৭ শরিকে ১ লিটার তেল কিনলেন নোয়াখালীর ৭ বন্ধু

৩০৪ পঠিত ... ১৫:৩৮, মে ০৭, ২০২২

7-shorik

তেলের দাম দিনকে দিন স্পর্শ করছে আকাশ। এর আগে বেশ কয়েক দফায় দাম বাড়ার পরে আবারও লিটার প্রতি ৩৮ টাকা বেড়েছে তেলের দাম। তেলের এমন মূল্যবৃদ্ধিতে সংসার চালাতে হিমসিম খাচ্ছে অনেকে। তবে বুদ্ধিমানরা অবলম্বন করছে ভিন্ন পথ। এমনই তিন বন্ধুর সন্ধান মিলেছে নোয়াখালীতে। জানা গেছে, সাত শরিকে ১ লিটার সয়াবিন তেল কিনেছে নোয়াখালীর এই সাত বন্ধু।  

একসাথে ১ লিটার সয়াবিন কেনায় স্থানীয় বাজারে হইচই পড়ে যায়। এ বিষয়ে এক বন্ধু বলেন, ‘অনেকে ভেবেছিলো তেলের দাম বাড়ায় আমরা তেল না খেয়েই মারা যাবো। কিন্তু একতা থাকলে ও মিল থাকলে শরিকেও যে তেল কেনা যায় অনেকে তা জানতো না। কাল সকালে বোতলের মুখ খোলা হবে। নিজেরা সাত ভাগ করে এক ভাগ আত্মীয়-স্বজন ও দুস্থদের জন্য দেয়া হবে।‘

তেলের বোতলটি নেয়ার জন্য একটা পিকআপও ভাড়া করেছেন তারা। বোতলের গলায় লাগানো হয়েছে বেলিফুলের একটি মালাও। বোতলটি বাসায় নেয়ার সময়ের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অন্য এক বন্ধু বলেন, ‘প্রথমে ভেবেছিলাম দাম বেশি দিলাম নাকি। কিন্তু পথে অনেকে বলছে, ভাই জিতছেন। এরপর থেকে মনের ভেতরের খুদুরমুদুর চলে গেছে। আসলেই জিতছি।‘

তেলের দাম বাড়লেও সরকারকে এ নিয়ে কোন প্রকার দুশ্চিন্তা করতে নিষেধ করে দিয়েছেন অন্য এক বন্ধু। তিনি বলেন, ‘আপনারা যথেষ্ট করেছেন। তেল খেতে খেতে দেশের মানুষের শইল্লে আসলে তেল চলে আসছে। এখন শরিকে তেল কিনে সেই তেল একটু কমানো দরকার।’   

আরও অনেকেই শরিকে যোগ হতে চেয়েছিলেন বলে জানান তারা। তবে নিয়ম না থাকায় শরিক বাড়াতে পারেননি। তারা বলেন, ‘শরিক আরো বাড়ানো যেতে। আমাদেরও কষ্ট কম হতো। কিন্তু কী করবো, শুনেছি, সাতের বেশি শরিক না করা যায় না। সেজন্য কষ্ট করে হলেও করেছি। তাছাড়া বছরে একবারই তো কিনবো। একটু কষ্টে কীই-বা আসে যায়!’

৩০৪ পঠিত ... ১৫:৩৮, মে ০৭, ২০২২

Top