ফেসবুকে অন্যদের জাজ করতে করতে উগান্ডার সুপ্রিমকোর্টে নিয়োগ পেলেন মোখলেস

২৭৫ পঠিত ... ১৩:৫৫, মে ০১, ২০২১

facebook-judge-mokhles


অবশেষে প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেলেন জাজমেন্টাল ফেসবুকাররা। দীর্ঘ সময় নিরলসভাবে ফেসবুকে অন্যদের জাজ করার স্বীকৃতি স্বরুপ উগান্ডার সুপ্রিমকোর্টে জাজ হিসেবে নিয়োগ পেল মোখলেস নামের এক বাংলাদেশি।

দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুকে অন্যদের জাজ করে আসছিলেন মোখলেস। বিশেষ করে বিভিন্ন নিউজের কমেন্টবক্সে জাস্ট নাউতে বিচক্ষণ রায় দেয়ায় মোখলেসের ধারেকাছে কেউ ছিলো না বললেই চলে। ধর্ষণ, হেরাসম্যান্টের রায়ের ক্ষেত্রে পোশাকের কোথায় কোথায় কেমন কেমন দোষ ছিলো সে বিষয়ে মোখলেস ছিলো একদম সিদ্ধহস্ত। মেয়েদের প্রমোশনের কারণ, মডেলদের চরিত্র সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী, কোন বিখ্যাত ডিভোর্সের ক্ষেত্রে গিলটি কে, ইত্যাদি নানান রায় ছিলো মোখলেসের নখদর্পণে।

এছাড়া হোমপেজে যেখানে যা দেখতেন সবকিছুকেই জাজ করেছেন এই অনবদ্য বিচারক। আর শেষ পর্যন্ত সেটারই স্বীকৃতি পেলেন।

মোখলেসের এমন সবার বিষয়েই দ্রুততার সহিত নির্ভূল রায় দেয়ার ব্যাপারটিই মুগ্ধ করেছে উগান্ডা সুপ্রিমকোর্টকে। ফাইলে উপর ফাইলের স্তুপ হওয়া মামলায় রায় শেষ করার জন্যই নিয়োগ দেয়া হয়েছে তাকে। উগান্ডা সুপ্রিম কোর্ট জানায়, 'আমাদের অনেক রায় জমে গেছে। আগের জজরা কেউই দ্রুততার সহিত রায় দিতে পারে না। মোখলেস যেভাবে জাস্ট নাউতে রায় দিতে পারে, আশা করছি আড়াই দিনেই সকল মামলা নিষ্পত্তি করে ফেলতে পারবো।'

মোখলেসের সবচেয়ে অবাক করা গুণের কথাও জানান তারা। উগান্ডার সুপ্রিমকোর্ট থেকে বলা হয়, 'দুনিয়াতে বসে মোখলেস সেকেন্ডের মধ্যে বলে দিতে পারে কে জান্নাতে যাবে কে জাহান্নামে। এটা তো চাট্টিখানি কথা না! এমন গুণি মানুষের তো সারা বিশ্বের জজ হওয়া উচিত।'

তবে উগান্ডার সুপ্রিমকোর্টকেও জাজ করছেন মোখলেস। নিচু গলায় তিনি জানান, 'সব জাজদেরই দেখলাম গায়ের জামা ময়লা, এরা কি গরিব নাকি?'

২৭৫ পঠিত ... ১৩:৫৫, মে ০১, ২০২১

Top