লকডাউনে নারী কলিগকে একটু পর পর 'রুমে আসুন তো' বলতে না পেরে মনমরা অফিসের বস

১৫১৩ পঠিত ... ২২:০৫, জুলাই ২৮, ২০২১

room e ashun boss

 

লকডাউনে মানুষ নানাবিধ সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। ব্যতিক্রম নন বিভিন্ন অফিসের বস পর্যায়ের লোকেরাও। নারী কলিগদের দেখে কাজের মোটিভেশন পাওয়া অনেক বসই কঠিন সময় পার করছেন বলে একটি ভূয়া সূত্র থেকে জানা গেছে। সূত্রটি থেকে আরো জানা যায়, নারী কলিগকে একটু পর পর 'রুমে আসুন তো' বলতে না পেরে মনমরা হয়ে পড়েছেন অনেকে।

নারী কলিগকে বারবার রুমে ডাকতে না পারার এই সমস্যা একটা বৈশ্বিক ক্ষতি বয়ে আনছে বলে মত দিয়েছেন অনেক বস। এমনই এক ভুক্তভোগী বস বলেন, 'নারী কলিগদের একটু পর পর না দেখলে কাজের স্পিড পাই নাই। আগে তো টানা ১৫ মিনিট করে ওদেরকে রুমে ডেকে আধাঘণ্টা গল্প করতাম। এখন তা না পারার কারণে কাজের ক্ষতি হচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের। যা পর্যায়ক্রমে রাষ্ট্রীয় ও বৈশ্বিক ক্ষতি বয়ে আনছে।'

অন্য এক বস বলেন, 'অভ্যাসবসত ওইদিন গুনগুন করে 'সামিয়া একটু রুমে আসো তো' বলে ফেলেছিলাম। পাশে বউ বসা ছিলো। এরপর বুঝতেই পারছেন! জানের পানি চলে গেছিলো একদম। বাপ্রে বাপ! কী ভয়ানক!'

কাজের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে এই বস বলেন, 'ভাবতেছি সামিয়াকে অফিস করতে বলবো। সাথে আমিও অফিস করবো। অফিসেই থাকবো। ওখানেক চারটা রেঁধে খাবো। একান্তে কাজ করবো।'

সামিয়া রাজি হবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, 'প্রমোশন তো আটকাইয়া রাখছি। রাজি হবে মনে হচ্ছে। আর রাজি হলে কোন একটা অজুহাতে ছাঁটাই করে দিবো। অফিসের উপকারে না আসলে তো এই ধরনের আনপ্রডাক্টিভ কর্মীকে রাখার কোন মানে হয় না।'

লকডাউনের কারণে ব্যাংককও যেতে পারছেন না অনেক বস। এমনই একজন নিয়ম করে প্রতিদিন দুই ঘণ্টা ব্যাংকে গিয়ে ব্যাংককের ফিল নিচ্ছেন বলে জানান।

১৫১৩ পঠিত ... ২২:০৫, জুলাই ২৮, ২০২১

Top