিক্ষকসমাজ

৩৯৬ পঠিত ... ১০:৫৯, আগস্ট ১৮, ২০২২

Porikkhay-dim

ব্যাচেলর এবং বেকারদের একমাত্র পুষ্টিকর খাদ্য ডিমের হালির বর্তমান বাজারমূল্য ৫২ টাকা। শুধু ব্যাচেলর কিংবা বেকারই নয়, সমাজের একটি গোষ্ঠীর প্রায় নিয়মিত খাবারই ছিলো ডিম। ডিমের দাম হঠাৎ করে এতো বেশি বেড়ে যাওয়ায় ভীষণ বিপাকে পড়েছেন দেশের নানা স্তরের মানুষ।

তবে, শিক্ষার্থীদের জন্য মজার এবং একই সাথে আনন্দের ব্যাপার হলো দাম বেড়ে যাওয়ায় পরীক্ষায় ডিম দিচ্ছেন না শিক্ষকসমাজ। এ ব্যাপারে প্রাইমারি স্কুলের এক শিক্ষক বলেন, ‘আগে লাল কালি দিয়ে ইচ্ছামতো পরীক্ষার খাতায় ডিম দিতে পারতাম। ১০০ তে দুইটা ডিম পাইছে এরকম ছাত্রের সংখ্যাও অনেক। কিন্তু এখনের সময়টাতো বুঝেনই। খুব ক্রুশিয়াল। ডিম দিতেও ভয় লাগে, মনে হয় এই বুঝি পকেট থেকে টাকা কেটে রাখবে। তাই এখন আর ডিম টিম এতো দেই না... ’

eআরকি'র প্রতিবেদকের সাথে কথা বলতে গিয়ে শিক্ষার্থীরাও এ ব্যাপারে তাদের উল্লাস প্রকাশ করে। পরীক্ষায় আন্ডা না পাওয়ায় বাড়িতে তাদের পিঠও বেঁচে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে সরকারের প্রতি তারা বিশেষ কৃতজ্ঞ। তবে সর্বশেষ পরীক্ষায় গণিতে ১০০ তে ০০ পাওয়া মহিউদ্দিনের মুখে এক ভিন্ন কাহিনী শোনা যায়। অষ্টম শ্রেণির মহিউদ্দিন(১৩) বলে,‘ এইবারই যে আমি আন্ডা পাইছি, এমন না। এর আগে বাড়িতে প্রচুর মাইর খাইছিলাম।এইবারও খুব ভয়ে ভয়ে ছিলাম। কিন্তু ভাই! বাসায় যেই শুনছে আমি দুইটা ডিম পাইছি পরীক্ষায়, বাপ মায়ের খুশি আর ধরে না। কপালে অনেকগুলা চুমু দিয়ে আব্বা বলছে এটাই আমার জীবনের প্রথম অর্জন৷ আমার বদৌলতে ডিম খাইতে পেরে তারা আজ খুব গর্বিত। বাবা মাকে খুশি করতে পেরে আমি আজ ধন্য। বাকি পরীক্ষাগুলোতেও সারাজীবন ০০ পেতে চাই....’

একই প্রতিষ্ঠানের ইন্টারমিডিয়েটের কামাল নামের আরেক ছাত্র বলেন, ‘আমি এখন অবশ্য ভালো ছাত্র, তবে আগে জীবনে যত শূন্য পাইছি, সবগুলা জমায়ে রাখলে এতদিনে সফল মুরগি ব্যবসায়ী হইতাম... ’

শিক্ষার্থীদের এমন বয়ানে ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন প্রতিষ্ঠান প্রধান, পরিচালক ও শিক্ষকেরা। মহিউদ্দিনের প্রসঙ্গে তার ক্লাস টিচার বলেন, ‘তুই তো এই বাজারে মুরগির ডিম পাওয়ারও যোগ্য না। আমার ডিমগুলা তোরে দিছি হারামজাদা... ’

৩৯৬ পঠিত ... ১০:৫৯, আগস্ট ১৮, ২০২২

Top