আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর পড়ে গেলেও কেউ হতাহত না হওয়ার বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে দেখছে কর্তৃপক্ষ

৩৭০ পঠিত ... ১৩:৫৯, জুলাই ০৮, ২০২১

asrayon ghor

 

দেশের নানা জায়গায় ছিন্নমূল মানুষের জন্য সরকারের আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর নিয়ে নানা অভিযোগ রয়েছে। কোথাও এমন জায়গায় ঘর করা হয়েছে যেখানে অল্প বৃষ্টিতেই ঘরে পানি ঢোকে। এছাড়াও অনেক জায়গায় সদ্য নির্মাণ করা ঘরগুলো ভেঙে পড়ার অভিযোগও পাওয়া গেছে। 

তবে ঘর ভেঙে পড়লেও কোন মানুষের হতাহতের ঘটনা না ঘটায় বিষয়টিকে ইতিবাচকভাবে দেখছেন কর্তৃপক্ষ। নিজেদের একটি ফেক আইডি থেকে এমনটাই জানান তারা। বিষয়টির ইতিবাচক দিক তুলে ধরে তারা বলেন, 'ঘরগুলো যেভাবে ভেঙে পড়েছে, কারো মাথায় পড়লে একদম মরে যাইতো। তখন তাদের আরো সমস্যা হতো। জীবনের চেয়ে নিশ্চয়ই ঘর বড় না।'

কারোর আহত ও নিহত না হওয়ার বিষয়টিকে সরকারের অন্যতম অর্জন বলে দেখছেন তারা। এমনই একজন বলেন, 'এতগুলা ঘর পড়ছে অথচ কেউ আহত হয় নাই। আমরা ক্ষমতায় আছি বলেই এমন সাফল্য অর্জন করা সম্ভব হয়েছে। এ থেকেই কিন্তু প্রমাণ হয়, দেশের কোথাও কোন দুর্নীতি নাই, দেশে আইনের শাসন সবার জন্য সমান, আমাদের দেশ একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও আন্তর্জাতিক মানের নির্বাচনের দেশ।'

ঘরগুলোর ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিচক্ষণতারও প্রশংসা করেন তারা। ঠিকাদারদের আরো কিছু কমিশন দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে একজন বলেন, 'অনেক ঘর দেখলাম, গ্রাহককে বুঝিয়ে দেয়ার আগেই ভেঙে পড়েছে। এই ঘরগুলোও কিন্তু বুঝিয়ে দেয়ার পর ভাঙতে পারতো। তাহলে কত মানুষ মরতো বুঝতে পারছেন? এই বিচক্ষণতা কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের। তারা নিম্নমানের কাঁচামাল ব্যবহার করেছে বলেই আগে আগে ভেঙে পড়ে অনেক মানুষ বেঁচে গেছে। এদের পুরষ্কৃত করা উচিত।' 

ভেঙে পড়া ঘর নিয়ে সমালোচনায় মুখর ব্যক্তিদেরকে ইতিবাচকতা ধারণ করার আহবান জানান তারা। একজন বলেন, 'চাইলে যে কোন জায়গা থেকে খুঁচিয়ে নেতিবাচকতা বের করা যায়। খোঁচাখুঁচি না করে সরকারের ভালো কাজগুলো দেখুন। মনের দরজাটা খুলুন। মোটিভেশনাল স্পিচ শুনুন। ঘর নির্মাণ শিখতে বিদেশ যাওয়ার পরামর্শও দিতে পারেন। তা না করে যদি নেতিবাচকতা ছড়ান, তাহলে আপনাদের ভেতর ইতিবাচকতা নিয়ে আসতে আমাদেরকে একটু কষ্ট করতে হবে আর কি!'

৩৭০ পঠিত ... ১৩:৫৯, জুলাই ০৮, ২০২১

Top