সায়দাবাদে তিন বাসের হেল্পারের টানাটানিতে শার্ট ছিঁড়ে চার টুকরা হলো যাত্রীর

২৬৩ পঠিত ... ১৬:৪৯, জানুয়ারি ১৬, ২০২২

bus-helper-tanatani

 

গত বৃহস্পতিবার সায়দাবাদ বাস টার্মিনালে ঘটে গিয়েছে এক হৃদয় বিদারক ঘটনা। ৩টি বাসের হেল্পারের টানাটানিতে রাজধানীর মারুফ নামের এক ব্যক্তির শার্ট ছিঁড়ে চার টুকরো হয়ে যায়।   

জানা যায়, বিকেলের দিকে ফেনী নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন মারুফ। সায়দাবাদ বাস টার্মিনালে নামার পরই প্রথমে এক হেল্পার মারুফের শার্টের ডান হাতা ধরে কুমিল্লাগামী বাসে উঠার জন্য জোর করেন। পরক্ষণেই খুলনাগামী এক বাসের হেল্পার এসে মারুফের বাম হাতা ধরে খুলনার দিকে টান দেন। শার্টের পেছন থেকে মুন্সিগঞ্জগামী বাসের অন্য এক হেল্পার মারুফকে মুন্সিগঞ্জ নিতে চাইলে ত্রিমুখী এই টানাটানিতে মারুফের শার্ট চার টুকরো হয়ে যায়। উদোম গায়ে নিজের ইজ্জত বাঁচাতে মারুফ বরিশালগামী এক বাসের পেছনের সিটে গিয়ে বসে পড়েন।   

এই ঘটনায় বেশ হতবিহ্বল মারুফের সাথে কথা বলতে চাই আমরা। প্রথমে কিছু বলতে না পারলেও ‘ট্রমায় চলে গিয়েছেন কিনা?’ জানতে চাইলে প্যান্ট শক্ত করে ধরে লাফিয়ে উঠে মারুফ বলেন, ‘না ভাই! আমি ট্রমায় যাবো না। আমি ফেনী যাবো। আমাকে প্লিজ স্টার লাইনে তুলে দেন।’

মারুফের এমন আচরণে বেশ অবাক হয়েছেন বাসের হেল্পাররাও। হাসতে হাসতে তারা বলেন, ‘কী আজব লোকরে ভাই! এত কইরা কইলাম, বাসে উঠলোই না। উঠলেই পারতো। খুলনা থেকে ঘুইরা আইসা আবার ফেনী যাইতো। সমস্যার তো কিছু দেখি না, উলটা আরো ঘুরাঘুরি হইয়া যাইতো।’  

পাশ থেকে অন্য একজন বলেন, ‘হ ভাই, আজকাল মানুষের কিছু বুঝি না। ভালো কিছু করতে চাইলেও নিতে চায় না। লোকটা তো ফেনী যাইবো, আমার কুমিল্লার বাসেই উঠতো! এরপর আবার কুমিল্লা থিকা ফেনি যাইতো।’  

মুন্সিগঞ্জগামী বাসের হেল্পার বলেন, ‘এখন আলুর সিজন চলে। মুন্সিগঞ্জ গিয়ে কিছু আলু নিয়া বাড়ি ফিরতো। বাড়ির লোকজন তো খুশীই হইতো নাকি! হুদাই শার্টটা হারাইলো।’  

২৬৩ পঠিত ... ১৬:৪৯, জানুয়ারি ১৬, ২০২২

Top